হকিতে নৌবাহিনীর জয়যাত্রা অব্যাহত

আগের সংবাদ

নেই রাস্তা, তবুও ব্রিজ

পরের সংবাদ

অপরাধ ঠেকাতে মহাসড়কের পাশের ঝোঁপঝাড় পরিস্কার

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২০, ২০২০ , ৭:২৩ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ২০, ২০২০ , ৯:১৮ অপরাহ্ণ

ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়কের দু’পাশে অপ্রয়োজনীয় গাছপালা গজিয়ে উঁচু জঙ্গলের সৃষ্টি হয়েছে। মহাসড়কে ঝোপঝাড় থাকায় রাতের বেলায় প্রায়ই ঘটে ডাকাতির মতো ঘটনা। পথচারী থাকে নিরাপত্তার ঝঁকিতে। পরিবহন চালকসহ পথচারীদের মধ্যে বিরাজ করে আতঙ্ক।

এমন অবস্থা ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের রঘুনাথপুর হইতে কেয়াবাগান সড়ক পর্যন্ত। নিরাপদ সড়কের পরিবেশ সৃষ্টিতে অপ্রয়োজনীয় গাছ ঝোঁপঝাড় কাটার উদ্যোগ নিয়েছেন ঝিনাইদহ জেলা পরিষদ। রবিবার দুপুর পর্যন্ত এ কাজে সহযোগিতা করেন জেলা পরিষদের সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন সোহেল।। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বারোবাজার হাইওয়ে পুলিশের ওসি মেসবাহ উদ্দীন।

জাহাঙ্গীর হোসেন সোহেল জানান, মহাসড়কের পাশের এ জঙ্গলে রাতে ডাকাতরা বসে থাকলে বোঝার উপায় থাকে না। যে কারণে প্রায়ই ঘটে ডাকাতির ঘটনা। ইতোমধ্যে প্রায় ১ কিলোমিটারের মতো জঙ্গল পরিষ্কার করা হয়েছে। বাকিটাও তাড়াতাড়ি শেষ হবে।

বারো বাজার হাইওয়ে পুলিশের ওসি মেসবাহ উদ্দীন বলেন, রাতের বেলায় ডাকাতি ঠেকাতে প্রশাসনের সদস্যরা আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন। অনেক সময় রাতের টহল পুলিশেরও নিরাপত্তা থাকে না। ফলে মহাসড়কের দু’পাশের জঙ্গল কেটে পরিষ্কার করার একটা ভালো উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

কালীগঞ্জ (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি

ঝিনাইদহ-যশোর মহাসড়কের দু’পাশে অপ্রয়োজনীয় গাছপালা গজিয়ে উঁচু জঙ্গলের সৃষ্টি হয়েছে। যা রাতের বেলায় ডাকাতসহ দুষ্টু প্রকৃতির মানুষের কাজে সহায়ক হয়ে উঠে। মহাসড়কে ঝোপঝাড় থাকায় রাতের বেলায় প্রায়ই ঘটে ডাকাতির মতো ঘটনা। পথচারী থাকে নিরাপত্তার ঝঁকিতে। পরিবহন চালকসহ পথচারীদের মধ্যে বিরাজ করে আতঙ্ক।

এমন অবস্থা ঝিনাইদহের কালীগঞ্জের রঘুনাথপুর হইতে কেয়াবাগান সড়ক পর্যন্ত। নিরাপদ সড়কের পরিবেশ সৃষ্টিতে অপ্রয়োজনীয় গাছ ঝোঁপঝাড় কাটার উদ্যোগ নিয়েছেন ঝিনাইদহ জেলা পরিষদ। রবিবার দুপুর পর্যন্ত এ কাজে সহযোগিতা করেন জেলা পরিষদের সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন সোহেল।। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বারোবাজার হাইওয়ে পুলিশের ওসি মেসবাহ উদ্দীন।

জাহাঙ্গীর হোসেন সোহেল জানান, মহাসড়কের পাশের এ জঙ্গলে রাতে ডাকাতরা বসে থাকলে বোঝার উপায় থাকে না। যে কারণে প্রায়ই ঘটে ডাকাতির ঘটনা। ইতোমধ্যে প্রায় ১ কিলোমিটারের মতো জঙ্গল পরিষ্কার করা হয়েছে। বাকিটাও তাড়াতাড়ি শেষ হবে।

বারো বাজার হাইওয়ে পুলিশের ওসি মেসবাহ উদ্দীন বলেন, রাতের বেলায় ডাকাতি ঠেকাতে প্রশাসনের সদস্যরা আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন। অনেক সময় রাতের টহল পুলিশেরও নিরাপত্তা থাকে না। ফলে মহাসড়কের দু’পাশের জঙ্গল কেটে পরিষ্কার করার একটা ভালো উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়