টাইগারদের দাপুটে জয়

আগের সংবাদ

টাইগারদের জয়ে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

পরের সংবাদ

নিষিদ্ধ ট্রাক্টরের দখলে কমলনগরের রাস্তা, নীরব প্রশাসন

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২০, ২০২১ , ৫:৫৫ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ২০, ২০২১ , ৫:৫৮ অপরাহ্ণ

নিষিদ্ধ ট্রাক্টরের দখলে লক্ষ্মীপুরের কমলনগর উপজেলার সকল রাস্তা। ট্রাক্টরের দৌরাত্বে প্রতিনিয়ত নস্ট হচ্ছে উপজেলার কাঁচা পাকা রাস্তা। এছাড়াও এসকল ট্রাক্টারের বেপরোয়া চলাচলে প্রতিনিয়ত ঘটছে দুর্ঘটনা। সম্প্রতি উপজেলায় ট্রাক্টরের চাপায় মারা গেছে দুই পথচারী।

জানাযায়, উপজেলার সবকয়টি ইট ভাটার ইট ও মাটি পরিবহনের কাজেই মূলত ব্যবহৃত হচ্ছে এসকল ট্রাক্টর। এসকল ট্রাক্টরের নেই কোন বৈধ রোডপার্মিট। চালকদেরও নেই কোন বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্স। ট্রাক্টরের চাকায় প্রতিনিয়ত ধ্বংস হচ্ছে গ্রামের সদ্য নির্মিত কাঁচা-আধা পাকা সড়কগুলো।

স্থানীয়রা জানান, সরকারের কোটি কোটি টাকার রাস্তাঘাট ধ্বংস করছেন গুটিকয়েক ইটভাটার মালিক। তারা স্বল্পমূল্যে ফসলি জমির মাটি কিনে ভাটায় পরিবহনের ফলে বিলীন হচ্ছে রাস্তাঘাট।

স্থানীয়দের অভিযোগ, এসব অবৈধ যন্ত্রদানবের প্রতি স্থানীয় প্রশাসন উদাসিন। এলাকার প্রভাবশালীদের খুঁটির জোর ও প্রশাসন কে মাসিক মাসোয়ারা দিয়ে এসকল ট্রাক্টর চলছে বহাল তবিয়তে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ট্রাক্টরের বেপরোয়া চলাচল গ্রামীণ রাস্তা-ঘাট ভেঙে চুরমার হয়ে যাচ্ছে। কৃষি জমির উর্বর টপসয়েল কেটে ইটভাটায় সরবরাহ এবং পুকুর-দীঘিনালা ভরাট চলছে। ট্রাক্টরের অত্যাচারের মুখে গ্রামের মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে।রোড পারমিশন বিহীন ট্রাক্টর ও লাইসেন্স বিহীন চালকের কারণে রাস্তা-ঘাটে চলাচলকারী মানুষ সার্বক্ষণিক উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠার মধ্যে চলাচল করছে। অনেক সময় শিশু চালককে গাড়ি চালাতে দেখা যায়। এভাবেই কমলনগর উপজেলার ৯ টি ইউনিয়নের পাড়া মহল্লার সড়ক ও গ্রামীণ রাস্তা সহ উপজেলার প্রত্যেক সংযুক্ত সড়কগুলোতেই দিনরাত চষে বেড়াচ্ছে প্রায় ৩ শতাধিক অবৈধ ট্রাক্টর।

পথচারী ডা.মফিজ জানান, এ গাড়ি চলাচলের সময় আশপাশ এলাকায় কুয়াশার মতো সৃষ্ঠ ধুলোয় অন্ধকারাচ্ছন্ন হয়ে থাকে। আর ধুলোর মধ্যে দিয়ে যাতায়াত করায় সর্দি কাশি ও শ্বাসকষ্ট রোগে আক্রান্ত হচ্ছে এলাকার শিশুসহ সব বয়সের মানুষেরা। অনতিবিলম্বে এ যন্ত্রদানব প্রতিরোধ করতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন তিনি।

কমলনগর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি)নুরুল আফসার বলেন, এসব টলি ট্রাক্টর রাস্তাঘাটের ব্যাপক ক্ষতি করে। কমলনগরে ইতিমধ্যে কয়েকটি ট্রাক্টর মালিককে জরিমানার আওতায় আনা হয়েছে।

কমলনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ কামরুজ্জামান বলেন, ইতোপূর্বে কয়কেটি ট্রাক্টর মালিককে জরিমানা করে সতর্ক করা হয়েছে । তারপরেও তারা সতর্ক না হলে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানান তিনি।

ডিসি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়