ইশরাককে আত্মসমর্পণের নির্দেশ হাইকোর্টের

আগের সংবাদ

নিউজ ফ্ল্যাশ

পরের সংবাদ

পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নিয়ে উদ্বেগ

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৯, ২০২১ , ৯:৪৪ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১৯, ২০২১ , ৯:৪৪ পূর্বাহ্ণ

করোনা প্রতিরোধে বিশ্বজুড়ে টিকাদান কর্মসূচি শুরু হওয়ার পর, পনের দিন পার হওয়ার আগেই টিকার কার্যকারিতা এবং পাশর্^প্রতিক্রিয়া নিয়ে বড় উদ্বেগের মধ্যে পড়েছে বিশ্ব। বিশ্বের প্রথম অনুমোদন পাওয়া ফাইজার টিকার প্রথম ডোজ নেয়ার পর নরওয়েসহ ইউরোপের বিভিন্ন দেশে অশীতিপর প্রায় অর্ধশতাধিক মানুষের মৃত্যুর খবর মিলেছে। নরওয়েতে টিকা নেয়ার পর গ্রাহকরা অস্বস্তি ও জ্বরসহ অন্যান্য উপসর্গের অভিযোগ এনেছেন। ইসরায়েলে টিকার প্রথম ডোজ নেয়ার পর অনেকের মুখমণ্ডল ‘বিকৃত রূপ’ ধারণ করেছে বলে দাবি করা হয়েছে গণমাধ্যমে। চিকিৎসকরা এখন তাদের দ্বিতীয় ডোজ দেবেন কিনা, তা নিয়েই অনিশ্চয়তায় পড়েছেন। সেদেশের একজন গ্রাহক বলেন, টিকা নেয়ার পর ২৮ ঘণ্টা আমার মুখমণ্ডল বিকৃত ছিল। অবশ্য এরপর তা সেরে যায়। জরুরি ভিত্তিতে ফাইজার, মডার্না, অক্সফোর্ড, স্পুটনিক-ভি এবং ভারত বায়োটেকের টিকার প্রয়োগ চলছে যুক্তরাজ্য, মেক্সিকো, কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, চীন, ভারতসহ অনেক দেশেই। সর্বশেষ, টিকা নেয়ার পর বিরূপ পাশর্^প্রতিক্রিয়ার খবর মিলেছে বিশ্বের বৃহত্তম গণটিকাদান কর্মসূচি শুরু করা ভারতেও। ইতোমধ্যেই সেখানে টিকা নেয়ার পর একজনের মৃত্যুর পাশাপাশি প্রায় অর্ধসহস্র মানুষের দেহে ক্ষতিকর পাশর্^প্রতিক্রিয়ার খবর পাওয়া গেছে।

এদিকে, প্রতিবেশী ভারতে করোনাটিকার এ ধরনের বিরূপ প্রতিক্রিয়ার খবর জানার পর টিকা নিয়ে শঙ্কার ছায়া পড়েছে বাংলাদেশেও। আগামী ৬ মাসে ৩ কোটি ডোজ টিকা পাওয়ার জন্য ভারতের দিকে তাকিয়ে রয়েছে দেশটি। তাছাড়া, আগামীকাল বুধবারই দেশে আসছে ভারতের উপহার হিসেবে ২০ লাখ ডোজ টিকা। তবে বিশ্লেষকরা আশ্বাস দিয়ে বলছেন, ভয়ের কিছু নেই, ভ্যাকসিনে মৃদু পাশর্^প্রতিক্রিয়া তৈরি হওয়া অতি স্বাভাবিক ঘটনা। তবে, টিকা নিয়ে অনাগ্রহী ও সংশয়বাদীরা বলছেন, বাজার ধরার প্রতিযোগিতায় নেমে ওষুধ কোম্পানিগুলোকে শেষমেশ টিকার গুণগত মানের সঙ্গে আপস করতে হয়নি তো!

