ব্রিসবেনে লড়াই জমিয়ে তুলল ভারত

আগের সংবাদ

১১ লাখ অভিবাসীকে নাগরিকত্ব দিচ্ছে বাইডেন

পরের সংবাদ

বন্ধ চিনিকল খুলে দেয়ার দাবি বাম গণতান্ত্রিক জোটের

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৭, ২০২১ , ৭:৩৮ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১৭, ২০২১ , ৭:৩৮ অপরাহ্ণ

করোনাকালে গত বছরের জুলাই মাসে আওয়ামী সরকার পঞ্চাশ হাজার শ্রমিক ও লাখ লাখ পাটচাষির জীবন জীবিকার কথা বিবেচনায় না নিয়ে রাষ্ট্রায়ত্ত পঁচিশটি পাটকল এবং করোনাকালেই আখচাষি ও চিনিকল শ্রমিকদের অনিশ্চয়তায় ঠেলে দিয়ে সরকার রাষ্ট্রায়ত্ত পনেরটি চিনিকলের মধ্যে ছয়টি চিনিকল বন্ধ করে দেওয়ার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট। জোট মনে করে এসব চিনিকল বা পাটকলে লোকসানের ক্ষেত্রে শ্রমিকদের কোন দোষ নেই। সরকারী ভ’লনীতি, হস্তীসম প্রশাসন পুষতে এসব রাষ্ট্রায়াত্ব মিলগুলোতে লোকসান হয়েছে বলে মন্তব্য করে অবিলম্বে এসব বন্ধ ঘোষিত পাটকল ও চিনিকল খুলে দেবার দাবি করেছেন জোটের নেতারা। সেই সাথে করোনা ভ্যাক্সিন নিয়ে কোন বাণিজ্য নয়, বিনামূল্যে সকলকে ভ্যাক্সিন দেবার দাবিতে ২৫ জানুয়ারি স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শনে কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট।

রবিবার (১৭ জানুয়ারি) পল্টনস্থ মুক্তি ভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান হয়। এর আগে সরকারি নির্দেশে ছয়টি চিনিকল বন্ধ ঘোষণার প্রতিবাদে গত ১০-১২ জানুয়ারি বাম গণতান্ত্রিক জোটের প্রতিনিধিদল বন্ধ ছয়টিসহ নয় জেলায় দশটি চিনিকল ও আখচাষ এলাকায় ঝটিকা সফর করেন। প্রতিনিধিদলের পর্যবেক্ষণ তুলে ধরার জন্যই এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। সংবাদ সম্মেলনে জোট সমন্বয়ক ও সিপিবি’র প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন লিখিত বক্তব্য রাখেন। বক্তব্য রাখেন বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বজলুর রশীদ ফিরোজ, পরিচালনা করেন ইউসিএলবি’র নজরুল ইসলাম। উপস্থিত ছিলেন বাসদ (মার্কসবাদী)’র কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মানস নন্দী, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোশরেফা মিশু, গণসংহতি আন্দোলনের সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য বা”চু ভুইয়া, সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের সভাপতি হামিদুল হক।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, বিশ্বব্যাংক- আইএমএফ নির্দেশিত নয়া উদরবাদী পথে হাঁটছে সরকার। নয়া উদারবাদী নীতির কারণে বিরাষ্ট্রীয়করণ এখন সরকারের প্রধান লক্ষ্য। তথাকথিত মুক্তবাজার নীতির কারণে সরকার রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানসমূহ নামমাত্র দামে ব্যক্তিমালিকানায় দিয়ে দিচ্ছে। সরকার তাদের দলীয় লোক ও কর্পোরেট বন্ধুদের হাতে তুলে দিচ্ছে জনগণের সম্পত্তি। চিনি শিল্প রক্ষার জন্য বাম গণতান্ত্রিক জোটের পক্ষ থেকে পাঁচ দফা সুপারিশ তুলে ধরা হয়। সংবাদ সম্মেলনে চিনিকল, পাটকলসহ সকল রাষ্ট্রীয় সম্পদ বিরাষ্ট্রীয়করণের বিরুদ্ধে সকল বাম-প্রগতিশীল দেশপ্রেমিক গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল, ব্যক্তি, গোষ্ঠীকে ঐক্যবদ্ধ গণআন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানানো হয়।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়