স্প্যানিশ মিডিয়ার অত্যাচারে জর্জরিত মেসি-ফাতি

আগের সংবাদ

টানা বৃষ্টিতে ফসলহানি, নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

পরের সংবাদ

প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করায় ৬ মাস জেল!

প্রকাশিত: অক্টোবর ২৩, ২০২০ , ১০:২৯ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ২৩, ২০২০ , ১০:২৯ অপরাহ্ণ

করোনা ভাইরাসের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি অমান্য করে প্রেমিকা সোফিজা মিলোসেভিচের সঙ্গে সাক্ষাৎ করায় নিদারুণ বিপদে পড়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের সার্বিয়ান স্ট্রাইকার লুকা জোভিচ। স্বাস্থ্যবিধি না মানায় জেলও হতে পারে তার। সার্বিয়ার প্রসিকিউটর অফিস থেকে জানানো হচ্ছে, স্পেন থেকে দেশে এসে প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মানেননি জোভিচ। শাস্তি থেকে বাঁচতে ইতোমধ্যে ৩০ হাজার ইউরো নাকি জরিমানা দিয়েছেন তিনি।

গত মার্চ মাসে করোনা ভাইরাস মহামারির মধ্য রিয়াল মাদ্রিদের পুরো স্কোয়াড যখন কোয়ারেন্টাইনে তখন সন্তানসম্ভবা সোফিজাকে এক নজর দেখতে সার্বিয়ায় যান জোভিচ। এ জন্য সার্বিয়ায় করোনার যেসব নিয়ম-কানুন আছে সেগুলো মানেননি তিনি। স্বাস্থ্যবিধি না মেনে বান্ধবীকে নিয়ে বহু জায়গায় ঘুরেছেনও। সেগুলোর ছবি এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বলতে গেলে ভাইরাল। সে ধারাবাহিকতায় এখন যেন হাজতবাস অপেক্ষা করছে জোভিচের সামনে।

সার্বিয়ার সংবাদমাধ্যম বরাতে জানা যায়, এই অপরাধে ৬ মাস জেল হওয়ার সম্ভাবনা আছে তার। যদিও লুকা জোভিচের বাবা মিলানের দাবি, তার ছেলে ও সন্তানসম্ভবা প্রেমিকার সেসব ছবিগুলো মূলত স্পেনে তোলা। তবে মার্চে যে জোভিচ দেশে ফিরেছেন, সেটি স্বীকার করে নিয়েছেন মিলান। এমনকি যদি আসলেই নিয়ম ভেঙে থাকেন জোভিচ, তাহলে যথাযথ শাস্তিও মেনে নেয়ার কথা বলেছেন তিনি।

স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম বলছে, লুকার দুই বার করোনা পরীক্ষা করানো হয় এবং দুই বারই নেগেটিভ আসে। তাই সে ভেবেছিল সার্বিয়ায় ফিরতে সমস্যা নেই। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে এটা গুরুতর অপরাধ হয়ে গেছে। তাকে জেলে যেতে হলে যাবে। এ সম্পর্কে জোভিচ জানান, সার্বিয়ার বিচার ব্যবস্থার প্রতি আমার সমর্থন রয়েছে। তবে আমি আসলেই দোষী কিনা তা প্রমাণিত হতে হবে।

আসন্ন এই বিপদের মতো ফুটবল ক্যারিয়ার নিয়েও সুখি নন জোভিচ। রিয়াল মাদ্রিদে এখন পর্যন্ত সব মিলিয়ে ৩১ ম্যাচ খেলে করেছেন ২ গোল। তার ওপর রাখা আস্থার প্রতিদান দিতে পারছেন না। অথচ ফ্রাঙ্কফুর্ট থেকে তার ক্ষুরধার গোলের স্পৃহা দেখেই রিয়াল মাদ্রিদ তার প্রতি আগ্রহ দেখিয়েছিল। জার্মান ক্লাবটির হয়ে ৭৫ ম্যাচে ৩৬ গোল করেছিলেন এই স্ট্রাইকার।

জোভিচের ক্যারিয়ার শুরু হয়েছিল নিজ দেশের ক্লাব রেড স্টার বেলগ্রেডের হয়ে। ২০১৩-১৪ মৌসুমে প্রথম সিনিয়র টিমে সুযোগ পান। ওসবার এক ম্যাচ খেললেও পরের মৌসুমে খেলেছিলেন ২২ ম্যাচ। সার্বিয়ান দলে আরো ১ বছর খেলার পর তিনি পাড়ি জমান পর্তুগালের ক্লাব বেনফিকায়। বেনফিকা থেকে তিনি নাম লেখান জার্মান ক্লাব এইনট্রাঙ্ক ফ্রাঙ্কফুর্টে। ফ্রাঙ্কফুর্ট থেকে ২০১৯-২০ মৌসুমকে সামনে রেখে রিয়ালে আসেন তিনি।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়
close