দল নিয়ে তামিমের আক্ষেপ

আগের সংবাদ

সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে সশস্ত্র বাহিনীর কর্মদক্ষতা: প্রধানমন্ত্রী

পরের সংবাদ

নারী ফুটবল লিগে জয় পেল নাসরিন এফ সি

প্রকাশিত: নভেম্বর ২১, ২০২০ , ৮:১৩ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ২১, ২০২০ , ৮:১৩ অপরাহ্ণ

ত্রিকোটেক্স নারী ফুটবল লিগের সপ্তম রাউন্ডের প্রথম ম্যাচে স্পার্টান এমকে গালাকটিকো সিলেট এফ সিকে ৩-০ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছে নাসরিন ফুটবল একাডেমি। ম্যাচটি ড্র হবে একটা সময় এমনটিই মনে হচ্ছিল। কারণ ৭৫ মিনিট পর্যন্ত দুই দলের কেউ গোল তুলে নিতে পারেনি। তবে শেষ মূহুর্তে গিয়ে চমক দেখায় নাসরিন ফুটবল একাডেমি। তারা ম্যাচের ৭৬, ৮০ ও ৮৭ মিনিটের সময় ৩টি গোল পেয়ে যায় নাসরিন একাডেমির হয়ে গোলগুলো করেন আকলিমা, আনাই ও অনুচিং।

অপরদিকে কুমিল্লা ইউনাইটেডের মেয়েদের বিপক্ষে এক হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে জয় পেয়েছে জামালপুর কাচারিপাড়া একাদশের মেয়েরা। তারা কুমিল্লা ইউনাইটেডকে ২-১ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছে। ম্যাচটিতে ৭১ মিনিটের সময় দ্বিতীয় গোল পেয়ে তারা কুমিল্লাকে হারাতে সমর্থ হয়। এই ম্যাচটিতে জামালপুরের হয়ে ৪৩ মিনিটের সময় সাদিয়া গোল করেন। আর ৭১ মিনিটের গোলটি করেন আনিকা। কুমিল্লার হয়ে গোলটি করেন নাহার। তিনি ১৮ মিনিটের সময় গোল করে দলকে প্রথমে এগিয়ে নেন। তবে তার দল শেষ পর্যন্ত হারের স্বাদ পায়।

শনিবার সপ্তম রাউন্ডের খেলা কমলাপুর বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে শুরু হয়। চলতি বছর ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে প্রথমবারের মতো মহিলা ফুটবল লিগ শুরু হয়। তবে করোনার প্রকোপে ১৩ মার্চ পর থেকে লিগের খেলা স্থগিত থাকে। দীর্ঘ ৮ মাস লিগ বন্ধ থাকার পর গত ৭ নভেম্বর, হতে ফের শুরু হয়ে ১১ নভেম্বর পর্যন্ত ছিল প্রথম রাউন্ডের খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রথম রাউন্ড শেষে ৬ ম্যাচের সবগুলো জিতে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ছিল বসুন্ধরা কিংস। সমান ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে ছিল ঢাকার নাসরিন স্পোর্টিং একাডেমি। ১০ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে যথাক্রমে রংপুরের এফসি উত্তরবঙ্গ ও জামালপুর কাচারিপাড়া একাদশ। ৬ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম স্থানে রয়েছে বেগম আনোয়ারা স্পোর্টিং। ১ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের নিচে রয়েছে স্প্যাটার্ন গ্যালাকটিকো সিলেট এফসি ও কুমিল্লা ইউনাইটেড।

গেল কয়েক বছরে বাংলাদেশ জাতীয় মহিলা ফুটবল দল দেশে-বিদেশে অনেক সুনাম অর্জন করে। বয়সভিত্তিক দলেরও রয়েছে চোখ ধাঁধানো সাফল্য। এরপরও নানা সীমাবদ্ধতার কারণে মহিলাদের পেশাদার ফুটবল লিগ চালু করা সম্ভব হচ্ছিল না। তবে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন ও কমিটি ফর ওমেন্স ফুটবলের আন্তরিকতায় এ বছর থেকে মহিলাদের জন্য পেশাদার ফুটবল লিগ চালু হয়। প্রথম আসরে ৭টি দল অংশগ্রহণ করেছে।

জাতীয় দল বা পাইপলাইনে থাকা খেলোয়াড়দের রুটি-রুজির জন্য পেশাদার লিগ অনেক গুরুত্বপূর্ণ। এ বছর থেকে পেশাদার মহিলা ফুটবল লিগ অনুষ্ঠিত হওয়ায় স্বস্তির সুবাতাস বইতে থাকে মহিলা ফুটবল খেলোয়াড়দের মধ্যে। তবে করোনার কারণে কেবল লিগের প্রথম রাউন্ড সমাপ্ত হয়েছে। করোনা পরিস্থতি মাথায় নিয়ে আবারো লিগ শুরু হওয়ায় বাফুফে ও কমিটি ফর ওমেন্স ফুটবলের কাছে কৃতজ্ঞ খেলোয়াড় ও সংশ্লিষ্ট ক্লাবগুলো।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়
close