৬১ পৌরসভায় নৌকার টিকিট পেলেন যারা

আগের সংবাদ

আ.লীগের মনোনয়ন পেলেন সেলিম রেজা

পরের সংবাদ

পৌরসভা নির্বাচন

প্রচারণায় আ. লীগের প্রার্থীরা, মাঠে নেই বিএনপি-জাপা

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১৮, ২০২০ , ৯:২০ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ১৮, ২০২০ , ৯:২৪ অপরাহ্ণ

সারাদেশে পৌরসভা নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে ৬৪টি পৌরসভার মধ্যে বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আগাম প্রচার প্রচারণায় নেমেছেন সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীরা। এ নিয়ে সর্বত্র আলোচনা চলছে- কে হবে সম্ভাব্য মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থী। ইতোমধ্যে সম্ভাব্য অনেক প্রার্থী নানা রংয়ের ব্যানার পোস্টারের মাধ্যমে তাদের প্রার্থিতা জানান দিতে ভোটারদের দৃষ্টি আকর্ষণ অব্যাহত রেখেছেন তারা।

দ্বিতীয় বারের মতো দলীয় প্রতীকে স্থানীয় সরকার নির্বাচন অনুষ্ঠানে সম্ভাব্য প্রার্থীরা প্রচার- প্রচারণার পাশাপাশি স্ব স্ব দলীয় মনোনয়ন পেতে শীর্ষ পর্যায়ে লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন। আসন্ন নির্বাচনকে সামনে রেখে তৎপর সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীরা হলেন- পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি বর্তমান ও তিন বারের নির্বাচিত মেয়র এডভোকেট মনিরুল হক তালুকদার, মোরেলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ সভাপতি ও এস এম কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মো. শাহাবুদ্দিন তালুকদার, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট তাজিনুর রহমান পলাশ, দুই বারের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা মহিলা লীগের সভাপতি আজমির নাহার। বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে পৌর বিএনপির আহ্বায়ক আঃ মজিদ জব্বারের নাম শোনা গেলেও নাম শোনা গেলেও মাঠে তার কোনো তৎপরতা কারো চোখে পড়ছে না। মাঠে নেই জাতীয় পার্টি ও।

বর্তমান মেয়র পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট মনিরুল হক তালুকদার ২০০৪ সালের ৪ মে পৌরসভার প্রথম নির্বাচনে আওয়ামীলীগ সমর্থিত প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত হলেও পরবর্তীতে নানা কারণে স্থানীয় প্রয়াত এমপি ডাক্তার মোজাম্মেল হোসেনের সঙ্গে বিরোধ সৃষ্টি হওয়ায় ২০১১ সালের ১৩ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত নির্বাচনে তিনি দলীয় সমর্থন পেতে ব্যর্থ হন । ওই নির্বাচনে সাবেক এমপি ডাক্তার মোজাম্মেল হোসেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হককে দল সমর্থিত মেয়র প্রার্থী করেন। কিন্তু ওই নির্বাচনে বিপুল ভোটে মেয়র নির্বাচিত হন তৎকালীন পৌর আওয়ামী লীগ আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট মনিরুল হক তালুকদার। তিনি তার উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ-এই প্রচারণায় ভোট প্রার্থনা করছেন।

পৌর নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী হিসেবে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ সভাপতি ও সদর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মোঃ শাহাবুদ্দিন তালুকদারও দলীয় প্রার্থী হিসেবে প্রচার প্রচারণা চালিয়ে আসছেন। তিনি বর্তমান পৌরসভার বিভিন্ন সমস্যার সমাধান এবং ব্যাপক উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন। উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট তাজিনুর রহমান পলাশও তার অতীত ক্লিন ইমেজ ও তার পক্ষে যুবলীগের শক্ত অবস্থান ও সমর্থনের বদৌলতে এবং বর্তমান এমপি এডভোকেট আমিরুল আলম মিলনের কাছের লোক হওয়ায় তিনিও দলীয় মনোনয়ন পেতে তৎপর। উন্নয়নের জন্য পরিবর্তন দরকার এ প্রতিশ্রুতি নিয়ে তিনি মাঠে কাজ করছেন।

এদিকে উপজেলার দুই বারের সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমিন নাহারও তার অতীত কর্মকান্ড এবং উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগকে একটি শক্তিশালী সংগঠনে পরিণত করার পেছনে তার পরিশ্রমের কথা উল্লেখ করে একটি উন্নত পৌরসভা গঠনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন। অপরদিকে , বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে মোরেলগঞ্জে বিএনপি মাঠে-ময়দানে না থাকলেও বিগত উপজেলা ও পৌর নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে। তবে এবারে তাদের কোনো তৎপরতা দেখা যাচ্ছে না। আগামী নির্বাচনকে সামনে রেখে প্রকাশ্যে তাদের কোন প্রচার-প্রচারণা না থাকলেও ভেতরে ভেতরে তাদের নির্বাচনী প্রস্তুতি চলছে এবং প্রকাশ্যে ঘোষণা না দিলেও দলীয় মনোনয়ন দিতে দলের পক্ষে কাজ চলছে বলে একটি নির্ভরযোগ্য সূত্র হতে জানা যায় । এছাড়া গত নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হিসেবে জাতীয় পার্টির আহবায়ক কেন্দ্রীয় নেতা সোমনাথ দে মাঠে থেকে নানা কৌশলে প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে গেলেও এবার জাতীয় পার্টি পার্টির পক্ষ থেকে কোনো তৎপরতা নেই ।

অপরদিকে, পৌরসভার কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে সম্ভাব্য প্রার্থীরা যে যার মতো করে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। পোস্টার ব্যানারে দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা সহ ভোটারদের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়