ইচ্ছেমতো চলতেই উপাচার্য নিয়োগে অনীহা

আগের সংবাদ

আজকের সংবাদপত্র পর্যালোচনা

পরের সংবাদ

দিনাজপুর পৌরসভা নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত প্রার্থীরা

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১৩, ২০২১ , ১০:১২ পূর্বাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১৩, ২০২১ , ১০:১২ পূর্বাহ্ণ

দিনাজপুর পৌরসভা নির্বাচনে প্রার্থীদের প্রতিশ্রæতি আর প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত হয়ে উঠেছে পৌর এলাকা। পোস্টার ও ব্যানারে ছেয়ে গেছে শহরের অলি-গলি। বিগত ৫০ বছরেও আওয়ামী লীগ প্রার্থী এই পৌরসভায় জয়লাভ করতে পারেনি। এবারে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর জয়ী হয়ে ইতিহাস গড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।
যেদিকে তাকানো যায়, সেদিকেই চোখে পড়বে সারি সারি ঝুলানো পোস্টার। করোনা আর শীতকে পেছনে ফেলে এগিয়ে চলেছে সব প্রার্থীর সমর্থনে প্রচার-প্রচারণা। ভোটের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই বাড়ছে নির্বাচনী উত্তাপ। চায়ের স্টলসহ সব জায়গাতেই চলছে প্রার্থীদের নিয়ে আলোচনা আর জল্পনা-কল্পনা। মাইকিং ছাড়াও সোশ্যাল মিডিয়াতেও চালানো হচ্ছে অনেক প্রার্থীর সমর্থনে নির্বাচনী প্রচারণা। প্রার্থীরা স্থানীয় ভোটারদের সঙ্গে গণসংযোগ এবং হ্যান্ডবিল বিলি ছাড়াও পৌর এলাকার রাস্তাঘাট, ড্রেনসহ যাবতীয় উন্নয়নে পৌর নাগরিকদের দিচ্ছেন বিভিন্ন প্রতিশ্রæতি।
এবারে দিনাজপুর পৌরসভা ডিজিটাল নগরী গড়তে ও পরিবর্তনের অঙ্গীকার নিয়ে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ও জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ পারভেজ বলেছেন, পৌরবাসীকে সঙ্গে নিয়ে গড়ে তুলতে চাই একটি উন্নত আধুনিক, মডেল ও পরিচ্ছন্ন পৌরসভা। তিনি আরো বলেন, দেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে আওয়ামী লীগের কোনো প্রার্থী পৌর মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেননি। যার ফলে জেলার সার্বিক উন্নয়ন হলেও দিনাজপুর পৌর শহরে তেমন কোনো উন্নয়ন হয়নি। পৌরবাসী যে উন্নয়নের স্বপ্ন দেখেছে তা বিগত সময়ে যারা মেয়রের দায়িত্ব পেয়েছিলেন, তারা সে স্বপ্ন পূরণ করতে পারেননি। তাই এবার তিনি নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে জবাবদিহিতা এবং স্বচ্ছতার

পাশাপাশি বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান। তিনি বলেন, পৌরবাসী গত ২ বার এই পৌরসভায় বিএনপির প্রার্থীকে ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করেছিল। কিন্তু গত ১০ বছরে পৌরসভায় কোনো উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি। পৌরবাসীদের নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। শুধু মিথ্যাচার করে পৌরবাসীদের কাছ থেকে কৌশলে ভোট নেয়া হয়েছে। এবারো একইভাবে মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে বিএনপির প্রার্থী প্রচারণা চালাচ্ছেন। তিনি ভোটারদের সজাগ থেকে যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দিয়ে উন্নয়নের স্বার্থে জয়যুক্ত করার আহ্বান জানান।
এদিকে দিনাজপুর পৌরসভা নির্বাচনে ধানের শীষে ভোট দিয়ে পুনরায় নির্বাচিত করে পৌরসভার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করার আহ্বন জানিয়ে ভোট প্রার্থনা করেন বিএনপির দলীয় মেয়র প্রার্থী বর্তমান মেয়র ও বিএনপির সহসাংগঠনিক সম্পাদক (রংপুর) সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম। তিনি বলেন, দিনাজপুরের মানুষ এখনো বিএনপিকে ভালোবাসে। তাই ব্যালটের মাধ্যমে সব অপপ্রচারের জবাব দেবেন।
অন্যদিকে দিনাজপুর পৌর নির্বাচনে জাতীয় পার্টির সমর্থিত প্রার্থী ও জেলা জাপার সাধারণ সম্পাদক আহম্মেদ শফি রুবেল পথসভায় বলেছেন, মেয়র পদে নির্বাচিত হলে পৌরবাসীর চিকিৎসাসেবা নিশ্চিত করতে ২৪ ঘণ্টার হটলাইনসহ ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস চালু করবেন। পৌরবাসীকে আইন আদালত এবং পুলিশিসহ সব ধরনের হয়রানির অবসান ঘটাতে এবং ন্যায়বিচার পেতে বিনা পয়সায় সাধারণ নাগরিকদের জন্য পৌরসভার ১২টি ওয়ার্ডে স্থানীয়দের নিয়ে পৃথক সালিশ বোর্ড গঠন করবেন।
এছাড়া আরো ২ জন মেয়র প্রার্থী কমিউনিস্ট পার্টি, দিনাজপুরের সভাপতি এডভোকেট মেহেরুল ইসলাম ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের হাবিবুর রহমান রানাও প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। এভাবে বিভিন্ন মেয়র প্রার্থী বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোটারদের মন জয় করার চেষ্টা করছেন।
এছাড়া পৌর নির্বাচনে সাধারণ ১২টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে ৬৪ জন এবং সংরক্ষিত মহিলা আসনে ১৮ জন প্রার্থী ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ভোট প্রার্থনা করেন।
উল্লেখ্য, দ্বিতীয় ধাপে পৌর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে ১৬ জানুয়ারি। দিনাজপুর পৌরসভায় ভোটগ্রহণের জন্য ৪৯টি ভোট কেন্দ্রে ৩৭৩টি কক্ষ স্থাপন করা হয়েছে। ভোটার রয়েছে মোট ১ লাখ ৩০ হাজার ৮০৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৬৩ হাজার ৪৯ ও মহিলা ভোটার ৬৭ হাজার ৮১৫ জন।

ডিসি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়