সংবাদপত্র পর্যালোচনা

আগের সংবাদ

অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ আসামির রায় বুধবার

পরের সংবাদ

সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ রুখতে এবার স্পেনে জরুরি অবস্থা

প্রকাশিত: অক্টোবর ২৬, ২০২০ , ১২:১০ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ২৬, ২০২০ , ১২:১০ অপরাহ্ণ

করোনায় কাঁপছে ইউরোপ। সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ছে মহাদেশটির একের পর এক রাষ্ট্রের উপর। কয়েকদিন আগেই মরণ ভাইরাসটিকে রুখতে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছিল ফ্রান্স। তারপর বিধিনিষেধ জোরদার করে ইতালি। এবার আক্রান্তের সংখ্যা দ্রুত বাড়তে থাকায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করল স্পেন।

বিবিসি সূত্রে খবর, স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেড্রো সানচেজ জানিয়েছেন, রাত ১১টা থেকে সকাল ৬টা পর্যন্ত চলবে নাইট কারফিউ। রবিবার (২৫ অক্টোবর) থেকেই জারি হয়েছে এই বিধিনিষেধ। শুধু তাই নয়, প্রধানমন্ত্রী আরও জানান, জরুরি অবস্থা চলাকালীন স্থানীয় প্রশাসনের হাতে বেশ কিছু ক্ষমতা দেয়া হয়েছে। যেমন সংক্রমণ রুখতে যাতায়াত নিষিদ্ধ করার ক্ষমতা দেয়া হয়েছে প্রদেশগুলোকে। আপাতত ১৫ দিনের জন্য জরুরি অবস্থা জারি করা হলেও তা বাড়িয়ে ৬ মাস করার জন্য সংসদে আবেদন করবেন বলেও জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী সানচেজ।

রবিবার জনতার উদ্দেশে বার্তায় স্পেনের প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমরা অত্যন্ত কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি। গত ৫০ বছরে এতো বড় বিপদ দেখা দেয়নি।”

উল্লেখ্য, করোনা মহামারীতে ইউরোপের ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলির মধ্যে অন্যতম স্পেন। সে দেশে এপর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩৫ হাজার মানুষের। আক্রান্ত ১০ লক্ষেরও বেশি। শুরু দিকে যাতায়াত নিষিদ্ধ করা থেকে আরম্ভ করে সবচেয়ে কঠিন লকডাউন জারি করে দেশটি। এতে কিছুটা সুফলও মেলে। কিন্তু গত কয়েকদিনে সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে দেশটিতে। তাই পরিস্থিতি সামাল দিতে ফের জরুরি অবস্থা জারি করল দেশটি।

আর চলতি মাসেই জরুরি অবস্থা জারি করেছে ফ্রান্স। নতুন নিয়মে দেশের ৯টি শহরে রাত ৯টা থেকে ভোর ৬টা পর্যন্ত কারফিউ জারি থাকবে। এই নাইট কারফিউ, চলবে অন্তত ৪ সপ্তাহ। এই ৬টি শহর হল, ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস, গ্রেনোবাইল, লিলি, লিয়ঁ, আইক্স-মার্শেই, সেন্ট এটিনে, টিউলস, আইল-ডে-ফ্রান্স এবং মন্টপেলিয়ার। যদি কেউ এই কারফিউ ভঙ্গ করেন তবে তাঁকে ১৩৫ ইউরো জরিমানা দিতে হবে। তারপরই একইভাবে বিধিনিষেধ জারি করে ইতালি।

পিআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়