দিলরুবার বাবার হার্টের রিংয়ের দ্বায়িত্ব নিল পুলিশ

আগের সংবাদ

শুরুতেই ইমনের স্বপ্নভঙ্গ

পরের সংবাদ

ফিল্ডিং নিয়ে ভাবছেন কুক

প্রকাশিত: জানুয়ারি ১১, ২০২১ , ৮:৫৫ অপরাহ্ণ আপডেট: জানুয়ারি ১১, ২০২১ , ৮:৫৫ অপরাহ্ণ

দরজায় কড়া নাড়ছে বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ। ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে ২০ জানুয়ারি প্রথম ওয়ানডে ম্যাচের মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরবে তামিম-সাকিবরা। যেহেতু ঘরের মাঠে খেলা তাই টাইগারদের প্রত্যাশা একটু বেশি। তাই উইন্ডিজের বিপক্ষে খেলতে গতপরশু থেকে অনুশীলন শুরু করেছেন প্রাথমিক স্কোয়াডে থাকা বেশিরভাগ ক্রিকেটার। নিজেদের সেরাটা খেলতে অনুশীলনে ঘাম ঝড়াচ্ছেন লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। আজও তার ব্যতিক্রম হয়নি। এদিন বেশ ফুরফুরে মেজাজে ব্যাটিং-বোলিং অনুশীলন করেছেন লিটন-মোস্তাফিজরা। কিন্তু ফিল্ডিং নিয়ে ভাবছেন টাইগাররা। যেহেতু করোনার কারণে কোনো দলের বিপক্ষে মাঠে নামা হয়নি তাই ফিল্ডিং নিয়ে তাদের ভাবনাটা যুক্তি সঙ্গত। তাই আজ ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুকের অধীনে নিজদের ঝালিয়ে নিয়েছেন টাইগাররা।

শিষ্যদের এমন কঠোর ফিল্ডিং অনুশীলন দেখে মুগ্ধ হয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার এ কোচ। হোম অব ক্রিকেট মিরপুরে আজ অনুশীলনের ফাকে এ কথা বলেন তিনি। কুক আরো বলেন, শুধু ওয়ানডে বা টি-টোয়েন্টি নয় টেস্টেও দুদলের পার্থক্য গড়ে দেয় ফিল্ডিং। এছাড়া টাইগার দলের পেসার তাসকিন আহমেদ অনুশীলনের সময় চোট পেয়েছেন। এই চোটের কারণে তার ওয়ানডে সিরিজে খেলা নিয়ে শঙ্কা রয়েছে।

এদিন সকালে ঝলমলে রোদ গায়ে মেখে অনুশীলন শুরু করেন মুশফিক-লিটনরা। সকাল দশটায় ৩ ঘণ্টার প্রস্তুতির শুরুটা হয়েছে ওয়ার্মআপ দিয়ে। আধঘণ্টা ওয়ার্মআপ শেষে শুরু হয় ক্রিকেটারদের নেট সেশন। হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গো, স্পিন বোলিং কোচ সোহেল ইসলাম, ট্রেনার নিক লি ও ফিজিও জুলিয়ান ক্যালোফাতের উপস্থিতিতে দেড়ঘণ্টা ব্যাটে বলে ঘাম ঝরান টাইগাররা। মুশফিক-মোস্তাফিজরা যখন ইনডোরে ব্যাটিং-বোলিং অনুশীলনে ব্যস্ত, ঠিক তখন সাকিব-তামিমরা মূল মাঠে ফিল্ডিং অনুশীলন করেছেন কোচ রায়ান কুকের তত্ত্বাবধানে।

অনুশীলনের ফাঁকে কুক বলেন, আমার মনে হয় ফিল্ডিং সাদা বল কিংবা লাল বল দুই ক্ষেত্রেই পার্থক্য গড়ে দেয়। অবশ্যই ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টিতে এটি বেশি গুরুত্বপূর্ণ মনে হয়। কিন্তু তার মানে এই না, টেস্টে ফিল্ডিং কম গুরুত্বপূর্ণ। ফিল্ডিং খেলার সব দিক বিবেচনায় খুবই গুরুত্বপূর্ণ। শিষ্যদের নিয়ে তিনি আরো বলেন, আমার মনে হয় ওদের মধ্যে দারুন এনার্জি আছে, তারা ফিল্ডিং নিয়ে যথেষ্ট পরিশ্রম করছে। এমনকি অতিরিক্ত কাজ করতে চাচ্ছে। দারুণ চেষ্টা করছে যা আমি খুব পছন্দ করি। তাদের টেকনিক নিয়ে অনেক কাজ করতে হবে, বিশেষ করে ক্যাচিং এবং রাউন্ড ফিল্ডিংয়ের কিছু দিক নিয়ে। কিন্তু সাধারণত তাদের থ্রোয়িং বেশ ভালো। তাই আমি আশা করছি, তাদের উন্নতি করার যে উৎসাহ তা তাদের আগামীতে আরো উন্নতি করতে সাহায্য করবে।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়