ডিজিটাল যুগে এনালগ রেল

আগের সংবাদ

১২৮ কিলোমিটার নেটওয়ার্ক গড়ার পরিকল্পনা মেট্রোরেলে

পরের সংবাদ

রেলের উন্নয়নে সংস্কার জরুরি

প্রকাশিত: অক্টোবর ৩, ২০২০ , ৯:২৬ পূর্বাহ্ণ আপডেট: অক্টোবর ৩, ২০২০ , ২:৪৪ অপরাহ্ণ

রেলের প্রচুর অর্থ ব্যয় করে যে উন্নয়ন হচ্ছে তা সত্যিকার অর্থে কাজে আসবে না, যদি রেলের কর্মীরা তা গ্রহণ করার মতো যোগ্য না হন। সে কারণে রেলের নিজস্ব মান্ধাতার আমলের পরিচালন পদ্ধতি বদল করে প্রচুর সংস্কার করার পরামর্র্শ দিয়েছেন যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ ও বুয়েটের পুরকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. এম. শামসুল হক।

এই যোগাযোগ বিশেষজ্ঞ বলেন, আসলে কোনো সরকারি প্রতিষ্ঠান শতভাগ সেবা দিতে পারে না। নৌ, বিমান ও সড়কপথ বর্তমানে পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপে চলে, সে কারণে সেখানে কিছুটা হলেও জনগণ সেবা পায়। কিন্তু রেল একমাত্র প্রতিষ্ঠান যা শতভাগ সরকারি, সে কারণে এখান থেকে গ্রহীতারা বা যাত্রীরা সে মানের সেবা পাচ্ছে না। সারা বিশ্বে পাবলিক প্রাইভেট পার্টনার শিপের আওতায় এনে সেবার মান বাড়িয়ে দুর্নীতি কমিয়েছে। কিন্তু আমরা তা করছি না।

ড. শামসুল হক বলেন, রেলের বেশি প্রয়োজন ছিল সংস্কার, কিন্তু সরকার তা না করে উন্নয়নের দিকে বেশি জোর দিয়েছে। এখানে রেলের ব্যাপারে সরকারি দর্শনটা ঠিক নেই। কেননা, উন্নয়নের ভার আমি সহ্য করতে পারব কিনা তা বিবেচনায় না নিয়ে, অভ্যন্তরীণ জনবলকে উপযুক্ত করে তৈরি না করে শুধু বাইরের উন্নয়ন করলে তা কাজে আসে না।

তিনি বলেন, রেলের মাস্টারপ্ল্যানের ফোকাস হওয়া উচিত মানবসম্পদ তৈরি করা, অভ্যন্তরীণ উন্নয়ন করা। এখানেও প্রাইভেট সেক্টরকে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। সেই সঙ্গে রেলের গতি বাড়াতে হবে। ২টি ৫০ কি.মি. গতির ট্রেনের চেয়ে ১টি ১০০ কি.মি. গতির ট্রেন চালালে আমার দুটো ট্রেন কিনতে হবে না। লোকবল লাগবে কম।

তিনি আরো বলেন, আগে দরকার রেলের সংস্কার করা, তারপর উন্নয়ন করতে হবে। তাহলে তা স্থায়িত্ব পাবে। বিশে^র সঙ্গে তাল মিলিয়ে রেলের আইটি সেক্টরসহ সেসব জায়গায় প্রচুর অনিয়ম, দুর্নীতি হওয়ার সম্ভাবনা সেগুলো আগে সংস্কার করতে হবে। তা না হলে সেবাটা সঠিকভাবে কাজ দেবে না। তাই রেলের উন্নয়নে অর্থ ঢালার আগে প্রচুর পরিমাণ নিজস্ব সংস্কার করা প্রয়োজন।

এমএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়