যুক্তরাষ্ট্রে বাইডেন-কমলা অধ্যায় শুরু

আগের সংবাদ

সাকিবের রাজকীয় ফেরা

পরের সংবাদ

ধর্ষিতা নারীকে বিয়ের শর্তে জামিন পেল চিকিৎসক

প্রকাশিত: জানুয়ারি ২০, ২০২১ , ১১:১০ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ২০, ২০২১ , ১১:১০ অপরাহ্ণ

রাজশাহীর ধর্ষিতাকে আদালত চত্বরে বিয়ে করে জামিন পেলেন এক চিকিৎসক। বুধবার (২০ জানুয়ারি) জেলার আদালত চত্তরে বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে। গত ১৭ মাস যাবত একজন নারী আইনজীবীকে ধর্ষণ করার অভিযোগে হাজত বাস চিকিৎসককে জামিন দেয়া হয়। জামিন পাওয়া চিকিৎসকের নাম সাখাওয়াত হোসেন রানা (৪০)। তিনি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের চক্ষু বিশেষজ্ঞ। মামলার আসামিকে ওই নারীকে বিবাহের শর্তে আদালত থেকে জামিন দেয়া হয়। রাজশাহীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আদালত ১ এর বিচারক নাম মনসুর আলী তাকে জামিন দেন।

চিকিৎসক রানার গ্রামের বাড়ি নওগাঁর পোরশা উপজেলায়। ডা. রানার প্রথম স্ত্রী ও সন্তান রয়েছে। ২য় স্ত্রীকে বিয়ে করতে তাকে ৫০ লাখ টাকা দেনেমোহর দিতে হয়েছে। যার মধ্যে ২৫ লাখ টাকা নগদে এবং বাকি রাখা রয়েছে ২৫ লাখ টাকা। দ্বিতীয় স্ত্রীর বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলায়।

মহানগরীর টিকাপাড়া এলাকায় তিনি ভাড়া থাকেন চিকিৎসক রানা। ওই নারী আইনজীবী মহানগরীর কোর্ট এলাকার ভাড়া থাকেন। তিনি রাজশাহী জেলা জজ আদালতের শিক্ষানবিস আইনজীবী। ওই নারী অভিযোগ করেছিলেন, প্রায় দেড় বছর আগে ডা. রানার সঙ্গে তার পরিচয় হয়। কিছু দিনের মধ্যেই ডা. রানা তার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এরপর একদিন কৌশলে তাকে ধর্ষণ করেন এবং সেই ভিডিও চিত্র ধারণ করে রাখেন।

তারপর থেকেই ভিডিও চিত্র দিয়ে কৌশলে গেল ১৭ মাস ধরে তাকে ধর্ষণ করে। সর্বশেষ গত ২৫ জুলাই দুপুরে ডা. রানা ওই নারীর ভাড়া বাসায় গিয়ে তার সঙ্গে জোরপূর্বক শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করতে চায়। ওই সময় ধর্ষিতার বান্ধবী পুলিশের জরুরি সেবার ৯৯৯ নম্বরে কল দেন। বিষয়টি পরে তিনি আশপাশের লোকজনকে জানালে এলাকাবাসী ওই চিকিৎসককে আটকে রাখে। ঘটনার বিষয় জানতে পেরে রাজপাড়া থানা পুলিশ গিয়ে ভিডিও চিত্র উদ্ধার করে। ওই ঘটনার নারী আইনজীবী বাদী হয়ে ধর্ষণ ও নির্যাতনের মামলা করেন।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়