ঢাকা-শিলিগুড়ি যাত্রীবাহী ট্রেন চলবে আগামী মার্চে

আগের সংবাদ

হবিগঞ্জে বাস-অটোরিকশা সংঘর্ষে ৬ প্রাণহানি

পরের সংবাদ

পৌরসভা নির্বাচনী হালচাল

সম্ভাব্য প্রার্থীদের প্রচারে মুখর ঘোড়াশাল

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৭, ২০২০ , ৫:৫৯ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ৭, ২০২০ , ৮:১৩ অপরাহ্ণ

আসছে নতুন বছরের তৃতীয় কিংবা চতুর্থ ধাপে নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ঘোড়াশাল পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এই নির্বাচন সামনে রেখে সম্ভাব্য মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা প্রতিনিয়ত ছুটছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। ভোটারদের সর্মথন নিতে সকাল-সন্ধা পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের মহল্লা গুলোতে প্রার্থীরা নির্বাচিত হলে কি করবেন, সে বিষয়ে তুলে ধরছেন বিভিন্ন উন্নয়ন পরিকল্পনা। অপরদিকে দলীয় মনোনয়ন পেতে কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে প্রার্থীরা দৌঁড়ঝাপ চালিয়ে যাচ্ছেন।

এ দিকে বিগত বছরে পৌর এলাকায় উন্নয়নে কে কি ভূমিকা রেখেছে তার হিসাব-নিকাশ কষতে শুরু করেছেন ভোটাররা। তারা মনে করছেন, সুষ্ঠ ভোট হলে, কোন প্রার্থী নির্বাচিত করলে! জনগণের উন্নয়ন হবে,জনগণ পৌরসভার কাছ থেকে নাগরিক সুবিধা পাবে, এসব বিষয়ে চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে আলোচনায় রয়েছেন,বর্তমান মেয়র ঘোড়াশাল পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মো: শরীফুল হক, তৃণমূল থেকে উঠে আসা উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও নরসিংদী চেম্বার অব কর্মাসের পরিচালক আল মুজাহিদ হোসেন তুষার,পলাশ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ঘোড়াশাল ইউনিয়নের সাবেক পৌর প্রশাসক শেখ মো. ইলিয়াছ। অপরদীকে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সম্ভাব্য তালিকায় রয়েছেন, পলাশ উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও ঘোড়াশাল পৌর বিএনপির সিনিয়রসহ-সভাপতি আলম মোল্লা,ঘোড়াশাল পৌর বিএনপির ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি নাজমুল হোসেন ভূঁইয়া সোহেল, বিএনপির পলাশ উপজেলার সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর সাইফুল হক।

বর্তমান মেয়র শরীফুল হক জানান, আমি দুই মেয়াদে মেয়রের দায়িত্ব পালন করছি। বিগত নির্বাচনের সময় আমি ভোটরদের কাছে যা প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলাম তার সিংহ ভাগই পূরণ করতে সক্ষম হয়েছি। করোনা কালে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে ষোল হাজার মানুষকে ত্রাণ দিয়েছি। জনগণ আমাকে আবার ও চায়। দলীয় মনোনয়ন পেলে আমি পুনরায় নির্বাচিত হব। আল-মুজাহিদ হোসেন তুষার জানান, সামাজ উন্নয়নসহ দলের বিভিন্ন কর্মকান্ডে আমি ব্যাপক ভূমিকা রেখেছি। করোনাকালীন সময়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি। নিজস্ব অর্থায়নে খাদ্য সামগ্রী, সুরক্ষা সামগ্রী ও চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করেছি। পৌরসভার ভোটাররা নতুন মুখের দিকে তাকিয়ে আছে। আমি বিশ্বাস করি ভোটারদের কাছে প্রার্থীর জনপ্রিয়তা যাচাই করে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দলীয় মনোনয়ন দিবেন। দলীয় মনোনয়ন পেলে বিপুল ভোটে জয় লাভ করবেন বলে তিনি আশাবাদি ।

শেখ মো. ইলিয়াছ জানান,আমি ৩৫ বছর ধরে আওয়ামী রাজনীতির সাথে জড়িত। ২০১৪ সালে জাতীয় নির্বাচনে নৌকার পক্ষে কাজ করায় দল থেকে আমাকে মাইনাছ করা হয়েছে। তাই দেশ নেত্রীর প্রতি আহ্বান, কমিটির প্রস্তাবে প্রার্থী বাছাই না করে, বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার মাধ্যমে প্রার্থীর গ্রহণযোগ্যতা যাচাই করে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হউক। তিনি বলেন, ত্যাগী নেতার মূল্যায়ন করে আমাকে দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হবে বলে আমি বিশ্বাস করি। নাজমুল হোসেন ভূইয়া সোহেল জানান, দল করে বহু হামলা-মামলার স্বীকার হয়েছি। করোনাকালে অসহায়দের ত্রাণ দিয়েছি। পুলিশ ও প্রশাসন নিরপেক্ষ ভূমিকায় থাকলে বিএনপি বিজয়ী হবে। দলীয় মনোনয় পেয়ে নির্বাচিত হলে, দুনীর্তিমুক্ত পৌরসভা গঠন করব। সু-শাসন প্রতিষ্ঠা করব। তবে রাজনৈতিক বিষেজ্ঞরা মনে করছেন, সুষ্ঠ ভোটের মাধ্যমে জনরায়ে মেয়র নির্বাচিত হলে পলাশের রাজনীতিতে আসতে পারে বিশাল পরির্বতন।

উল্লেখ্য যে,ঢাকা থেকে ৪৫ কিলোমিটার দূরে ২৭.৫০ বর্গকিলোমিটার আয়তনের ৯টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত নরসিংদীর পলাশ উপজেলার ঘোড়াশাল পৌরসভা । এখানে মোট ভোটার ৬১ হাজার ৭শ ২১জন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার একত্রিশ হাজার ৬শ ৪১ ও নারী ভোটার ত্রিশ হাজার আশি জন।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়