ই-পাসপোর্ট অফিসের অনিয়ম

আগের সংবাদ

শ্রদ্ধা সৃষ্টিশীল মানুষের প্রতি

পরের সংবাদ

খেজুরের রস সংগ্রহের আধুনিক পদ্ধতি

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ২, ২০২০ , ১১:০৫ অপরাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ২, ২০২০ , ১১:০৫ অপরাহ্ণ

বাঙালি সংস্কৃতির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে খেজুরের রস। শীতকাল এলেই যেন ধুম পড়ে যায় খেজুর রস সংগ্রহের। আধুনিক পদ্ধতির সঠিক ব্যবহার এক্ষেত্রে সফলতা বয়ে নিয়ে আসবে। ঠাণ্ডা আবহাওয়া, মেঘলা আকাশ ও কুয়াশাচ্ছন্ন সকাল পর্যাপ্ত রসের জন্য উপযোগী। তাপমাত্রা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রসের পরিমাণ ও মান কমতে থাকে। ন্যূনতম ৫ বছর বয়সি গাছ থেকে রস সংগ্রহ শুরু করা হয়। গাছের বয়স, এলাকা বা মাটির প্রকারভেদ, মৌসুমের সময় ও গাছের যতেœর ওপর রসের প্রাচুর্যতা নির্ভর করে। পুরুষ গাছ স্ত্রী গাছের চেয়ে বেশি রস দেয় আর এই রস অধিক মিষ্টি হয়। রস সংগ্রহের জন্য গাছ নির্বাচন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। গাছ কাটার ওপর নির্ভর করে খেজুরের রস সংগ্রহ। কারণ রস সংগ্রহের জন্য যে পদ্ধতি প্রচলিত আছে তার চেয়ে আধুনিক পদ্ধতি অনেক উপকারী। তাই প্রয়োজন প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত গাছি দিয়ে গাছ কাটানো। এতে রস আহরণের হার ও গাছের স্থায়িত্ব দুটিই বৃদ্ধি পায়। গাছ কীভাবে কাটতে হবে, কোন অংশে কী পরিমাণ কাটতে হবে, কোন সময় বেশি রস পাওয়া যাবে, কীভাবে কাটলে গাছটি দীর্ঘস্থায়ী হবে এসব ব্যাপারে গাছির জানা থাকতে হবে। গাছিকে অবশ্যই প্রশিক্ষণ নিতে হবে। গবেষণায় দেখা যায়, গাছের বেডের ১/৩ ইঞ্চি অংশ লম্বা ও ৭.৫-১০ সেমি গাছ কাটলে অধিক পরিমাণে রস পাওয়া যায়। নভেম্বর মাসের মধ্যবর্তী সময়ে গাছ পরিষ্কারের কাজ শুরু করতে হয়। এর ১৫-২০ দিন পর কাটা শুরু করতে হবে। তারপর ছাঁটা অংশের যেখানে রস পড়ে সেখানে ‘ট’ আকৃতির চিকন ৭-৮ ইঞ্চি লম্বা বাঁশের কঞ্চি, আধা ইঞ্চির মতো গাছে ঢুকিয়ে রাখতে হয়। ‘ট’ আকৃতির কাঠির মাধ্যমে রস হাঁড়িতে জমা হতে থাকে। একবার গাছ ছাঁটলে ৩-৪ দিন রস সংগ্রহ করা যায় এবং পরবর্তী ৩ দিন শুকাতে হয়। এভাবে কাটলে সুমিষ্ট রস পাওয়া যায়। সাধারণত ডিসেম্বর থেকে এপ্রিলের মধ্যবর্তী সময়ে রস সংগ্রহ করতে হয়। পর্যবেক্ষণ ও সময়োপযোগী পরামর্শ দিয়ে এগিয়ে নিতে হবে গাছিদের তবেই সবার মুখে ফুটে উঠবে সুখের হাসি।

খোজার খলা, সিলেট সদর।
[email protected]

ডিসি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়