নতুন বছরে মেসি ফিরেছেন স্বরূপে

আগের সংবাদ

প্রতিডোজ টিকায় ভারতের চেয়ে বাংলাদেশে ১০৯ টাকা বেশি রাখবে সিরাম

পরের সংবাদ

সাকিবের স্বপ্ন

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১২, ২০২১ , ১:০৬ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১২, ২০২১ , ১:০৬ অপরাহ্ণ

দেশের ক্রিকেটের প্রাণ বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। তিনি কবে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরবেন এই প্রতীক্ষার প্রহর গুনছিল ক্রিকেটপ্রেমীরা। অবশেষে ২০ জানুয়ারি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়েই আন্তর্জাতিক আঙিনায় প্রত্যাবর্তন করবেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। এখানেই শেষ নয়। নতুন বছরে ভক্তদের নতুন স্বপ্নের কথা জানিয়েছেন সাকিব। তিনি গত ২১ নভেম্বর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছোট্ট একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলেন। ওই ভিডিওতে সাকিব জানান দেন, তৈরি হচ্ছে তার স্বপ্নের ক্রিকেট একাডেমি।

জানা গেছে, বিশ্বমানের পূর্ণাঙ্গ সুযোগ সুবিধা নিয়ে দ্রুত চালু হতে যাচ্ছে তার ক্রিকেট একাডেমি। যার নাম দেয়া হবে ‘মাস্কো সাকিব ক্রিকেট একাডেমি’। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে ফেব্রুয়ারিতে এ একাডেমির উদ্বোধন করার কথা রয়েছে।

ঢাকা থেকে ১৬ কিলোমিটার দূরে রূপগঞ্জের কাঞ্চন ব্রিজের পাশে মাস্কো গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় বানানো হচ্ছে সাকিবের স্বপ্নের প্রকল্প। ১৬ বিঘা জমির ওপর তৈরি হচ্ছে সাকিবের একাডেমি। একাডেমির ভেতরের স্থাপত্যশৈলী, দৃষ্টিনন্দন কারুকাজ আর নয়নাভিরাম দৃশ্য যে কারো নজর কাড়বে। ১২ হাজার স্কয়ার ফুট জায়গায় রয়েছে সবুজ ঘেরা দৃষ্টিনন্দন মাঠ। মাঠের চারপাশে থাকবে ১৪টি প্র্যাকটিস উইকেট। ইনডোরে প্র্যাকটিস উইকেট পাঁচটি, সঙ্গে থাকবে ভার্চুয়াল উইকেটও। আরো আছে আধুনিক দ্বিতল জিমনেসিয়াম, মানসম্পন্ন তিনতলা রেস্টুরেন্ট, স্পোর্টস শপসহ অনেক কিছু। এমনকি সাকিবের একাডেমিতে ইনডোর ও আউটডোরে রাত-দিন অনুশীলন করা যাবে। কৃত্রিম আলোয় অনুশীলন করতে ফ্লাডলাইটেরও ব্যবস্থা করা হয়েছে। আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা রয়েছে একাডেমিটিতে। সবকিছু ঠিক থাকলে আর কয়েকদিন বাদেই পুরোদমে চালু হয়ে যাবে সাকিবের স্বপ্নের একাডেমি।

এছাড়া একাডেমিতে অনূর্ধ্ব-১০ থেকে অনূর্ধ্ব-১৯ পর্যায়ের ৪০ থেকে ৫০ জন ক্রিকেটার ব্যাচ বাই ব্যাচ প্রশিক্ষণ নিতে পারবেন। তাদের থাকার জন্য মাঠের একপাশে নির্মাণ করা হয়েছে আধুনিক ডরমেটরি। পুরো একাডেমির চারপাশ সাজানো হয়েছে বর্ণিল সাজে। চারপাশে করা ভার্টিক্যাল গার্ডেন। এই একডেমির হেড কোচের দায়িত্ব পাবেন কোচ সালাউদ্দিন। প্রয়োজনে আনা হবে বিদেশি কোচও। এছাড়া মাঠ ও উইকেট রক্ষণাবেক্ষণের জন্য বিসিবির প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কিউরেটর ও গ্রাউন্ডসম্যান নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

বর্তমানে সাবিক একাডেমির অবকাঠামো নির্মাণসহ মাঠের বিভিন্ন কাজ চলছে দ্রুতগতিতে। এমনকি মাস্কো গ্রুপের চেয়ারম্যান এম এ সবুর নিজে উপস্থিত থেকে প্রতিনিয়ত কাজের তদারকি করছেন। এর সঙ্গে সাকিবের অনুপ্রেরণা তো আছেই।

এ বিষয়ে এম এ সবুর বলেন, সাকিবের খুব ইচ্ছে ছিল একাডেমি করার। প্রায়ই সে আমাকে বলত, একটা ক্রিকেট একাডেমি করেন। বাংলাদেশের ভেতরে যেসব কোচ আছে, তাদের দিয়ে ট্রেনিং দেয়ানো হবে। তারপর দরকার হলে বিদেশ থেকেও কোচ আনা হবে। তাই এটি বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক মানের একাডেমি হবে।

মাস্কো গ্রুপের চেয়ারম্যান আরো বলেন, ক্রিকেটে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বমানের ক্রিকেটার তৈরির জন্যই এই একাডেমি। অত্যাধুনিক এ একাডেমি নির্মাণে মোটা অঙ্কের অর্থ খরচ হচ্ছে। তবে আমি অর্থ দিয়ে এই কাজ মূল্যায়ন করতে চাই না। একাডেমি নির্মাণ করতে টাকা কত লাগছে, সেটাকে প্রধান্য না দিয়ে আধুনিক ও আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন করতে যা যা করার প্রয়োজন, তা করা হচ্ছে।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়