শীতে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ান

আগের সংবাদ

পেট্রোল পাম্পে ওজনে কম, দুই মালিকের জরিমানা

পরের সংবাদ

জনসাধারণের প্রত্যাশা অনুযায়ী প্রার্থী নির্বাচন

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৫, ২০২০ , ১০:১৯ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৫, ২০২০ , ১০:১৯ অপরাহ্ণ

সামনে পৌরসভা নির্বাচন। একজন সাধারণ নাগরিক হিসেবে স্বভাবতই আমাদের ভাবনা থাকে প্রার্থী যারা হবেন তাদের দ্বারা যাতে দেশ ও মানুষের কল্যাণ সাধিত হয়। এখন এই কল্যাণের সঙ্গে নাগরিকের কি কি অধিকার আছে এবং কি কি কাজ করলে নাগরিকরা সন্তুষ্ট থাকবেন তা একজন প্রার্থীর যেমন জানা দরকার তেমনি রাষ্ট্র থেকে যাকে নির্ধারণ করা হবে কোনো দলের মনোনয়নকৃত প্রার্থী হিসেবে তারও হতে হবে আধুনিক এবং বর্তমান প্রেক্ষাপটে সে কতটা দক্ষ তা তার নিজের জানা। আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রকে নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছে অনেক দিন হলো। এখন তারা যে সময় পার করছে তাতে করে অনেক কাজ করার যোগ্যতা এবং সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। শুধু এ পৌরসভা নয় অন্য যে কোনো নির্বাচন বিষয়েই আওয়ামী লীগের কাছে প্রশ্ন কীভাবে মনোনয়ন দেয়া হচ্ছে একজন প্রার্থীকে বা কোন কোন যোগ্যতার ভিত্তিতে বলে দেয়া হচ্ছে এই প্রার্থীই এই স্থানের জন্য সর্বাপেক্ষা যোগ্য। এখন এ বিষয়গুলো আরো নিগূঢ়ভাবে ভাবনার সময় এসেছে বলে মনে করি। হয়তো এমন হয়ে থাকতে পারে একজন মানুষ অনেক দিন থেকে দলের জন্য কাজ করছেন, তিনি ভালো মানুষও। কিন্তু তার ক্ষমতার দাপটে অন্য অনেকেই সুবিধা নিয়ে সমাজকে কলুষিত করেছে। তবে কি তিনি যোগ্য?
একজন প্রার্থী তিনি সব কাজই ভালোভাবে করেছেন কিন্তু তিনি দুর্নীতিবাজ, মানুষের কথা তার পর্যন্ত পৌঁছেনি, তিনি তার নির্বাচনী এলাকার জন্য বাজেট ঘোষণা করতেন কিন্তু কখনো বাজেট কতটুকু বাস্তবায়িত হয়েছে বা কোনো কারণে না হলে কেন হয়নি সে সম্পর্কে জনসাধারণকে অবহিত করেননি তবে কি তিনি যোগ্য?
জনসাধারণের যে বিষয়গুলো বেশি সমস্যার কারণ হয়েছে সে কারণগুলো সমাধান না করে অন্য অনেক বিষয় নিয়ে কাজ করে উন্নতি অন্যদিকে দেখানোর চেষ্টা করেছেন তিনি কি যোগ্য? একজন কৃষিপ্রধান অঞ্চল এবং শিল্পপ্রধান অঞ্চলের ক্ষেত্রে নিজ নিজ এলাকা অবস্থার সম্পর্কে কোনো জনপ্রতিনিধি দক্ষ না হলে তিনি কি যোগ্য বলে মনে করেন আপনি?
