রাণীনগর উপজেলা পরিষদ উপ-নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ

আগের সংবাদ

তাজরিন হত্যাকান্ড: সর্বোচ্চ শাস্তি ও শ্রমিকদের ক্ষতিপূরণের দাবি

পরের সংবাদ

খাসোগিকে হত্যার নতুন রহস্য

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৪, ২০২০ , ৬:৫০ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২৪, ২০২০ , ৬:৫২ অপরাহ্ণ

বান্ধবীকে বাইরে দাঁড় করিয়ে রেখে মঙ্গলবার দুপুরে ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে ঢুকেছিলেন তিনি – উদ্দেশ্য ছিল তার বিবাহ-বিচ্ছেদের একটা সার্টিফিকেট নেয়া। তার পর থেকেই জামাল খাসোগি নিখোঁজ – এবং ছয় দিন পর তুর্কী পুলিশ এখন বলছে, তাকে হয়তো কনস্যুলেটের ভেতরেই খুন করা হয়েছে।

তুরস্কের সৌদি দূতাবাসে আলোচিত সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে হত্যার নতুন করে রহস্যের উন্মোচন হয়েছে। জামাল খাসোগিকে হত্যার আগে সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের ঘনিষ্ট হিসেবে পরিচিত কাহতানি তাকে হুমকি দিয়েছিলেন।

মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) তুরস্কের এক আদালতে এ তথ্য জানান জামাল খাসোগির এক ঘনিষ্ট বন্ধু। খবর এএফপির। নিহত সাংবাদিক খাসোগির ওই ঘনিষ্ট বন্ধু হলেন মিসরের আইমান নূর। তিনি মিসরের একজন রাজনীতিবিদ, যার সঙ্গে জামাল খাসোগির ছিল দীর্ঘদিনের বন্ধুত্ব। তুর্কি আদালতে দেয়া বক্তব্যে খাসোগির বন্ধু আইমান নূর বলেন, জামাল আমাকে বলেছিল, ২০১৬ সাল থেকে কাহতানি তাকে অব্যাহতভাবে হুমকি দিয়ে আসছে।

খাসোগি যখন ওয়াশিংটনে ছিলেন তখন তাকে যুবরাজের ঘনিষ্ট কর্মকর্তা কাহতানি ফোনে তাকে বলেছিল, তিনি ও তার সন্তানরা কোথায় থাকে তা তারা জানে। খাসোগি তখন কেঁদে দেন। যা ছিল অস্বাভাবিক। আর তিনি আমাকে বলেছিলেন, তিনি খুবই ভয় পেয়েছেন।

৫৯ বছর বয়সী সাংবাদিক খাসোগিকে ইস্তান্বুলের সৌদি দূতাবাসে ২০১৮ সালের ২ অক্টোবর হত্যা করা হয়। তিনি এক তুর্কি নারীকে বিয়ের প্রস্তুতি হিসেবে কাগজপত্র সংক্রান্ত বিষয়ে দূতাবাসে গিয়েছিলেন। যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ বলছে, সৌদি প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান এই হত্যাকাণ্ডের নির্দেশ দেন বলে তাদের ধারণা। তবে সৌদি কর্মকর্তারা এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। খাসোগি হত্যা নিয়ে প্রথম থেকেই সরব ছিল তুরস্ক। দেশটি বরাবরই এটিকে হত্যাকাণ্ড বলে উল্লেখ করেছে।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়