কুমিল্লা টাউন হল নিয়ে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের গণশুনানি

আগের সংবাদ

নিউজ ফ্ল্যাশ (বিকাল)

পরের সংবাদ

ইসির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে রাষ্ট্রপতিকে ৪২ নাগরিকের চিঠি

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১৯, ২০২০ , ৪:৩২ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ১৯, ২০২০ , ৪:৩২ অপরাহ্ণ

বিশিষ্ট আইনজীবী ড. শাহদীন মালিক বলেছেন, দেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা চরম সংকটে আছে, দেশের গণতন্ত্র সংকটে আছে, নির্বাচনী ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। দেশে নির্বাচন নেই, নির্বাচন-নির্বাচন একটা খেলা হয় এখন। দেশের সংকটময় পরিস্থিতিতে রাষ্ট্রপতি সবার অভিভাবক, তাই আমাদের পক্ষ থেকে তার কাছে আমরা নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম অভিযোগ তুলে ধরেছি। অভিভাবক হিসেবে দেশের ভালোর জন্য, গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার জন্য তিনি যা ভালো মনে করেন তা করবেন।

শনিবার (১৯ ডিসেম্বর) প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নুরুল হুদার নেতৃত্বাধীন নির্বাচন কমিশনের অসদাচরণ ও আর্থিক অনিয়মের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে দেশের বিশিষ্ট ৪২ নাগরিকের রাষ্ট্রপতি বরাবর আবেদনের বিষয়ে সাংবাদিকদের অবহিত করতে অনলাইন সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

ড. শাহদীন মালিক বলেন, যেকোনো অভিযোগ তদন্তে ক্ষমতাবান প্রতিষ্ঠান থাকে। সাংবিধানিক পদে যারা অধিষ্ঠিত তাদের বিরুদ্ধে যখন গুরুতর অভিযোগ আসে তখন তা তদন্তের ক্ষমতা একমাত্র সুপ্রিম কোর্ট জুডিশিয়াল কাউন্সিলের। সেই প্রেক্ষিতে রাষ্ট্রপতির কাছে আবেদন করেছি। একমাত্র রাষ্ট্রপতি সুপ্রিম কোর্ট জুডিশিয়ালকে তদন্তের নির্দেশ দিতে পারেন। এ কারণে আমরা রাষ্ট্রপতির কাছে আবেদন করেছি।

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেছেন, কেএম নুরুল হুদার নেতৃত্বাধীন নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে গুরুতর অসদাচরণের অভিযোগ ওঠায় তাদের স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করা উচিত। তিনি বলেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশন সরাসরি আর্থিক অনিয়ম, দুর্নীতি ও অসদাচরণে জড়িয়ে পড়েছে, যা আগে কখনো কোনো কমিশন করেনি। এমনকি আগে এ রকম দৃষ্টান্ত দেখা যায়নি। যা আগের সমস্ত রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। আমার মতে নির্বাচন কমিশন একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান। কমিশনাররা প্রতিষ্ঠানটির যে গুরুত্ব, তার অবমাননা করছেন। কমিশনকে কলঙ্কিত করেছেন।

সুশাসনের জন্য নাগরিক-সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, কমিশন বিজয়ের মাসে মুক্তিযোদ্ধাদের রক্তের সঙ্গে বেঈমানি করেছে। পাশাপাশি বঙ্গবন্ধুর সঙ্গেও বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। অন লাইনে যুক্ত হয়ে অন্যান্য বক্তারা সিইসিসহ কমিশনারদের স্বেচ্ছায় পদত্যাগের আহ্বান জানান। তারা রাষ্ট্রপতিকে এ দুর্নীতি পরায়ন ও অযোগ্য কমিশনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবার আহ্বান জানান।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়