ঢাকা নিয়ন্ত্রণে ইরফান সেলিমের দূরবিন ব্যবহার!

আগের সংবাদ

নিউজ ফ্ল্যাশ

পরের সংবাদ

হাজী সেলিম কোথায়?

প্রকাশিত: অক্টোবর ২৬, ২০২০ , ৭:৫৮ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ২৬, ২০২০ , ৮:৩০ অপরাহ্ণ

বাড়িতে এতোকিছু ঘটে গেলেও ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের দেখা পায়নি র‌্যাব। বেলা ১২টা থেকে বিকেল প্রায় ৫টা অবধি তার বাড়িতে টানা কয়েক ঘণ্টা শ্বাসরুদ্ধ অভিযান চালানো হয়। বাড়ি থেকে জব্দ করা হয় লাইসেন্সহীন অবৈধ বিদেশি পিস্তল, গুলি, এয়ারগান, ৩৮টি ওয়াকিটকি, হাতকড়া, বিদেশি মদ ও বিয়ার।

এসব ঘটনায় হাজী সেলিমের ছেলে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ইরফান সেলিম ও তার বডিগার্ড মোহাম্মদ জাহিদকে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালতে এক বছর করে কারাদণ্ডও দেয়া হয়। আর অভিযানকালে গোটা এলাকা ঘিরে রাখে আইন-শৃঙ্খলাবাহিনীর অসংখ্য সদস্য আর গণমাধ্যমকর্মীরা। গণমাধ্যমে লাইভ প্রচারও হয় র‌্যাবের অভিযান।

তবে এসব ঘটনা যার বাড়িতে ঘটছে সেই হাজী সেলিমকেই খুঁজে পায়নি র‌্যাব। পারিবাকি সূত্রে জানা গেছে, অভিযান শুরুর আগেই তিনি চিকিৎসকের কাছে গেছেন। একই কথা বলছেন র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ। তিনি জানান, হাজী সেলিম বাড়িতে নেই। অভিযানের আগেই তিনি তার স্ত্রীসহ ডাক্তারখানায় গেছেন বলে জানা গেছে।

তবে কোথায়, কোন চিকিৎসকের কাছে হাজী সেলিম চিকিৎসা নিতে গেছেন, তা জানাতে পারেননি র‌্যাবের ওই কর্মকর্তা। এ ব্যাপারে জানতে হাজী সেলিমের মোবাইলে একাধিকবার ফোন করলেও সাড়া দেননি তিনি।

আগেরদিন রোববার রাতে ধানমণ্ডি এলাকায় হাজী সেলিমের গাড়ি থেকে নেমে নৌবাহিনীর এক কর্মকর্তাকে মারধরের ঘটনায় পরদিন সোমবার মামলা হয় থানায়। এতে ইরফান সেলিম ছাড়াও হাজী সেলিমের প্রোটোকল অফিসার এবি সিদ্দিক দিপু, মোহাম্মদ জাহিদ ও মিজানুর রহমানের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত পরিচয় আরও তিনজনকে আসামি করা হয়।

ওই ঘটনার জের ধরে সোমবার বেলা ১২টার দিকে হাজী সেলিমের বাড়ি ঘিরে অভিযান শুরু করে র‌্যাব। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই চতুর্থ তলা থেকে ইরফান সেলিম ও তার দেহরক্ষী জাহিদকে হেফাজতে নেওয়ার কথা জানান র‌্যাব কর্মকর্তারা।

আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগরের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক হাজী সেলিম বর্তমানে ঢাকা-৭ আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য। এর আগেও দুই দফায় পুরান ঢাকার এই এলাকার সংসদ সদস্য ছিলেন। এরমধ্যে ২০১৪ সালে বিদ্রোহী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে আওয়ামী লীগের প্রার্থী মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিনকে হারিয়ে দিয়েছিলেন তিনি।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়