ধনী দেশগুলোই কিনে নিচ্ছে সব ভ্যাকসিন

আগের সংবাদ

নিউজ ফ্ল্যাশ

পরের সংবাদ

দীর্ঘদিন ভারতে ছিলেন ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে সেই হামলাকারী

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৯, ২০২০ , ৩:৫৯ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ৯, ২০২০ , ৪:০২ অপরাহ্ণ

নিজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে আলোচিত সন্ত্রাসী হামলার বিস্তারিত একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। সম্প্রতি প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে,হামলাকারী ব্রেন্টন ট্যারেন্ট নিজের দেশে হামলা চালানোর আগে বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে ভ্রমণ করেছেন। এর মধ্যে তিনি সবচেয়ে বেশি সময় কাটিয়েছেন ভারতে।

রয়েল কমিশন অব ইনকোয়ারির ৭৯২ পাতার রিপোর্টে বলা হয়েছে, স্কুল ছাড়ার পর ৩০ বছর বয়সী ওই হামলাকারী স্থানীয় একটি জিমের ব্যক্তিগত ট্রেনার হিসেবে কাজ শুরু করেন। ২০১২ সালে শরীরে চোট পাওয়ার আগে পর্যন্ত এটাই ছিল তার কাজ।

এরপর আর কোনও বাঁধাধরা চাকরি করেননি ব্রেন্টন ট্যারেন্ট। বাবার কাছ থেকে নেওয়া অর্থ বিভিন্ন জায়গায় বিনিয়োগ করে আয়ের পথ তৈরি করেন তিনি। ২০১৩ সালে তিনি প্রথমবার অস্ট্রেলিয়ায় ভ্রমণ করেন। তার আগে ওই বছরই তিনি পুরো নিউজিল্যান্ড ঘুরে বেড়িয়েছেন। ২০১৪ সাল থেকে ২০১৭ পর্যন্ত বিশ্ব ভ্রমণে বের হন এই হামলাকারী।

ওই প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, ২০১৪ সালের ১৫ এপ্রিল থেকে ২০১৭ সালের ১৭ আগস্টের মধ্যে সব জায়গায় একাই ঘুরে বেরিয়েছেন ব্রেন্টন ট্যারেন্ট। তবে এর ব্যতিক্রম ছিল উত্তর কোরিয়া। তিনি একটি টিমের সঙ্গে কিম জং উনের দেশে সফর করেছেন।

ক্রাইস্টচার্চে হামলার প্রায় ১৮ মাস পর প্রকাশিত এই রিপোর্টে জানা গেছে, ব্রেন্টন ট্যারেন্ট তিন মাস ভারতেই কাটিয়েছেন। ২০১৫ সালের ২১ নভেম্বর থেকে ২০১৬ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত তিনি ভারতে ছিলেন। এছাড়াও চীন, জাপান, রাশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়াতেও ঘুরে বেড়িয়েছেন তিনি। এক মাস বা তারও বেশি সময় ধরে তিনি এসব দেশে সফর করেছেন। তবে তিন মাসের ভ্রমণে তিনি ভারতের কোথায় কোথায় গেছেন বা কি করেছেন সে সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য জানা যায়নি।

ক্রাইস্টচার্চে ওই হামলার কারণে বিশ্বের সবচেয়ে শান্তিপূর্ণ দেশগুলোর অন্যতম নিউজিল্যান্ড যেন বড় ধাক্কা খেয়েছিল। ওই অনাকাঙ্ক্ষিত সন্ত্রাসী হামলা পুরো দেশকে নাড়িয়ে দিয়েছে। ব্রেন্টন ট্যারেন্টের বন্দুকের এলোপাথাড়ি গুলিতে নিহত হয় ৫১ ‍মুসল্লি ও বহু মানুষ আহত হয়।

এমআই

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়