করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের জন্য প্রণোদনা তৈরির নির্দেশ

আগের সংবাদ

মিথ্যা রাজনৈতিক পরিচয়ে ফায়দা হাসিলই তার কাজ

পরের সংবাদ

ঘোড়ার মাংস বিক্রি করে জেলে গেলেন ২ জন

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২৩, ২০২০ , ৯:১৩ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ২৩, ২০২০ , ৯:১৩ অপরাহ্ণ

পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় ক্ষতিকর ঘোড়ার মাংস বিক্রি করার অপরাধে সানাউল্লাহ (৩২) ও হামিদুর রহমান (৩৩) নামে দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে বোদা থানা পুলিশ। বুধবার (২৩ ডিসেম্বর) দুপুরে আটক ওই দুই ব্যক্তিকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার উপজেলার কাজলদিঘী কালিয়াগঞ্জ ইউনিয়নের চৌধুরীর হাটে সন্ধ্যায় একটি ঘোড়া জবাই করে মাংস বিক্রির সময় ৩৫ কেজি মাংস সহ তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

বুধবার বোদা থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) লিপন কুমার বসাক বাদী হয়ে সানাউল্লাহ (৩২) ও হামিদুর রহমান (৩৩) নামে দুই ব্যক্তি সহ আরো ৩/৪ জনের নামে ক্ষতিকর মাংস বিক্রির অপরাধে মামলা দায়ের করেন। পরে আটক মাংস পরীক্ষার জন্য বোদা উপজেলা প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ে পাঠিয়েছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় একটি ঘোড়া বাজারে এনে জবাই করে ৫০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করছিল সানাউল্লাহ ও হামিদুর রহমান। এমন ঘটনায় স্থানীয়দের মনে বিরুপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হলে তারা বোদা থানা পুলিশে খবর দেয়। এ সময় তারা ১-২ কেজি ঘোড়ার মাংস তারা বিক্রি করলেও খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে বাকি মাংসসহ তাদের দুইজনকে আটক করে।

বোদা থানা পুলিশ জানায়, উপজেলার কাজলদিঘী কালিয়াগঞ্জ ইউনিয়নের চৌধুরীর হাটে সন্ধ্যায় ঘোড়া জবাই করে মাংস বিক্রি হচ্ছে এমন খবরে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় ৩৫ কেজি ঘোড়ার মাংস সহ বোদা থানা পুলিশ সানাউল্লাহ ও হামিদুর রহমান নামের দুই ব্যক্তিকে ঘোড়ার মাংসসহ আটক করে। এসময় তাদের সহযোগী ৩-৪ জন পালিয়ে যায়। আটক ঘোড়ার মাংসের বাজার মূল্য ধরা হয়েছে ১৭ হাজার ৫০০ টাকা।

বোদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু সাঈদ চৌধুরী জানান, ক্ষতিকর মাংস বিক্রির অপরাধে তাদের বিরুদ্ধে বোদা থানায় মামলা দায়ের করে পুলিশ। এ ঘটনায় আটক ২ জনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়