একজন জনপ্রতিনিধি অনেক কাজ করেছেন কিন্তু বিচারিক ক্ষেত্রে তার অবহেলা ছিল, মানুষ তার কাছে গিয়ে স্থানীয় বিচারিক কাজে সহায়তা পায়নি তবে কি তিনি যোগ্য?
একজন জনপ্রতিনিধি শুধু তার দলের মানুষের জন্যই নাকি সব দলের মানুষই তার কাছে সমান এ বিষয়টিও জনপ্রতিনিধির যোগ্যতার ক্ষেত্রে অন্যতম বৈশিষ্ট্য।
প্রার্থী নির্বাচনের ক্ষেত্রে প্রশ্নগুলো আওয়ামী লীগের প্রতি এ কারণে যে যেহেতু অনেকদিন ধরে সরকার হিসেবে এ দলটি রয়েছে সুতরাং এখন দেশের মানুষের প্রত্যাশার জায়গায় চাওয়াও বেড়েছে এই দলের প্রতি। মানুষ এখন যেভাবে একজন জনপ্রতিনিধিকে দেখতে চায় সে বিবেচনা সরকারের পক্ষ থেকেও অনুধাবন করতে হবে। এজন্য একজন জনপ্রতিনিধি কেমন হবে এ জায়গাটি নির্বাচনের জন্য সরকারের পক্ষ থেকেই কিছু উদ্যোগ নেয়া প্রয়োজন।
অনেকদিন কোনো কর্মী কাজ করেছে দলের হয়ে কিন্তু তার অন্যান্য কাজ ভালো নয় এমন প্রার্থী জনসাধারণ চায় না। জনসাধারণের প্রত্যাশা পূরণ করতে হলে সৎ, নিষ্ঠাবান, দূরদর্শী সুদূরপ্রসারী চিন্তাশীল ব্যক্তি, আধুনিক অসাম্প্রদায়িক মানুষ হিসেবে খ্যাত, দুর্নীতির বিরুদ্ধে দাঁড়ানো কোনো মানুষকেই জনসাধারণ সামনের কাতারের মানুষ হিসেবে দেখতে চায়। টেকসই উন্নয়নের সঠিক নির্দেশনাগুলো জানে এবং দেশের প্রচলিত আইনের মাধ্যমে বিচারিক কাজগুলোকে গতিশীল করতে পারে এবং আধুনিক চিন্তার সংমিশ্রণে পরিবেশ, প্রতিবেশ, প্রাকৃতিক সম্পদকে সঠিক ব্যবহার করতে জানা মানুষগুলোই সামনের দিনের জন্য সঠিক মানুষ বলে মনে করি।
পৌরসভা নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা হচ্ছে এক এক করে। আমাদের প্রত্যাশা এবারের নির্বাচনের প্রার্থী যারা হবেন সেখানে জনসাধারণের চাওয়ার জায়গা পরিস্ফুটিত হবে। স্বচ্ছ মনের মানুষ যারা তারা কতটুকু কাজ করছে এবং কতটুকু বাকি থাকছে নির্দ্বিধায় বলে যাওয়ার মতো সৎ সাহস রাখে। সুতরাং আওয়ামী লীগকেও এরকম স্বচ্ছ মানুষ খুঁজে বের করতে হবে। এ দায়িত্বের জায়গাটি প্রধানমন্ত্রীর বিবেচনার জায়গা ও দলীয় মূল্যায়ন এবং জনসাধারণের মতামতের ভিত্তিতেই করা প্রয়োজন।
আমরা চাই দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন ও নাগরিক অধিকারের সঠিক ব্যাপ্তি। নাগরিক অধিকার শুধু অধিকারের জায়গায় না থেকে তা যে দায়িত্বের জায়গাও তা বোঝানোর জন্যও প্রয়োজন একজন আধুনিক ও আইন জানা মানুষকে জনপ্রতিনিধি হিসেবে সামনে নিয়ে আসা। আশা করি প্রার্থী নির্বাচনের ক্ষেত্রে এ বিষয়গুলো সরকারের সংশ্লিষ্ট সবাই আরো ভালোভাবে ভাববেন।

শ্রীপুর, গাজীপুর।

[email protected]

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়