দায়ীদের কোনোভাবেই ছাড় নয়

আগের সংবাদ

ইসলামী ছাত্রশিবিরের সাত নেতাকর্মী গ্রেপ্তার

পরের সংবাদ

সংবাদের জেরে সাংবাদিকের ওপর সন্ত্রাসীদের হামলা

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ৪, ২০২০ , ১০:০৪ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ৪, ২০২০ , ১০:১৪ অপরাহ্ণ

খুলনার কয়রায় পেশাগত দায়িত্ব পাল‌নে সংবাদ সংগ্রহ করে ফেরার পথে সুভাষ দত্ত, শেখ সিরাজউদ্দৌলা লিংকন, ওবায়দুল কবির সম্রাট না‌মে ৩ সাংবা‌দিকের ওপর সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে দৈনিক সমাজের কথা পত্রিকার কয়রা প্রতিনিধি সুভাষ দত্ত মারাক্তক জখম হয়ে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) রাত ৯ টায় উপজেলা সদরে বাস স্ট্যান্ডে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

বৃহস্পতিবার সন্ধায় এক‌টি সংবা‌দের তথ‌্য সংগ্রহ করতে উপ‌জেলার মহারাজপুর ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন এলাকায় যান। ফেরার পথে রাত ৯টার দিকে কয়রা বাসস্ট্যান্ডে পৌঁছলে সন্ত্রাসী জাহাঙ্গীর বাহিনীর প্রধান জাহাঙ্গীর নেতৃত্বে ২০ জনের একটি দল মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে অতর্কিত হামলা চালায়। সাংবাদিক সুভাষ দত্তের মৃত্যু নিশ্চিত ভেবে সন্ত্রাসীরা বীরদর্পে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক কয়রা থানা পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থল থেকে মুমূর্ষ অবস্থায় সুভাষকে উদ্ধার করে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য রাতেই খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। কয়েকদিন আগে সন্ত্রাসী বালু দস্যু জাহাঙ্গীর এর বিরুদ্ধে দৈনিক ভোরের কাগজসহ কয়েকটি পত্রিকায় নদী ভাঙন কবলিত মদিনাবাদ লঞ্চঘাট থেকে অবৈধভাবে করায় এই ঘটনা ঘটিয়েছে।

হত্যাসহ প্রায় অর্ধ ডজন মামলার আসামি জাহাঙ্গীর এর নেতৃত্বে গড়ে ওঠা এই সন্ত্রাসী বাহিনী। উপজেলার এক প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তির ছত্রছায়ায় থেকে দীর্ঘদিন যাবৎ উপজেলা সদরে ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে চলেছে। কিছুদিন আগে কয়রার বিশিষ্ট আইনজীবী আব্দুর রাজ্জাকের পা কেটে নিয়ে তাকে চিরতরে পঙ্গু করে দিয়েছে। উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইখতিয়ার উদ্দিন হিরোর উপর হামলা করে। এছাড়া বাহিনীর হাতে প্রতিনিয়ত উপজেলা সদরে আসা বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ লাঞ্ছিতসহ হামলার শিকার হচ্ছে। অবৈধভাবে ভাঙন কবলিত স্থান থেকে বালু উত্তোলনসহ বিভিন্ন অপকর্মের সঙ্গে লিপ্ত এই সন্ত্রাসী বাহিনী

কয়রা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, তাঁর মাথার একাংশ, ও ঘাড় মারাত্মক জখম হয়েছে। অবস্থার অবনতি দেখে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য প্রেরণ করা হয়।

কয়রা থানার ওসি (তদন্ত) শাহাদাৎ হোসেন বলেন, সংবাদ প্রকাশের জের ধরে এ হামলা হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। একজনকে আটক করা হয়েছে। বাকি হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়