ভারতের শীর্ষস্থানীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার জানায়, সেদেশে টিকা নেয়ার পর ৪৪৭ জনের শরীরে নানা ধরনের বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে। এসব গ্রাহক টিকার প্রতিক্রিয়ায় জ্বর, মাথাব্যথা, ত্বকে র‌্যাশ ওঠা এবং বমি বমিভাবের অভিযোগ এনেছেন। চিকিৎসকরা এসব উপসর্গকে টিকাদানের বিরূপ প্রতিক্রিয়া বা এইএফআই (অ্যাডভার্স ইভেন্ট ফলোইং ইমুনাইজেশন) হিসেবে অভিহিত করে থাকেন। এর সঙ্গে সরাসরি টিকা বা টিকাদান প্রক্রিয়ার সম্পর্ক নাও থাকতে পারে বলে জানান বিশেষজ্ঞরা। দেশটিতে গত শনিবার থেকে টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়। এদিন দেশটির ৩ হাজার ৬টি টিকা কেন্দ্র থেকে একই সঙ্গে টিকাদান কার্যক্রমের সূচনা করেন সেদেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি।

সূত্রে প্রকাশ, টিকা নেয়ার ২৪ ঘণ্টা পর উত্তর প্রদেশের মোরাদাবাদ জেলায় একটি সরকারি হাসপাতালে মহিপাল সিং নামে ৪৬ বছর বয়সি একজন কর্মী মারা গেছেন। তবে

জেলার প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বলেন, টিকা নেয়ার সঙ্গে এ মৃত্যুর কোনো সম্পর্ক নেই। উত্তর প্রদেশ সরকার জানায়, ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে ‘হৃদযন্ত্র ও ফুসফুসজনিত’ রোগের কারণে তার মৃত্যু ঘটেছে বলে জানা গেছে। দিল্লির এআইইউএমএসের একজন নিরাপত্তা কর্মী টিকা নেয়ার পর তাকে আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। ২২ বছর বয়সি ওই নিরাপত্তাকর্মীর দেহে অ্যালার্জি জাতীয় প্রতিক্রিয়া দেখা যায়। অন্যদিকে কলকাতায় ৩৫ বছর বয়সি একজন নার্স কোভিড-১৯ এর টিকা নেয়ার পরপরই অজ্ঞান হয়ে পড়েন। তবে এখন তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে। স্বাস্থ্য-মন্ত্রণালয়ের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেন, ওই নার্স কেন অজ্ঞান হয়ে পড়লেন, তা খতিয়ে দেখতে একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়েছে।

দেশটিতে টিকাদানের প্রথম দফায় চিকিৎসক, নার্স, অ্যাম্বুলেন্স চালক, স্বাস্থ্যকর্মী, পরিচ্ছন্নতাকর্মী এরা সবাই টিকা পাচ্ছেন। এরপর পুলিশ, সামরিক বাহিনীর সদস্য এবং অন্যান্য করোনা যোদ্ধাদের টিকা দেয়া হবে। প্রথম দফায় টিকা পাবেন দেশটির প্রায় ৩ কোটি মানুষ। তবে এখন পর্যন্ত টিকা নেয়ার পর যে সাড়ে ৪০০ লোকের দেহে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা গেছে, তাদের মধ্যে কারা অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ‘কোভিশিল্ড’ আর কারা ভারত বায়োটেকের ‘কোভ্যাক্সিন’ নিয়েছেন- সে বিষয়ক কোনো হিসাব জানা যায়নি এখনো।
তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যে কোনো ধরনের ভ্যাকসিনেই কোনো না কোনো ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ঘটা একটি অতি স্বাভাবিক ঘটনা। এতে ভয় পাওয়ার কিছু নেই। কেননা, কিছু সময় পরই এগুলো মিলিয়ে যায়। চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা জানান, করোনাটিকা নেয়ার পর স্বাভাবিক যে ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে তার মধ্যে রয়েছে- সংবেদনশীল হয়ে ওঠা, টিকা নেয়ার জায়গায় ব্যথা অনুভব, মাথাব্যথা, ক্লান্তি, পেশীতে ব্যথা, অস্বস্তি, জ¦র জ¦র ভাব, কিংবা বমির প্রবণতা।

এমআই

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়