চলে গেলেন রফিক-উল হক

আগের সংবাদ

ভারতের সঙ্গে ফ্লাইট চালু হবে বুধবার

পরের সংবাদ

অনুশীলনে ব্যস্ত লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা

প্রকাশিত: অক্টোবর ২৫, ২০২০ , ৯:২৭ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ২৫, ২০২০ , ৯:২৭ অপরাহ্ণ

করোনার ভাইরাসের কারণে গত মার্চ থেকে দেশে সব ধরনের ফুটবল বন্ধ। তাই বলে হাত গুটিয়ে বসে নেই বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে)। করোনার দীর্ঘ বিরতির পর নভেম্বরে নেপালের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক ম্যাচ দিয়েই ফুটবল ফেরাতে চাইছে বাফুফে। ১৩ ও ১৭ নভেম্বর ঢাকায় নেপালের বিপক্ষে খেলবেন জামাল ভূঁইয়ারা।

জানা গেছে, ৫ নভেম্বর চার্টার্ড বিমানে করে ঢাকায় আসবে নেপাল। সাধারণত দেশের বাইরে থেকে কেউ এলে ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনের নিয়ম। তবে নেপালের বেলায় এর মেয়াদ কমাতে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছে লিখিত আবেদন (আন্তঃমন্ত্রণালয়ের সভার পর) করেছে বাফুফে। তারা চাইছে কোয়ারেন্টিন পর্বটা যেন কমপক্ষে ৪ থেকে ৫ দিনের হয়। তবে এ সময় দল যেন অনুশীলন করতে পারে তারও অনুমতি চাওয়া হয়েছে সেই আবেদন পত্রে। আজ বাংলাদেশ-নেপাল ম্যাচ নিয়ে ভার্চুয়ালি আন্তঃমন্ত্রণালয়ের সভা হয়েছে। সেখানে অংশ নেন বাফুফের কর্মকর্তারাও। সভা শেষে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাফুফে সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ।

বর্তমানে করোনা পরিস্থিতিতে ম্যাচ দুটি আয়োজন করতে হলে অনেক নিয়ম-কানুন মেনে চলতেই হবে। তাছাড়া সময়ও বেশি নেই। এমন পরিস্থিতিতে নেপাল দল ও বিদেশি কোচিং স্টাফদের কোয়ারেন্টাইন পর্ব কমিয়ে আনতে চাইছে বাফুফে। এ বিষয় আবু নাইম সোহাগ বলেন, আমাদের বিদেশি কোচ ও নেপাল দলের ঢাকায় আসার পর কোয়ারেন্টাইন পর্বটা যেন কমিয়ে আনা হয়, সেই ব্যাপারে সভায় আলোচনা হয়েছে। এই সময়ে তারা শুধু হোটেল আর স্টেডিয়ামে অনুশীলনে যাবে, আবার ফিরে আসবে। এছাড়া আমরা সবাইকে জৈব সুরক্ষার মধ্যেও আনতে চাই। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সঙ্গে এ বিষয় নিয়ে আবারও আলোচনা হবে। আশা করছি, সবকিছু ঠিকঠাক মতো চলবে।

এছাড়া করোনা বিরতির পর অনুশীলন করে ম্যাচ ফিটনেস ফিরে পাওয়া বেশ কঠিন। এই অবস্থায় প্রীতি ম্যাচের আগে ফিটনেস নিয়ে চ্যালেঞ্জিং পরিস্থিতির মাঝে পড়তে হয়েছে জাতীয় দলকে। আজ কমলাপুরের বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে দুইঘণ্টার অনুশীলনে ফিটনেস ফিরে পাওয়ার মিশনে ছিলেন সাদউদ্দিন,ইয়াসিন, রানা ও নাজমুলরা। এদিন অনুশীলনের নমুনা দেখে বোঝা গেছে ফিটনেস ফেরাতে প্রত্যয়ী সাদ-রানারা। এখন শুরুর কদিন যে ফিটনেস নিয়েই বেশি কাজ করতে হবে, সেটি অনুমেয় ব্যাপারই হয়ে দাঁড়িয়েছে সবার কাছে। তাছাড়া করোনা বিরতির পর খেলোয়াড়দের ফিটনেস আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনাটা যে চ্যালেঞ্জিং, সেটি মানতে বাধ্য হচ্ছেন সহকারী কোচ মাসুদ পারভেজ কায়সার।

এদিকে বাংলাদেশ-নেপাল ম্যাচ দুটি সন্ধ্যা ৬টায় আয়োজন করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে বাফুফে। কিন্তু বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ফ্লাট লাইটের তীব্রতা কম থাকায় বিষয়টি নিয়ে জটিলতা রয়েছে। তাই এ নিয়ে জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সঙ্গে ফের সভায় বসতে হবে তাদের। এছাড়া মাঠে দর্শক প্রবেশ নিয়েও আন্তঃমন্ত্রণালয়ের সভাতে আলোচনা হয়েছে। বাফুফে চাইছে এক-তৃতীয়াংশ দর্শক যেন মাঠে উপস্থিত থাকতে পারে। সে জন্য স্বাস্থ্য সুরক্ষা মেনে সবাই যেন মাঠে প্রবেশ করতে পারে, সেই পদক্ষেপও নেবে তারা।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়
close