ঈশ্বরদীতে অসহায় শিক্ষার্থীদের মাঝে উপবৃত্তির চেক বিতরণ

আগের সংবাদ

নবীগঞ্জে প্রশাসনের কাছে সব বাস হস্তান্তর করলো মালিকরা

পরের সংবাদ

আফগানিস্তানে আত্মঘাতী গাড়িবোমা হামলা, নিহত ৩০

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৯, ২০২০ , ৬:২৪ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৯, ২০২০ , ৬:২৫ অপরাহ্ণ

আফগানিস্তানের সামরিক ঘাঁটিতে আত্মঘাতী গাড়িবোমা হামলায় কমপক্ষে ৩০ নিরাপত্তা সদস্য নিহত হয়েছেন। হতাহতরা সবাই নিরাপত্তা সদস্য। স্থানীয় সময় রোববার (২৯ নভেম্বর) পূর্বাঞ্চলীয় প্রদেশ গজনি শহরের উপকণ্ঠে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

এখনও পর্যন্ত কোনও গোষ্ঠী এই হামলার দায় স্বীকার করেনি।আফগানিস্তানের সশস্ত্র বিদ্রোহী গোষ্ঠী তালেবান এবং নিরাপত্তা সদস্যদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংঘাতকবলিত প্রদেশ গজনি।

প্রাদেশিক গভর্নরও হামলার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। গভর্নরের মুখপাত্র ওয়াহিদুল্লাহ জুমাজাদা এএফপিকে জানান, “আত্মঘাতী ঘাঁটির ভিতরে গাড়ি চালিয়ে তাতে বিস্ফোরণ ঘটায়।

এদিকে গজনি হাসপাতালের পরিচালক বাজ মোহাম্মদ হেমাত বার্তা সংস্থা এএফপি জানায়, ‘বিস্ফোরণে এখন পর্যন্ত ৩০ জনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। আহত হন আরও ২১ জন।

কাবুলের সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলিতে নৃশংস হামলায় ৫০ জনেরও বেশি লোক মারা গেছে। আইএস কাবুলের তিনটি হামলার দায় স্বীকার করলেও আফগান কর্মকর্তারা তালেবানকে দোষ দিয়েছেন। তবে তালেবানদের পক্ষ থেকে হামলায় জড়িত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করা হয়।

তালেবানদের উৎখাত করতে ২০০১ সালের ৭ অক্টোবরে আফগানিস্তানে অভিযান চালায় যুক্তরাষ্ট্র। তারা জানায়, তালেবানরা ওসামা বিন লাদেন এবং অন্য আল-কায়েদা নেতাদের লালন করেছে যারা ৯/১১ এর হামলার সঙ্গে জড়িত ছিল। ২০০১ সালে মার্কিন নেতৃত্বাধীন জোট তালেবান শাসন উৎখাত করার পর থেকেই সেখানে আছে মার্কিন সেনা।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও গত সপ্তাহে দোহায় একটি সফরের সময় “তাত্ক্ষণিক আলোচনার” তালেবান এবং আফগান সরকারের আলোচকদের সাথে সাক্ষাত করেন।

পেন্টাগন এই মাসের গোড়ার দিকে বলেছিল যে তারা ফেব্রুয়ারিতে স্বাক্ষরিত একটি পৃথক চুক্তিতে তালেবানদের সাথে একমত হওয়ার সাথে সাথে ২০২১ সালের মে মাসে আফগানিস্তান থেকে প্রায় ২ হাজার মার্কিন সেনা সরিয়ে নেবে।

 

 

 

 

 

ডিসি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়