বইছে অর্থনীতিতে সুবাতাস

আগের সংবাদ

ধর্ষণের কারণ নিয়ে কিছু কথা

পরের সংবাদ

অনলাইনের মাধ্যম

সারাদেশে আরো নয়টি আঞ্চলিক অফিসে ই-পাসপোর্ট

প্রকাশিত: অক্টোবর ১৪, ২০২০ , ৫:৫০ অপরাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ১৪, ২০২০ , ৬:৩১ অপরাহ্ণ

ই-পাসপোর্টের নতুন প্রযুক্তির সাথে খাপ খাইয়ে নিজেদের প্রশিক্ষিত করার পাশাপাশি পাসপোর্ট সেবা সফলভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আবেদনকারীদের ও প্রশিক্ষিত করার বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেছেন ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আইয়ূব চৌধূরী, পিবিজিএমএস, এনডিসি, পিএসসি।

আজ সকালে উত্তরাস্থ পাসপোর্ট পার্সোনালাইজেশন সেন্টারে ই-পাসপোর্ট ও স্বয়ংক্রিয় বর্ডার নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থাপনা প্রবর্তন প্রকল্প কর্তৃক একযোগে অনলাইনের মাধ্যমে সারাদেশের নয়টি আঞ্চলিক অফিসে ই-পাসপোর্ট চালু উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। এ সময় তিনি জনসাধারণকে ই-পাসপোর্টের আবেদন করতে উদ্ভুদ্ধ করেন এবং আবেদনকারীদের কাছে পাসপোর্ট আবেদনের প্রক্রিয়া সহজবোধ্য করার প্রয়োজনীয় উদ্যেগ নেয়ার জন্য কর্মকর্তাদের নির্দেশনা প্রদান করেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে ই-পাসপোর্টের প্রকল্প পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাইদুর রহমান খান, এনডিসি, পিএসসি, টিই ও অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (মাসব্য ও অর্থ) এ, টি, এম আবু আসাদ উপস্থিত ছিলেন। এ সময় অনলাইনের মাধ্যমে সকল বিভাগীয় পাসপোর্ট ও ভিসা অফিসের প্রধানগণসহ উদ্ভোধনকৃত অফিসের অফিস কর্মকর্তাগণ এবং সংশ্লিষ্ট জেলার জেলা প্রশাসকগণের প্রতিনিধিবৃন্দ যুক্ত ছিলেন। এর মাধ্যমে আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, জামালপুর, শেরপুর, নেত্রকোনা, মাদারীপুর, ফরিদপুর, রাজবাড়ী, ঝিনাইদহ, সাতক্ষীরা ও বাগেরহাট এই ০৯ (নয়) টি অফিসসহ এ পর্যন্ত ৫২টি অফিসে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম চালু করা হলো।

দেশের অভ্যন্তরে ৬৭টি অফিসের মধ্যে বাকী অফিসগুলোতে আগামী ০১ (এক) মাসের মধ্যে ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম চালু করা হবে। ক্রমান্বয়ে বিদেশস্থ মিশনসমূহেও ই-পাসপোর্ট কার্যক্রম চালু করা হবে বলেও ইমিগ্রেশন ও পাসপোর্ট অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়। উল্লেখ প্রধানমন্ত্রী চলতি বছরের জানুয়ারী মাসে ই-পাসপোর্ট ও পাসপোর্ট পার্সোনালাইজেশন কমপ্লেক্স উদ্বোধনের পর থেকে অনলাইনে ই-পাসপোর্টের আবেদন কার্যক্রম শুরু হয়। এর আগে গত ১৯ জুলাই ২০১৮ বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান, এমপি’র উপস্থিতিতে জি টু জি পদ্ধতিতে জার্মান ভিত্তিক কোম্পানি ভেরিডোজ জিএমবিএইচ এর সাথে ই-পাসপোর্ট ও স্বয়ংক্রিয় বর্ডার কন্ট্রোল ব্যবস্থাপনা প্রবর্তন শীর্ষক প্রকল্পের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। ই-পাসপোর্ট একটি পরীক্ষিত, নিরাপদ ও ঝুঁকিমুক্ত ভ্রমণ দলিল । ই-পাসপোর্টের ডাটাপেইজে রক্ষিত মাইক্রোপ্রসেসর চিপে পাসপোর্ট আবেদনকারীর সকল তথ্য, স্বাক্ষর, ছবি, চোখের কর্ণিয়া এবং ফিঙ্গারপ্রিন্ট সিল্ড অবস্থায় সুরক্ষিত থাকে বিধায় তা কোন ভাবেই পরিবর্তন করা সম্ভব নয়।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়