পাঁচ দলের অধিনায়ক ও জার্সি চূড়ান্ত

আগের সংবাদ

নিরাপদে কাতার পৌঁছাল বাংলাদেশ

পরের সংবাদ

ভারতে চলে যেতে চায় সংখ্যালঘু পরিবার

প্রকাশিত: নভেম্বর ১৯, ২০২০ , ১০:২৬ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ১৯, ২০২০ , ১০:২৭ অপরাহ্ণ

জায়গা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হুমকি, রায় পেয়েও জায়গা বুঝে না পাওয়ার ক্ষোভে ভারতে চলে যাওয়ার হুমকি দিয়েছেন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ার ১৪ জনের সংখ্যালঘু এক হিন্দু পরিবার।

বৃহস্পতিবার (১৯ নভেম্বর) পৌর এলাকার রাধানগরের বনিকপাড়ার নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলন ডেকে পরিবারটির পক্ষ থেকে সাংবাদিকদেরকে এ হুমকির কথা জানানো হয়।

অবশ্য এর আগে তারা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে চারদিন মানববন্ধন ও অনশন কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়েছেন। অন্যথায় পুরো পরিবার নিয়ে পৌর এলাকার রাধানগরের শিপন বনিক ভারত চলে যাবেন বলে জানান।

লিখিত বক্তব্যে শিপন বনিক নামে যুবক জানান, প্রতিবেশির সঙ্গে বাড়ির জায়গা নিয়ে প্রায় ২০ বছর ধরে বিরোধ হয়েছে। তিনবার মামলার রায়ও তাদের পক্ষে আসে। কিন্তু এখন পর্যন্ত প্রতিপক্ষের কাছ থেকে জায়গা বুঝে পান নি। উপরন্তু নানা হুমকি ধামকির শিকার হচ্ছেন। এমনকি নিজেরা যে জায়গাটিতে আছেন সেটি ছেড়ে দিয়ে ভারতে চলে যাওয়ার জন্যও চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে পরিবারের সকল সদস্যসহ উপস্থিত শিপন বনিক ক্ষোভের সঙ্গে জানায়, মামলা চালাতে গিয়ে আর্থিকভাবেও অনেক লোকসান হয়েছেন। আর্থিক অনটনের কারণে বৃদ্ধা মাসহ কখনো কখনো উপবাস থাকতে হয়েছে। প্রতিবেশি তাজুল ইসলাম ও বিল্লাল মিয়াকে রায় সম্পর্কে অবগত করলেও তারা তুচ্ছতাছিল্য করেন। এ অবস্থায় দাবি আদায়ে শুক্রবার সকাল নয়টা থেকে দশটা পর্যন্ত নিজ বাড়ির সামনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করবেন। দাবি আদায় না হলে ২১ ও ২২ নভেম্বর তাজুল ইসলাম ও বিল্লাল মিয়ার বাড়ির সামনে মানববন্ধন, ২৩ নভেম্বর সকাল ১১টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত উপজেলা নির্বাহী অফিসারের (ইউএনও) কার্যালয়ের সামনে অনশন কর্মসূচি পালন করবেন। এতেও যদি জায়গা বুঝে না পান তাহলে আখাউড়া স্থলবন্দরে হাজির হয়ে জাতীয় পরিচয়পত্র হস্তান্তর করে ভারত কর্তৃপক্ষের কাছে আশ্রয়ের প্রার্থণা করবেন।

তবে বিল্লাল মিয়া এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। সদ্য প্রবাস থেকে আসা ওই ব্যক্তি জায়গা নিয়ে তাদের (অভিযোগকারিদের) সঙ্গে কোনো বিরোধ নেই। তিনি কোনো ধরণের হুমকি দেন নি। বরং বাড়ি থেকে বেরুলে ওনাকে নানা ধরণের হুমকি ধামকি দেয়া হয়।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়
close