ভাস্কর্য ভাঙার হুমকি: মুক্তিযুদ্ধ মঞ্চের শাহবাগ অবরোধ

আগের সংবাদ

মনোনয়ন পেলে ভোটারদের কাছে ইসতেহার তুলে ধরব

পরের সংবাদ

গাইবান্ধায় সাংস্কৃতিককর্মীদের প্রতিবাদ

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৮, ২০২০ , ৫:২৭ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৮, ২০২০ , ৫:২৭ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি পরিষদ কর্তৃক সম্প্রতি জেলা শিল্পকলা একাডেমির গঠনতন্ত্র সংশোধনের নামে কতিপয় অগণতান্ত্রিক ও অসঙ্গত ধারা সংযোজন ও প্রতিস্থাপনের জোর প্রতিবাদ ও অবিলম্বে তা বাতিলের দাবি জানিয়ে শনিবার (২৮ নভেম্বর) গাইবান্ধা জেলা শহরের ডিবি রোডে এক মানববন্ধন পালিত হয়। গাইবান্ধার সর্বস্তরের সাংস্কৃতিক কর্মীরা এই মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করে।
মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন রাগিব হাসান চৌধুরী হাবুল, আমিনুল ইসলাম খোকন, মশিউর রহমান, জহুরুল কাইয়ুম, রেজাউন্নবী রাজু, দেবাশীষ দাশ দেবু, অমিতাভ দাশ হিমুন, দেবাশিস দাস দিপু, মাসুদুল হক, মাহমুদুল গণি রিজন। বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকে মানববন্ধনে সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রাখেন আমিনুল ইসলাম গোলাপ, মিহির ঘোষ, জিয়াউল হক জনি, খান মো. সাঈদ হোসেন জসিম, হেদায়েতুল ইসলাম বাবু প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, বর্তমান গঠনতন্ত্রে কার্যনির্বাহী কমিটিতে মোট ১৫ জনের মধ্যে ১০জন নির্বাচিত হবেন। আর সভাপতি হিসেবে জেলা প্রশাসক ৩ জনকে মনোনয়ন দেন। কিন্তু নতুন সংশোধনীতে নির্বাচিত ও জেলা প্রশাসক মনোনয়ন থেকে ২ জন করে কমিয়ে সেই ৪ জনের মনোনয়নের ক্ষমতা দেয়া হয়েছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি পরিষদকে। আবার কার্যনির্বাহী কমিটিতে নির্বাচিত ৮ জন থাকলেও অনির্বাচিতই থাকবেন ৭ জন। অ্যাডহক কমিটির ৫ জনের স্থলে ৭ জন করা হলেও সেখানে ৪ জনকেই মনোনয়ন দেবে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি পরিষদ। জেলা কালচারাল অফিসারকে যাবতীয় দায়িত্ব দেয়া হয়েছে, আর নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক শুধু সভার নোটিশ প্রদান, আলোচ্যসূচি, কার্যবিবরণী উপস্থাপন করবেন। কোষাধ্যক্ষ হিসেবে জেলা কালচারাল অফিসার প্রশাসনিক ও আর্থিক বিষয়ে সার্বিক দায়িত্ব পালনের জন্য বাশিএ মহাপরিচালকের কাছে দায়বদ্ধ থাকবেন, কার্যনির্বাহী কমিটির নিকট নয়। অথচ তিনি কার্যনির্বাহী কমিটির কোষাধ্যক্ষ। এসবের মাধ্যমে জেলা শিল্পকলা একাডেমিগুলোকে সরকারি দপ্তর বানিয়ে ফেলার অপপ্রয়াস নেয়া হচ্ছে। সংশোধনীতে কেন্দ্রীয় অনুদান ও প্রশিক্ষণ তহবিল হিসাবটি কোষাধ্যক্ষ/সদস্য সচিব এর পরিবর্তে জেলা কালচারাল অফিসার কর্তৃক একক স্বাক্ষরে পরিচালনার কথা বলা হয়েছে। বক্তারা গঠনতন্ত্রে এসব ধারা সংযোজন ও প্রতিস্থাপনের জোর প্রতিবাদ জানিয়ে তা অবিলম্বে বাতিলের দাবি জানান। এদিকে একই দাবিতে আজ রোববার প্রধানমন্ত্রী বরাবরে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্মারকলিপি প্রদান করা হবে।

ডিসি

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়