মদন পৌরসভার প্রার্থী পরিবর্তন করলো আ.লীগ

আগের সংবাদ

২৬ সংস্থার সমন্বয় কতদূর

পরের সংবাদ

হারের বৃত্ত ভাঙতে পারছে না ঢাকা

প্রকাশিত: নভেম্বর ৩০, ২০২০ , ১০:৪৫ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ৩০, ২০২০ , ১০:৫২ অপরাহ্ণ

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি লিগে নিজেদের তৃতীয় ম্যাচেও হেরেছে রাজধানী ঢাকাকে প্রতিনিধিত্ব করা বেক্সিমকো ঢাকা। আর এর মাধ্যমে টানা ৩টি ম্যাচে হারের স্বাদ পেত হল তাদের। সোমবার রাতে বেক্সিমকো ঢাকা তাদের তৃতীয় ম্যাচে খেলতে নামে সাকিব আল হাসানের জেমকন খুলনার বিপক্ষে। নিজেদের ব্যাটিং ব্যর্থতার কারণেই বার বার হারতে হয়েছে তাদের। জেমকন খুলনার বিপক্ষে ঢাকা হেরেছে ৩৮ রানের বিশাল ব্যবধানে।

ম্যাচটিতে প্রথমে ব্যাট করে ৮ উইকেট হারিয়ে পুরো ২০ ওভার খেলে ১৪৬ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর দাঁড় করাতে সমর্থ হয় খুলনা। দলের হয়ে সবচেয়ে বেশি রান করেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। তিনি ৪৭ বল খেলে ৪৫ রান করেন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান করেন ইমরুল কায়েস। তিনি ২৭ বল খেলে ২৯ রান করেন। বিশ^সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান এ ম্যাচে ব্যাটহাতে ১১ রান ও বল হাতে ১ উইকেট লাভ করেন। বোলিংয়ে ঢাকার হয়ে সবচেয়ে উজ্জল ছিলেন রুবেল হোসেন। তিনি ২৮ রানে ৩টি উইকেট তুলে নেন।

অপরদিকে ঢাকার দুই ওপেনার দুইজনই ব্যর্থ হন। তবে টু ডাউনে খেলতে নামা অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম হার ধরার চেস্টা করেন। কিন্তু তিনি বেশিক্ষণ টেনে নিতে পারেনি। তিনি দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৩৭ রান করেন। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২১ রান করেন ইয়াসির আলী। বোলিংয়ে খুলনার হয়ে উজ্জল ছিলেন শহিদুল ইসলাম। তিনি ২১ রানে ৩টি উইকেট শিকার করেন। সব মিলিয়ে ঢাকা ১৯ ওভার ২ বল খেলে সবগুলো উইকেট হারিয়ে ১০৯ রান করতে সমর্থ হয়।
নিজেদের প্রথম ম্যাচে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীর বিপক্ষে জয়ের কাছে গিয়েও হারতে হয়েছে মাত্র ২ রানের ব্যবধানে। এরপর দ্বিতীয় ম্যাচে তো গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের বিপক্ষে তারা রীতিমত বিধ্বস্ত হয়। চট্টগ্রামের বিপক্ষে তারা মাত্র ৮৮ রান করতে সমর্থ হয়। তবে প্রথম ম্যাচে যেহেতু রাজশাহীর করা ১৬৯ রানের কাছাকাছি পৌছে গিয়েছিল তারা। ফলে অনেকেই ভেবেছিল চট্টগ্রামের বিপক্ষে এটি ছিল একটি নিছক দুর্ঘটনা। কিন্তু তৃতীয় ম্যাচেও এসে সেই হারের স্বাদই পেতে হয়েছে তাদের। কারণও সেই একটাই ব্যাটিং ব্যর্থতা।

অপরদিকে এই জয়ের মাধ্যমে প্রতিযোগিতাটিতে ৪ ম্যাচ খেলে দ্বিতীয় জয়ের স্বাদ পেয়েছে জেমকন খুলনা। নিজেদের প্রথম ম্যাচে তামিমের ফরচুন বরিশালকে হারিয়েছিল তারা। এরপর টানা ২টি ম্যাচে হারতে হয়েছে। দ্বিতীয় ম্যাচে মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহীর বিপক্ষে তারা হেরেছিল ৬ উইকেটের বিনিময়ে। এরপর তৃতীয় ম্যাচে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের বিপক্ষে হারতে হয় ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে। ঢাকার মতো তারাও চট্টগ্রামের বিপক্ষে বিধ্বস্ত হয়েছিল। ফলে তাদের জন্যও এই ম্যাচটিতে জয় পাওয়া প্রয়োজন ছিল। শেষ পর্যন্ত তারা জয় তুলে নিতে পেরেছে। বাংলাদেশের বেশ বড় বড় তারকাদের নিয়ে দল গড়েছে খুলনা। ফলে টানা ২টি ম্যাচে হারের পর তাদের উপর একটা চাপ ছিল। সেই চাপ এখন তারা কাটিয়ে উঠেছে এটুকু বলাই যায়।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়