আগর শিল্পের উদ্যোক্তাদের সঙ্গে বিসিকের মতবিনিময়

আগের সংবাদ

উদ্যোক্তাদের সহজ শর্তে ঋণ প্রদানের আহ্বান বিসিক চেয়ারম্যানের

পরের সংবাদ

বাঘার চাঞ্চল্যকর মোবাইল ব্যবসায়ীর হত্যার রহস্য উদঘাটন

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৬, ২০২১ , ৫:৫০ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১৬, ২০২১ , ৫:৫০ অপরাহ্ণ

রাজশাহী জেলার বাঘা উপজেলার মোবাইল ব্যবসায়ী মৃত জহুরুল ইসলাম হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে পুলিশ। নিহত ব্যাক্তি জেলার বাঘা উপজেলার মনিগ্রাম এলাকার রফিকুলের ছেলে।
শুক্রবার (১৫ জানুয়ারি) রাতে রাজশাহী জেলার পুলিশ সুপার এ বি এম মাসুদ হোসেনের (বিপিএম বার) নির্দেশনায় চারঘাট সার্কেল এর সহকারী পুলিশ সুপার জনাব নুরে আলমের নেতৃত্বে একটি টিম অভিযান চালিয়ে আসামি মাসুদ রানা (২৬) ও আমিনুল ইসলাম শাওন (৩০)কে তাদের নিজ নিজ বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে ।

 

গ্রেপ্তার মাসুদ রানা নাটোর জেলার লালপুর থানাধীন বালিতিতা ইসলামপুর গ্রামের হোসেনের ছেলে এবং আমিনুল ইসলাম শাওন নাটোর জেলার লালপুর থানাধীন কাজিপাড়ার মৃত সানাউল্লাহর ছেলে। পরে তাদের তথ্যের ভিত্তিতে রাজশাহী জেলার বাঘা থানাধীন জোতকাদিরপুর গ্রামের ফারুক হোসেনের ছেলে মেহেদী হাসান রকিকে (২৩) আটক করা হয়।

 

আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশ জানতে পারে, ঘটনার ৫ তারিখ সন্ধ্যাবেলা ভিকটিম জহুরুল আড়ানী হতে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হলে আসামি মাসুদ রানা ও আমিনুল ইসলাম শাওন তাদের পূর্ব পরিকল্পনা মোতাবেক মোবাইলের টাকা দিতে চেয়ে জহুরুলকে আম বাগানে ডেকে নিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যা করে।ওই সময় মৃত ব্যাক্তির নিকট থাকা ২৫হাজার টাকা ও বিভিন্ন কোম্পানির ২৮ টি মোবাইল নিয়ে যায়। জহুরুল মোবাইল বিক্রি করতে গিয়ে আর ফিরে না আসায় তার পরিবারের লোকজন মোবাইলে ভিকটিমের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয় এবং বিভিন্ন জায়গায় খোঁজাখুজি করতে থাকে। ০৬ তারিখ সকালে ভিকটিমের মৃতদেহ বাঘা থানাধীন তেথুলিয়া শিকদারপাড়া (কামারপাড়া) গ্রামস্থ আলহাজ্ব সাবাজ উদ্দিন পিতা-মৃত রমজান আলীর আম বাগানের মধ্যে পাওয়া গেলে ভিকটিম এর ভাই রুহুল আমিন বাদী হয়ে গত ৬ তারিখ অজ্ঞাতনামা আসামি করে বাঘা থানার মামলা করে।

ডিসি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়