ভগীরথীর একাত্তর, বীরকন্যার ঠাঁই হয়নি ইতিহাসে

আগের সংবাদ

দেশে দেশে ম্যারাডোনার যত বান্ধবী ও সন্তান

পরের সংবাদ

সাবিনার অনন্য কীর্তি

প্রকাশিত: ডিসেম্বর ১, ২০২০ , ৯:৫৪ পূর্বাহ্ণ আপডেট: ডিসেম্বর ১, ২০২০ , ৯:৫৪ পূর্বাহ্ণ

বর্তমানে মাঠ দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের স্ট্রাইকার সাবিনা খাতুন। গোলমেশিন খ্যাত এ ফুটবলার এখন বসুন্ধরা কিংসের জার্সি গায়ে নারী ফুটবল লিগ খেলছেন। এই টুর্নামেন্টে দেশের ফুটবলে স্বমহিমায় উজ্জ্বল সাবিনা অনন্য এক মাইলফলকে পৌঁছেছেন। তিনি বাংলাদেশের একমাত্র নারী ফুটবলার হিসেবে ক্লাব পর্যায়ে ২৫০ গোল করার কীর্তি গড়েছেন। তার আগে দেশের কোনো নারী ফুটবলার এই অনন্য রেকর্ড গড়েনি। গত ২৪ নভেম্বর সাবিনার রেকর্ডের দিনে সিলেট এফসির বিপক্ষে তার দল ম্যাচ জিতেছে ১২-১ গোলের বিশাল ব্যবধানে। এমনকি দলের বড় জয়ে হ্যাটট্রিক করেছেন সাবিনা। এছাড়া দেশের ক্লাবের হয়ে তো খেলেছেনই, মালদ্বীপের একটি ক্লাবের হয়ে খেলারও অভিজ্ঞতা আছে তার। সেখানে ৭ ম্যাচে ২২ গোল করেছিলেন তিনি। সাবিনা খেলেছেন ভারতের একটি ক্লাবের হয়েও।

১৯৯৩ সালের ২৫ অক্টোবর সাতক্ষীরা জেলা সদরের পলাশপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন সাবিনা খাতুন। তার পিতা মো. সৈয়দ গাজী ও মা মমতাজ বেগম। সাবিনা পরিবারের চতুর্থ সন্তান। ছোট বেলা থেকেই ক্রীড়াপ্রেমী ছিলেন তিনি। ২০০৯ সালে অষ্টম শ্রেণিতে পড়ার সময় থেকে ফুটবলের সঙ্গে সাবিনার সম্পর্ক। সাতক্ষীরা জেলা ফুটবল কোচ আকবরের মাধ্যমেই ফুটবলের হাতেখড়ি হয় তার।

এক সময় দেশে প্রমীলা ফুটবলার খুঁজে পাওয়া দুষ্কর ছিল। বড় ঘরের মেয়েরা ফুটবল খেলবে এটা ভাবাও ছিল অতিকায় প্রত্যাশা। তখনই আমাদের সাবিনার মতো মেয়েরা এগিয়ে এসেছেন। দিনরাত মাঠে কঠোর অনুশীলন করে প্রস্তুত করেছে নিজেকে। ২০০৯ সালে জাতীয় দলে অভিষেক ঘটে সাবিনার। স্কুল পর্যায়ে, আন্তঃস্কুল ও আন্তঃজেলা পর্যায়ে ভাল খেলার সুবাদে ডাক পেয়ে যান জাতীয় দলে। সে সময় সাতক্ষীরা থেকে ৬ নারী ফুটবলার জাতীয় দলে ডাক পেয়েছিলেন। কিন্তু চ‚ড়ান্ত বাছাইয়ে কেবল সাবিনাই টিকে যান। এরপর থেকে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। সাবিনা এখন স্ট্রাইকার হিসেবে ফুটবলপ্রেমীদের কাছে পরিচিতি। কিন্তু শুরুতে তিনি ছিলেন মিডফিল্ডার। পরে কোচের পরামর্শে স্ট্রাইকার পজিশনে খেলতে শুরু করেন। সাতক্ষীরার এই তরুণী ২০১৩ সালে ফিফা উইমেন্স কোচিং কোর্স ও একই বছর এএফসি ‘সি’ সার্টিফিকেট কোর্স করেছেন। সাবিনার শখ ভ্রমণ করা।

দেশি ফুটবলারদের মধ্যে তার আদর্শ বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের প্রাক্তন অধিনায়ক ও গোলরক্ষক আমিনুল হক। পাশাপাশি ব্রাজিলের প্রমীলা ফুটবল তারকা মার্তাকে আদর্শ মানেন বাংলাদেশ নারী ফুটবলের অন্যতম সেরা এই ফরোয়ার্ড। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে সাবিনা এখন বিদেশি ক্লাবে খেলেও সুনাম কুড়াচ্ছেন। তিনি খেলেছেন মালদ্বীপ ন্যাশনাল ডিফেন্স ফোর্স ক্লাবের হয়ে। ভারতের সেথু এফসির সঙ্গে তিনি চুক্তিবদ্ধ হন ২০১৮ সালে। যেখানে ৭ ম্যাচে ৬ গোল করেছিলেন তিনি। সাবিনার সবচেয়ে বেশি গোল টিম বিজেএমসির জার্সিতে। দলটির হয়ে মাত্র ১২ ম্যাচে ৭৪ গোল করেছেন তিনি।

২০১০ সাল থেকে বাংলাদেশ জাতীয় দলে খেলছেন তিনি। সেই থেকে ৩৫ ম্যাচে এ ফুটবলার ১৯ গোল করতে সক্ষম হয়েছেন। এর আগে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে ৫ ম্যাচে করেছিলেন এক গোল।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়