রাজধানীতে নিজের শরীরে আগুন দিলেন এক নারী

আগের সংবাদ

অর্থনীতিতে সংকটের আভাস

পরের সংবাদ

দায় নিতে নারাজ মেসি

প্রকাশিত: নভেম্বর ১৯, ২০২০ , ১১:০৬ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ১৯, ২০২০ , ১১:০৬ অপরাহ্ণ

বার্সেলোনার অন্যতম দামি ও এখন পর্যন্ত ফ্লপ খেলোয়াড় অ্যান্তোনিও গ্রিজম্যানের সাবেক এজেন্ট এরিক ওলহাটস গত সপ্তাহে ফ্রেঞ্চ ফুটবল ম্যাগাজিনের সঙ্গে এক আলাপচারিতায় জানান মেসির কারণে গ্রিজম্যান ভালো করতে পারছেন না। কারণ হিসেবে তিনি বলেছিলেন মেসি বার্সার সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করেন। গ্রিজম্যানকে মেসি সহায়তা করেন না। আর্জেন্টিনার হয়ে বিশ^কাপের বাছাইপর্বের ম্যাচ খেলে গতকাল স্পেনে ফেরেন মেসি। এয়ারপোর্টে তাকে এ ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলে মেসি উত্তর দেন আমি ক্লাবের সবকিছুর দায় নিতে নিতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছি। এই কথার মাধ্যমে মেসি বুঝিয়েছেন তিনি সবকিছুর জন্য দায় নিতে আর রাজি নন। তাছাড়া ১৫ ঘণ্টা বিমানে ভ্রমণ করার পর তাকে গতকাল টেক্স কর্তৃপক্ষের লোকদের মুখোমুখি হতে হয়। এ ব্যাপারটি নিয়েও সমালোচনা করেছেন তিনি। মেসি তার বক্তব্যে বলেন, ‘১৫ ঘণ্টা ভ্রমণ করার পর যখন আপনাকে টেক্স বিভাগের মুখোমুখি হতে হয় তখন ব্যাপারটি বেশ অদ্ভুদ’।

মেসির এই কথাতেও যথার্থতা রয়েছে। কারণ বার্সা যখনই খারাপ খেলে তখনই তার ওপরই সবচেয়ে বেশি চাপটা আসে। আর ভালো খেললে নাম হয় সবার। এই ২০২০ সালের শুরুতে আরনেস্তো ভালভার্দেকে বহিষ্কার করে বার্সা ক্লাব কর্তৃপক্ষ। কিন্তু ভালভের্দের বহিষ্কারের জন্য মেসিকে দায়ী করা হয়েছিল। সাবেক স্পোর্টিং ডাইরেক্টর এরিক আবিদাল বলেছিলেন মেসি ভালভের্দের কথা শুনতেন না। ফলে তাকে বাধ্য হয়ে সরিয়ে দিতে হয়েছিল। এসব ছাড়াও তাকে অনেক অনেক সমস্যার জন্য দায়ী করেন।

মেসির এই বক্তব্যের মাধ্যমে মেসির বার্সা ছাড়ার ব্যাপারটি যেন আরো প্রখর হয়ে উঠল। মেসি আবার জানিয়ে দিলেন তিনি বার্সাতে এখনো খুশি হতে পারেননি। ফলে আসছে জানুয়ারির দলবদলে মেসি বার্সা ছেড়েও দিতে পারেন।

এদিকে এই মৌসুমের শুরুতে লিওনেল মেসি যখন বার্সেলোনা ছাড়তে চেয়েছিলেন তখন যে ক্লাবটির নাম সবচেয়ে বেশি উচ্চারিত হয়েছিল সেই ক্লাবটি হলো ম্যানচেস্টার সিটি। অন্য কোনো ক্লাবের বদলে মেসি বার্সায় যেতে চেয়েছিলেন কারণ এই ক্লাবের দায়িত্বে আছেন মেসির সাবেক বস পেপ গার্দিওলা। তবে বার্সা খুবই কৌশল করে মেসিকে রেখে দেয়। তারা জানায় মেসির জন্য ৭০০ মিলিয়ন ইউরো দিলে তবেই ছাড়বে। কিন্তু এত টাকা কোনো ক্লাবের পক্ষে দেয়া সম্ভব না। ফলে মেসিকে বাধ্য হয়েই বার্সায় থেকে যেতে হয়। তবে মেসি যে বার্সার ওপর ক্ষুব্ধ ছিলেন সেটি কিন্তু যায়নি। মনে করা হয়েছিল নতুন কোচ রোনাল্ড কোম্যানের সঙ্গে একটি ভালো সম্পর্ক গড়ে উঠবে মেসির। কিন্তু সেটিও হয়নি। ফলে মেসি বার্সায় এখনো খুব বেশি খুশি না।

ম্যানচেস্টার সিটি তাদের প্রথম চেষ্টায় মেসিকে দলে ভেড়াতে ব্যর্থ হলেও তারা হাল ছেড়ে দেয়নি। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দি সান জানিয়েছে মেসিকে ইংল্যান্ডে নিয়ে আসার জন্য ফের একটি বড় চেষ্টা চালাবে ম্যানসিটি। আর সেটি আসন্ন দলবদলেই। অর্থাৎ জানুয়ারি মাসের দলবদলে। যদিও মেসি এই মৌসুম শেষে ফ্রি এজেন্ট হয়ে যাবেন। তখন তাকে আনতে বার্সাকে কোনো টাকাই দিতে হবে না ম্যানসিটিকে। কিন্তু ইংল্যান্ডের শক্তিশালী ক্লাবটি এতদিন অপেক্ষা করতে চায় না।

এমআই

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়