পরীক্ষার দাবিতে কুবির প্রশাসনিক ভবনে তালা

আগের সংবাদ

নিউজ ফ্ল্যাশ

পরের সংবাদ

ভাস্কর্য নিয়ে উস্কানিদাতাদের আইনের আওতায় আনার দাবি

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২, ২০২০ , ৪:০৫ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ২, ২০২০ , ৪:০৫ অপরাহ্ণ

ভাস্কর্য় নিয়ে উত্তেজনা-অশান্তি ও সাম্প্রদায়িক উস্কানিদাতা রাজনৈতিক মোল্লাদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছেন জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু।

বুধবার (২ ডিসেম্বর) দুপুরে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য ভাঙার হুমকি দিয়ে উত্তেজনা-অশান্তি সৃষ্টিকারীদের আইনের আওতায় আনা এবং ধর্মের অপব্যাখ্যা-ধর্ম নিয়ে রাজনীতি বন্ধ করার দাবিতে ঢাকা মহানগর জাসদ আয়োজিত সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

সমাবেশে হাসানুল হক ইনু এমপি বলেন, ভাস্কর্যের বিরোধীতাকারী রাজনৈতিক মোল্লারা ধর্মের অপব্যাখ্যা দিয়ে অশান্তি সৃষ্টির রাজনীতি করছে। ভাস্কর্য বিরোধী এই রাজনৈতিক মোল্লারা জামাত-বিএনপির ভাড়াটে খেলোয়ার এবং ভার্স্কয বিরোধীতার নামে আসলে সরকার উৎখাতের চক্রান্ত শুরু করেছে। বঙ্গবন্ধুকে দ্বিতীয় বার হত্যা করছে, দেশে ও মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে।

তিনি বলেন, এই রাজনৈতিক মোল্লারা ধর্মীয় চিন্তাবিদ, আলেম, ওলামা, পীর, ধর্ম প্রচারকারী না এরা সবাই কোনও না কোনও রাজনৈতিক দলের নেতা, এরা নির্বাচন করে, ভোটে দাঁড়ায়, এদের নির্বাচনী মার্কা, প্রতীক আছে। এরা পবিত্র ধর্মকে রাজনীতির সঙ্গে মিশিয়ে ধর্মের মনগড়া অপব্যাখ্যা দিয়ে ব্যক্তিস্বার্থ, গোষ্ঠিস্বার্থের রাজনীতি করে।

সাবেক এ তথ্যমন্ত্রী বলেন, এদের ভাস্কর্য বিরোধীতা বঙ্গবন্ধুর বিরোধীতা, বাংলাদেশের বিরোধীতা, বাঙালিয়ানার বিরোধীতা, মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীতা, সংবিধানের বিরোধীতা। রাজনৈতিক মোল্লাদের সামান্য ছাড় দেওয়া, আসকারা দেওয়া, এদের সঙ্গে কোলাকুলি করার কৌশল আত্মঘাতী। সরকারের যে দুই একজন মন্ত্রী, আওয়ামী লীগের যে দুই একজন নেতা আলোচনার মাধ্যমে ভাস্কর্য নিয়ে ভুল বুঝাবুঝির অবসান হবে আশা করছেন তারা বোকার স্বর্গে বাস করছেন। ভাস্কর্য বিরোধীরা জেনে বুঝে পরিকল্পিতভাবে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে শেখ হাসিনার সরকার উৎখাতের চক্রান্তে নেমেছে।

শিরীন আখতার এমপি বলেন, ভাস্কর্য বিরোধীরা বাংলাদেশ রাষ্ট্র, সংবিধান, মুক্তিযুদ্ধ কিছুই মানে না। নারীদের অসম্মান করে এরা ধর্মের অপব্যাক্ষা দিয়ে ধর্ম অবমাননা করছে। এদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে বিচারের দাবি জানান তিনি।

ঢাকা মহানগর জাসদের সমন্বয়ক মীর হোসাইন আখতারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন- দলের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি, সহ-সভাপতি সফি উদ্দিন মোল্লা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শওকত রায়হান প্রমুখ।

সমাবেশ শেষে জাসদের নেতা-কর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে বঙ্গবন্ধু এভিনিউ, পল্টন, তোপখানা, প্রেসক্লাব এলাকার সড়কগুলো প্রদক্ষিণ করেন। এসময় জাসদের পক্ষ থেকে ঘোষনা করা হয়- আগামী ৫ ডিসেম্বর ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবিতে দেশব্যাপী কমসূচি পালন করা হবে। ৫ ডিসেম্বর সকাল ১১টায় ঢাকায় জাসদ চত্বরে মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হবে।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়