আবদুল মালেক উকিলের ৩৩তম মৃত্যু বার্ষিকী

আগের সংবাদ

নতুন ট্রেন্ড ‘বেবি বাম্প’!

পরের সংবাদ

জমে ওঠার অপেক্ষায় নাট্যাঙ্গন

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: অক্টোবর ১৭, ২০২০ , ১১:২৪ পূর্বাহ্ণ

রাজধানীর জাতীয় নাট্যশালার তিনটি মিলনায়তন বন্ধ থাকলেও নাট্যদলগুলোর নিজস্ব উদ্যোগে ছুটির দিনে নাট্য প্রদর্শনী ও উৎসবে জমজমাট এখন নাটক পাড়া। বিগত দুই মাস ধরে প্রতি শুক্র ও শনিবার শহরের বিভিন্ন মঞ্চে নাট্য প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তবে জাতীয় নাট্যশালা মিলনায়তনে গত ১৭ আগস্ট সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয় আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের অনুষ্ঠান এবং গতকাল শুক্রবার লালন সাঁইয়ের তিরোধান দিবসের অনুষ্ঠান ছাড়া অন্য কোনো নাটকের প্রদর্শনী হয়নি। এবার আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় নাট্যশালাসহ সারাদেশে নাট্য প্রদর্শনীও শুরু হতে যাচ্ছে।

করোনা পরিস্থিতিতে ৬ মাস পর স্বাস্থ্যবিধি মেনে আগামী ২৩ অক্টোবর থেকে জাতীয় নাট্যশালার তিনটি মিলনায়তনে নাটকের প্রদর্শনী শুরু হবে। প্রাথমিকভাবে নিরীক্ষামূলকভাবে সপ্তাহে শুক্র ও শনিবার নাটক মঞ্চায়নের জন্য মিলনায়তন খুলে দেয়া হবে। পরে পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে নিয়মিত নাট্য প্রদর্শনী শুরু হবে। এ তথ্য জানিয়েছেন বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সেক্রেটারি জেনারেল কামাল বায়েজীদ।

দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হলে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্তের পরিপ্রেক্ষিতে গত ১৮ মার্চ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে শিল্পকলা একাডেমি জাতীয় নাট্যশালাসহ তাদের মিলনায়তনগুলো বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয়। একই দিন বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন তাদের সদস্যভুক্ত সব নাট্য সংগঠনকে সারাদেশে নাট্য প্রদর্শনী বন্ধ রাখার আহ্বান জানায়।

তবে করোনার লকডাউনের সময় দেশের কিছু জায়গায় শারীরিক দূরত্ব মেনে জনসচেতনতামূলক পথনাটকের প্রদর্শনী হতে দেখা যায়। জুলাই মাসে সরকার লকডাউন তুলে নিলে হবিগঞ্জের জীবন সংকেত নাট্যগোষ্ঠী জুলাই মাসের শেষ সপ্তাহে নাটকের প্রদর্শনী করে। ৭ আগস্ট বগুড়া থিয়েটার তাদের নিজস্ব মিলনায়তনে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নাটকের প্রদর্শনী করে। অন্যদিকে ঢাকার মহিলা সমিতি মিলনায়তনে ২৮ আগস্ট শূন্যন রেপার্টরি তাদের ‘লালজমিন’ নাটকটি মঞ্চস্থ করে। একটি আসনের বিপরীতে দুটি করে আসন ফাঁকা রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে নাটকটির প্রদর্শনী হয়। পরে মহিলা সমিতি মঞ্চে জাগরণী থিয়েটারের ‘রাজার চিঠি’, প্রাঙ্গণেমোর-এর ‘আওরঙ্গজেব’, ব-নাটুয়া’র ‘নিশিকাব্য’ নাটকগুলো মঞ্চায়িত হয়। গতকাল শুক্রবার মহিলা সমিতি মিলনায়তনে মঞ্চায়িত হয়েছে শব্দ নাট্যচর্চা কেন্দ্রের নাটক ‘তৃতীয় একজন’।

এছাড়া ৩ সেপ্টেম্বর থেকে ৪ অক্টোবর, রাজধানীর কাঁটাবনে প্রাচ্যনাট তাদের নিজস্ব মহড়া কক্ষে আয়োজন করেছে মাসব্যাপী ‘মহলা মগন’ উঠান নাটকের মেলা। অন্যদিকে গত সেপ্টেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহে দুদিনের নাট্যোৎসবের মধ্য দিয়ে পুরান ঢাকায় যাত্রা শুরু হয় সৈয়দ শামসুল হক মিলনায়তনের। আর গত সপ্তাহে দনিয়া স্টুডিও থিয়েটার মিলনায়তনেও দুদিনের নাট্যোৎসব অনুষ্ঠিত হয় দনিয়া সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে। সব মিলিয়ে নাট্য প্রদর্শনী ও উৎসবে এখন সরগরম থিয়েটার অঙ্গন।

জাতীয় নাট্যশালা খুলে দেয়ার বিষয়ে গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সেক্রেটারি কামাল বায়েজীদ বলেন, ‘গত ১৭ আগস্ট ফেডারেশন থেকে শিল্পকলার কাছে মিলনায়তন খুলে দেয়ার আহŸান জানিয়ে একটি চিঠি দেয়া হয়। এর প্রেক্ষিতে শিল্পকলা একাডেমি কর্তৃপক্ষ ২৩ অক্টোবর থেকে জাতীয় নাট্যশালা খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়েছে। মিলনায়তনের পাশাপাশি নাট্যশালার মহড়া কক্ষও খুলে দেয়া হবে। স্বাস্থ্যবিধি মানার জন্য একটি নীতিমালাও প্রণয়ন করা হয়েছে। আপাতত সপ্তাহে শুক্র ও শনিবার নাটক মঞ্চায়নের জন্য মিলনায়তন খুলে দেয়া হবে। পরে পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে নিয়মিত নাট্য প্রদর্শনী শুরু হবে।’

এমএইচ