বিসিসির আড়াই কোটি টাকার চার শতাধিক সিসি ক্যামেরা অকেজো

আগের সংবাদ

করোনায় আক্রান্ত বেবী নাজনীন

পরের সংবাদ

সাংস্কৃতিক আন্দোলন ছড়িয়ে দিতে শিল্পকলার ৫ উদ্যোগ

প্রকাশিত: নভেম্বর ২১, ২০২০ , ৯:৫৯ পূর্বাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২১, ২০২০ , ৯:৫৯ পূর্বাহ্ণ

বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের লালন ও বিকাশে সম্প্রতি পাঁচটি সামাজিক ও সাংস্কৃতিক আন্দোলনের ঘোষণা দিয়েছে সংস্কৃতিচর্চার অন্যতম প্রধান কেন্দ্র বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি। এই আন্দোলন ছড়িয়ে দেয়া হবে ৬৪ জেলায়

ঘোষণাগুলো হলো : মূল্যবোধের অবক্ষয়ের বিরুদ্ধে সংস্কৃতি : ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি উন্নত ও মর্যাদাসম্পন্ন জাতি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে হলে যেসব চ্যালেঞ্জ রয়েছে তার অন্যতম মূল্যবোধের অবক্ষয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে চলমান এ সংকট বাংলাদেশকেও গ্রাস করেছে। মূল্যবোধের অবক্ষয় দূরীকরণের ক্ষেত্রে আমাদের বড় শক্তি হাজার বছরের বাঙালি সংস্কৃতিকে ধারণ ও অবলম্বন। আমাদের কৃষ্টি ও সংস্কৃতির মধ্যে রয়েছে মূল্যবোধ, নৈতিকতা ও সভ্যতার উজ্জ্বল দিশা। মানবিক মূল্যবোধ নিয়ে বিশ্বে একটি মর্যাদাশীল ও উন্নত দেশ হিসেবে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবার জন্য আমাদের প্রয়োজন সামাজিক অবক্ষয়গুলোকে চিহ্নিত করা এবং অবক্ষয় দূরীকরণের জন্য সামাজিক ও সাংস্কৃতিক আন্দোলন গড়ে তোলা। মূল্যবোধের অবক্ষয়ের বিরুদ্ধে সামাজিক ও সাংস্কৃতিক আন্দোলন গড়ে তোলার লক্ষ্যে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ঢাকা ও দেশের ৬৪ জেলা শিল্পকলা একাডেমির মাধ্যমে সব শিল্পী সাহিত্যিক ও সংস্কৃতিকর্মীকে নিয়ে আলোচনা ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের মাধ্যম্যে ‘মূল্যবোধের অবক্ষয়ের বিরুদ্ধে সংস্কৃতি’ শীর্ষক আন্দোলন পরিচালনা করা হবে।

দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটাব : বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ছিল এদেশের দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটানো। এদেশের মানুষ আর অভাবে থাকবে না, তাদের জীবনে সচ্ছলতা আসবে সে লক্ষ্যে তার অনেক পরিকল্পনাও ছিল। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি বঙ্গবন্ধুর সে স্বপ্নকে ধারণ করে দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটাবার প্রত্যয়ে একটি সাংস্কৃতিক আন্দোলন গড়ে তোলার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। ঢাকাসহ ৬৪ জেলা এবং পর্যায়ক্রমে উপজেলাসহ সারাদেশে এই আন্দোলন ছড়িয়ে দেয়া হবে। যে কোনো একজন ব্যক্তি একজন দুঃখী মানুষকে সহযোগিতা করে তার মুখে হাসি ফোটাতে পারেন এবং সেই নন্দিত হাসিকে তার মুঠোফোনে ধারণ করে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির ৎ.নধৎর২৩৩@মসধরষ.পড়স এই মেইলে প্রেরণ করতে হবে। দুঃখী

মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর সেই মানবিক মুহূর্তটি সৃষ্টির জন্য ২৬ মার্চ ২০২১ অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে ১০০ জন মানবিক মানুষকে পুরস্কৃত করা হবে।
সাইবার অপরাধের বিরুদ্ধে শিল্প : প্রযুক্তির উন্নতি ও উৎকর্ষতা যেমন তথ্য ও যোগাযোগ ব্যবস্থাকে সহজতর করার পাশাপাশি মানুষের জীবনযাত্রাকে সহজ করেছে তেমনি এর অপব্যবহার আজ বিশ্ব মানবতাকে চরমভাবে বিনষ্ট করতে আরম্ভ করেছে। সাইবার অপরাধ শুধু বাংলাদেশের জন্য নয় এটি বিশ্বের প্রায় সব দেশের জন্যই আজ আশংকার বিষয়। প্রযুক্তিগত বিকাশের পাশাপাশি প্রয়োজন এর নেতিবাচকতা ও সুবিধা-অসুবিধা সম্পর্কে অবহিত হওয়া, অন্যথায় এটি জাতির বড় ক্ষতির কারণ হয়ে উঠতে পারে। সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড পরিচালনার মাধ্যমে সাইবার অপরাধের বিরুদ্ধে জনমত গড়ে তোলা, সচেতনতা বৃদ্ধি এবং এর থেকে উত্তরণের পদক্ষেপগুলো দেশব্যাপী প্রচারের লক্ষ্যে আন্দোলন শুরু করছে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ‘সাইবার অপরাধের ?বিরুদ্ধে শিল্প’।

২০৪১ : বাংলাদেশ হবে নান্দনিক : জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় এগিয়ে চলেছে বাংলাদেশ। অর্থনীতির প্রায় প্রতিটি সূচকে বাংলাদেশের ধারাবাহিক অগ্রগতি ইতোমধ্যে বিশ্ববাসীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। এই ধারা অব্যাহত থাকলে ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ হবে একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ রাষ্ট্র, সে লক্ষ্যে পরিকল্পনা গ্রহণপূর্বক দেশব্যাপী বহুমুখী কর্মকাণ্ড এগিয়ে চলছে। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের অনুগামী হয়ে আমাদের প্রত্যাশা অর্থনৈতিক উন্নতির পাশাপাশি বাংলাদেশ হবে একটি মানবিক দেশ। ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত হবার পাশাপাশি বাংলাদেশের প্রতিটি ইঞ্চি যেন হয় নান্দনিক। অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রার এই মুক্তপ্রবাহে শিল্প নিয়ে পৌঁছে যাবে শিল্পকলা একডেমি পৌঁছে যাবে উন্নতির শিখরে। সেই প্রত্যয় ও প্রত্যাশা নিয়ে প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে নন্দনচর্চার এই আন্দোলনকে দেশব্যাপী প্রসারিত করবে।
সোনার মানুষ চাই : জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেছেন, ‘স্বাধীনতার স্বপ্ন দেখেছিলাম স্বাধীনতা পেয়েছি। সোনার বাংলার স্বপ্ন দেখেছিলাম সোনার বাংলা দেখে আমি মরতে চাই।’ তিনি আরো বলেছেন, ‘সোনার বাংলা গড়তে হলে সোনার মানুষ চাই।’ কিন্তু অত্যন্ত পরিতাপের বিষয় বঙ্গবন্ধু সোনার বাংলা দেখে মরতে পারেননি। যেদিন দেশপ্রেমিক, জাতীয় চেতনার প্রতি শ্রদ্ধাশীল ও দায়িত্ববান নাগরিক তথা সোনার মানুষে দেশ ভরে উঠবে সেদিনই বঙ্গবন্ধুর কাক্সিক্ষত সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠিত হবে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠার সে স্বপ্নকে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি আয়োজন করতে যাচ্ছে ‘সোনার মানুষ চাই’-শীর্ষক অনুষ্ঠানমালা। বাংলাদেশের শিশু-কিশোর ও যুবকরা বঙ্গবন্ধুর এই স্বপ্নভাষ্যকে সবার মাঝে প্রসারিত করবে। এই আন্দোলনকে ফলপ্রসূ করার লক্ষ্যে সেমিনার, মতবিনিময় সভা এবং বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করবে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি।

পাঁচ উদ্যোগ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে শিল্পকলা একাডেমির কর্মকর্তা রাকিবুল বারী ভোরের কাগজকে বলেন, শিল্পকলা একাডেমির পক্ষ থেকে পাঁচ উদ্যোগের মধ্য দিয়ে দেশের ৬৪ জেলায় দেশের সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে আরো গণমুখী ও গতিময় করার লক্ষ্যে এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, একটি শিল্প সংস্কৃতি ঋদ্ধ সৃজনশীল ও মানবিক বাংলাদেশ গড়ে তুলতে দেশজ সংস্কৃতি বিকাশের কোনো বিকল্প নেই।

এমআই

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়
close