শেরপুরে ঢাকাগামী বাস চলাচল বন্ধ, দুর্ভোগে যাত্রীরা

আগের সংবাদ

৩০ ডিসেম্বর গণতন্ত্রের বিজয় দিবস পালন করবে আ.লীগ

পরের সংবাদ

রাজশাহীর খেজুর গুড় বিক্রি হচ্ছে জেলায় জেলায়

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২৫, ২০২০ , ৫:১০ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ২৫, ২০২০ , ৫:১১ অপরাহ্ণ

রাজশাহীর খেজুরের গুড় দেশের রাজধানী ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় বিক্রি হচ্ছে। গাছি ও ব্যবসায়ীরা উভয়ে গুড় প্রস্তুত ও সাধারণদের গুড়ের চাহিদা মেটাতে ব্যস্ত সময় পার করছে। মূলত শীতের মৌসুমে খেজুর চাষিরা খেজুর গাছের রস সংগ্রহের জন্য গাছের পরিচর্যা শুরু করে থাকেন। খেজুর রস মিশ্রণে নানা জাতের পিঠা ও পায়েস তৈরির ধুম পড়ে প্রত্যন্ত গ্রামগঞ্জে।

শীতের যত তীব্রতা বাড়ে খেজুরের রসের স্বাদ ও গন্ধ দুটিই মুখরুচি খাবারে পরিণত হয়। পাখি ডাকা ভোরের আগেই গাছিরা তাদের গাছের রস নামাতে শুরু করেন। গ্রামের পরিবারের ছোট বড় সবাই খেজুরের রস থেকে গুড় প্রস্তুত করতে সহযোগিতায় এগিয়ে আসে। সম্প্রতি রাজশাহীর চারঘাট, বাঘা ও উত্তর বঙ্গের বৃহত্তম বানেশ্বর হাটে জমে উঠেছে খেজুর গুড়ের রমরমা কেনাবেচা। সচারচর ৮০ থেকে ৯০ টাকা দরে ১ কেজি গুড় বিক্রয় হচ্ছে। তবে উৎকৃষ্ট গুড় কিনতে হলে গুনতে হবে ১০০ টাকা দরে ১ কেজি।

গাছি ও ব্যবসায়ীরা বলেন, খেজুর গাছ কেউ চাষ করে না। এছাড়া এই ফলনে তেমন লাভজনক নয়। শুধু বাংলার পিঠা খাওয়ার ঐতিহ্য ধরে রাখতেই তাদের এই আয়োজন। কারণে ও অকারণে খেজুর গাছগুলো কেটে ফেলা হচ্ছে। অপরদিকে সরকারের কোন ধরনের প্রণোদনা না থাকার কারণে প্রতিনিয়ত আগ্রহ হারাচ্ছে খেজুর চাষিরা।

জেলার ৯টি উপজেলায় খেজুর গাছ থাকেলও চারঘাটে ২৫ হাজার ও বাঘা উপজেলায় ৭০ হাজার গাছর রয়েছে। এই উপজেলার গাছিরা বেশ আনন্দের সঙ্গে খেজুর রস সংগ্রহ ও গুড় প্রস্তুত করছে। প্রস্তুতকৃত গুড় জেলার বিভন্ন হাট ও বাজারে পাইকার দরে বিক্রয় করা হচ্ছে। এই ফলনে আলাদা করে সরকারের কোন বরাদ্দ নেই।

তবে কৃষি দপ্তর কৃষকদের বিভিন্ন পরামর্শ ও সহযোগিতা করছেন বলে জানান কৃষিবিদ লুৎফুন নাহার ও শফিউল্লাহ সুলতানসহ বিভিন্ন উপজেলা কৃষিবিদ।

রাজশাহী জেলায় ৯ হাজার ৫ শত ৯৩ হেক্ট জমিতে ১২ লক্ষ ৮ হাজার ২৫টি গাছ রয়েছে। যা থেকে প্রতি বছর ৬ হাজার ৮৪৩ মেট্রিকটন খেজুরের গুড় উৎপাদন হয়। জেলার চাহিদা মেটানোসহ বিভিন্ন জেলায় বিক্রি করা হয় বলে জানান রাজশাহী কৃষি দপ্তরের উপ-পরিচালক শামছুল হক।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়