ম্যানইউ-লিভারপুল পয়েন্ট ভাগাভাগি

আগের সংবাদ

সংবাদপত্র পর্যালোচনা

পরের সংবাদ

রামগড়ে আশ্রয়ন প্রকল্পের ঘর প্রস্তুত

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৮, ২০২১ , ১১:৫২ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১৮, ২০২১ , ১:০১ অপরাহ্ণ

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে খাগড়াছড়ি জেলার রামগড় উপজেলায় প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের আওতায় ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে নতুন ঠিকানা। গৃহহীন পরিবারের জন্য সরকারি খাস জমিতে গৃহ নির্মাণ কাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। গৃহহীন পরিবার তাদের স্বপ্নের ঘর বুঝে পাচ্ছেন আগামী ২৩ জানুয়ারী। সমগ্র বাংলাদেশে একযোগে ভার্সুয়াল মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী এ প্রকল্পটি উদ্বোধন করবেন। রবিবার (১৭ জানুয়ারি) দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মু. মাহমুদ উল্যাহ মারুফ সহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা ঘরগুলি সরেজমিনে পরিদর্শন করে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

‘আশ্রয়ণের অধিকার-শেখ হাসিনার উপহার’এই স্লোগানে রামগড় উপজেলায় ভূমি ও গৃহহীন মানুষের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আবাসন উপহার হিসেবে দেয়া খাস জমিতে গৃহ নির্মাণের কাজ করছে রামগড় উপজেলা প্রশাসন। মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ভূমি ও গৃহহীন পরিবারের জন্য দিনরাত পরিশ্রম করে গৃহ নির্মাণ করছে প্রশাসন।

আগামী ২৩ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী সারাদেশে একযোগে আশ্রয়ন-২ প্রকল্পটি উদ্বোধন করলে উপকারভোগীদের মধ্যে ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হবে বলে প্রশাসনের পক্ষ থেকে জানা গেছে। প্রত্যেক ভূমি ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ খাসজমি বন্দোবস্ত করে ওই জমির ওপর ঘর তৈরি করা হয়েছে। প্রতিটি ঘরের বরাদ্দ ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। এই টাকায় তাদের জন্য ২০ ফুট বাই ২২ ফুট প্রস্থের ঘরে রয়েছে দু’টি কক্ষ, একটি রান্নাঘর, টয়লেট ও সামনে খোলা বারান্দাসহ অন্যান্য সুবিধা রয়েছে এসব ঘরে।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মনসুর আলী জানান, উপজেলার ১নং রামগড় ইউনিয়নের হাতিরখেদা গ্রামে প্রথম পর্যায়ে ১০টি ঘর নির্মাণ করা হয়েছে। প্রত্যেক সুবিধাভোগীর নামে সরকারি ২ শতাংশ জমির বন্দোবস্ত দলিলসহ ঘরের চাবি আগামী ২৩ জানুয়ারীর হস্তান্তর করবে উপজেলা প্রশাসন। তিনি আরো জানান, এ প্রকল্পটির দ্বিতীয় পর্যায়ের ঘরও নির্মাণ শুরু হয়েছে উপজেলার ২নং পাতাছড়া ইউনিয়নে।

এ ব্যাপারে রামগড় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মু. উল্যাহ মারুফ জানান, আমাদের বরাদ্দকৃত ঘরের নির্মাণকাজ অত্যন্ত সুন্দরভাবে সম্পন্ন হয়েছে। প্রকৃত ভূমিহীন ও গৃহহীনদের ব্যাপক যাচাই বাচাই এই ঘর গুলো তাদের নামে বরাদ্ধ করা হয়। জেলা প্রশাসকের সার্বিক দিকনির্দেশনায় নির্মাণকাজ সঠিক ভাবে শেষ করতে পেরেছি এখন শুধু প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধন করলেই উপকারভোগীদের মাঝে ঘরগুলো বুঝিয়ে দেয়া হবে। যার ফলে অসহায় পরিবারগুলো মাথা গোঁজার ঠাঁই পাবে।

এ বিষয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বিশ্ব প্রদিপ কুমার কারবারী বলেন, সারাদেশের ন্যায় রামগড় উপজেলায়ও কেউ গৃহহীন থাকবে না। আওয়ামী লীগ সরকার যে উন্নয়নে বিশ্বাসী এটি তার আরেকটি বড় উদাহরণ। মুজিব শতবর্ষে গৃহহীনদের ঘর নির্মানের মাধ্যমে শেখ হাসিনার করা অঙ্গিকার বাস্তবায়ন করছেন।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়