তাড়াইলে বিষাক্ত পটকা মাছ খেয়ে ৪ জন অসুস্থ

আগের সংবাদ

আলফাডাঙ্গায় ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে সংঘর্ষ আহত ৮

পরের সংবাদ

এই নারী তো সুবিধাবাদী, এরা খুবই বিপজ্জনক!

প্রকাশিত: নভেম্বর ১৬, ২০২০ , ৯:৩৯ অপরাহ্ণ আপডেট: নভেম্বর ১৬, ২০২০ , ৯:৫২ অপরাহ্ণ

আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন যুবলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে স্থান পাওয়া সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী চৌধুরী মৌসুমী ফাতেমা (কবিতা) কে নিয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন সংরক্ষিত নারী আসনের সাবেক এমপি নুরজাহান বেগম মুক্তা। তিনি তার ফেসবুকে লিখেছেন, ‘তার ছবি এরশাদ সাহেবের সাথে দেখলাম, খালেদা জিয়ার সাথেও দেখলাম, এমনকি আমাদের নেত্রীর পেছনেও দাঁড়িয়ে থাকতে দেখলাম। এই নারী তো সুবিধাবাদী, এরা খুবই বিপজ্জনক। এরা আমাদের নেত্রী পর্যন্ত আসে কাদের হাত ধরে??? আসুন এদেরকে চিহ্নিত করি।

গত শনিবার (১৪ নভেম্বর) যুবলীগের কমিটি ঘোষণার পর পদ পাওয়া কবিতার দুটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। সেই ছবি দুটির প্রেক্ষিতেই সংরক্ষিত নারী আসনের সাবেক এমপি নুরজাহান বেগম মুক্তা তার ফেসবুকে স্ট্যাটাসে এসব কথা লেখেন।

সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদ পাওয়ার পরই তার কয়েকটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে শেয়ার দিয়ে অনেকেই নানা মন্তব্য করছেন। কেউ কেউ প্রশ্ন তুলেছেন, ‘কবিতা চৌধুরী মৌসুমী তুমি কার?’ ফেসবুকে যে ছবিগুলো শেয়ার করা হয়েছে সেখানে দেখা যাচ্ছে, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া যে সোফায় বসেন তার পেছনে দাঁড়িয়ে আছেন মৌসুমী। আরেকটি ছবি আছে সেখানে দু’জনেই বসা।

ইডেন মহিলা কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ও বর্তমান যুব মহিলা লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জেসমিন শামীমা নিঝুম লিখেছেন, ‘পাকিস্তানি প্রেতাত্মা জামায়াত-শিবির বিএনপির শিকড় বঙ্গবন্ধুর আওয়ামী রাজনীতির কতটা গভীরে প্রবেশ করেছে তার প্রমাণ এটা। এতো যাচাই বাছাইয়ের পরেও এরা আওয়ামী লীগে প্রবেশ করছে। আমার মনে হয় হাইকমান্ড এ ব্যাপারে অবগত নয়। আশা করি ঘটনা সত্য হলে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া হবে। যতটুকু জেনেছি, মৌসুমী ফাতেমার বড় ভাই রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলা যুবদলের সেক্রেটারী। ব্যারিস্টার চৌধুরী মৌসুমী ফাতেমা (নির্বাহী সদস্য)।’

এমবি কানিজ নামের একজন খালেদা জিয়ার সঙ্গে মৌসুমীর তিনটি ছবি দিয়ে লিখেছেন, ‘এই নেন দুই কেন্দ্রীয় যুবলীগের ত্যাগী ট্যাগী সদস্য! কেন রে ভাই দলে ত্যাগী নেতা নেত্রীর অভাব! কতজন গতকাল প্রকাশিত কমিটিতে একটা সদস্যপদ পায়নি বলে বুকের তীব্র ব্যাথা রক্তক্ষরণে ঘুমাতে পারেনি! তাদের পরিবারসহ এই তীব্র দহন হজম করে নেত্রীর পানে চেয়ে সকল ব্যথা লাঘব করে। আর তোমরা এসব কাউয়া পক্ষী রূপ বদলানো, দল বদলানো চরিত্রের লোকদের এতো বড় ঐতিহ্যবাহী সংগঠনে ঢুকিয়ে নিলা নিজের ঘাম জড়ানো রক্ত জড়ানো নেতাকর্মীকে বাঁশ দেয়ার জন্য??? বুঝবা তোমরাও …’

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়