উলিপুর পৌর নির্বাচনে আ’লীগের প্রার্থী বাছাইয়ে মিঠু প্রথম

আগের সংবাদ

মুক্তিযোদ্ধার কবর এখন ময়লার ভাগাড়!

পরের সংবাদ

সরকারি ঘর পেয়ে খুশি ৯ ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর নারী

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৮, ২০২০ , ১১:১৭ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ৮, ২০২০ , ১১:১৭ অপরাহ্ণ

শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্মিত মহিলা মার্কেটে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ঘর পেয়ে খুশি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ৯ নারী। এসব নারীরা হচ্ছেন, বাকাকুড়া গ্রামের স্বরসতী কোচ, আরতি রানী কোচ, শ্রীমতি কোচ, জোসনা কোচ, শ্রীমতি সুভ্রা কোচ, সুফলা কোচ, চাম্পা ভূঁইয়া কোচ, মৌসুমী রানী কোচ ও পূর্ণিমা কোচ।

জানা যায়, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর উপজেলার কাংশা ইউনিয়নের বাকাকুড়া গ্রামে ওই কর্মহীন ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর আদিবাসী নারীদের ব্যবসা করে স্বাবলম্বী হওয়ার লক্ষ্যে ওই মহিলা মার্কেট নির্মাণ করে। ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের প্রায় ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ঠিকাদারের মাধ্যমে ২০১৭ সালে মার্কেটটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ইতোমধ্যেই মার্কেট নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে ওই ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর নারীদের মধ্যে। ওই নারীরা ইতোমধ্যেই ব্যবসা বাণিজ্য শুরু করেছেন।

কথা হয় ওই ব্যবসায়ী নারীদের সাথে। মহিলা মার্কেটে ব্যবসা করার লক্ষ্যে সরকারি ঘর পেয়ে তারা সবাই খুশি। তবে অর্থনৈতিক দৈন্যতার কারণে পুরোপুরিভাবে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারছেন না বলে জানান, ওই ব্যবসায়ী নারীরা।

ওই নারী ব্যবসায়ীদের দাবি, সরকার তাদের ব্যবসা করার জন্য ঘর দিয়েছেন। কিন্তু পূঁজির ব্যবস্থা করে দেননি। তাদের দারি, সরকারি কোনো ব্যাংক থেকে তাদের ব্যবসা করার জন্য ঋণ দেওয়া হলে তারা ব্যবসা করে স্বাবলম্বী হতে পারবেন।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর এলজিইডি’র শেরপুরের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ সামসুদ্দিন আহাম্মেদ বলেন, ব্যবসায়ীদের পূঁজির ব্যাপারে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নিতে পারে। এ বিষয়ে তাদের কিছু করার নেই।

এমআই

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়