কুমিল্লায় বাস-মাইক্রোবাস সংঘর্ষে নারীসহ নিহত ২

আগের সংবাদ

রতন কাহারকে নিয়েই ফিরছেন জ্যাকলিন

পরের সংবাদ

খুলছে ভারতের সিনেমা হল

পূজা রিলিজে প্রস্তুত বড় তারকারা

মেলা ডেস্ক

প্রকাশিত হয়েছে: অক্টোবর ৩, ২০২০ , ১২:২৯ অপরাহ্ণ

আগামী ১৬ অক্টোবর খোলা হবে বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহ। প্রায় একই সময়ে ভারতের সব সিনেমা হলও খুলে দেয়া হচ্ছে। ১৫ অক্টোবর দেশটির সব রাজ্যের সিনেমা হল, থিয়েটার ও মাল্টিপ্লেক্স খুলে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। গত ৩০ সেপ্টেম্বর এই নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, মোট আসনের ৫০ শতাংশ ব্যবহার করা যাবে। বাকিটা ফাঁকা রাখতে হবে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, এটি মূলত ১৬ অক্টোবর হবে। কারণ, শুক্রবার থেকেই হলের ওপেনিং ধরা হয়। সে হিসেবে বাংলাদেশের সঙ্গেই উপমহাদেশের সবচেয়ে বড় সিনেমা বাজার চালু হচ্ছে। জানা যায়, এমন খবরে সিনেমাপাড়ায় প্রস্তুতির ধুম পড়েছে। ওটিটিতে মুক্তির অপেক্ষায় থাকা অনেক ছবিই এখন প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির কথা ভাবছে। এদিকে পূজার বেশি দিন বাকি নেই। তাই পূজা রিলিজ কী কী হতে পারে তা নিয়ে ইতোমধ্যেই চিন্তাভাবনা শুরু করে দিয়েছেন তারা। এসভিএফ থেকে সুরিন্দর, উইন্ডোজ ইতোমধ্যেই নতুন ছবি মুক্তি নিয়ে আলোচনা চালাচ্ছে বিভিন্ন হল মালিকদের সঙ্গে। অন্যদিকে হল মালিকদেরও প্রস্তুতি তুঙ্গে। শোনা যাচ্ছিল, পরবর্তী পদক্ষেপ কী হবে তা নিয়ে আজ ঘরোয়া বৈঠকে বসার কথা ছিল নবীনা সিনেমা হলেন কর্ণধার নবীন চৌখানি, পরিচালক শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়, সুরিন্দর ফিল্মসের কর্ণধার নিসপাল সিং রানে এবং পঙ্কজ লাডিয়ার। নবীন চৌখানি অবশ্য বলেন, ‘এ রকম কোনো মিটিং ডাকা হয়নি ঠিকই তবে আমি ইতোমধ্যেই আমার হলকর্মীদের নিয়ে মিটিং করেছি। এসি মেশিন। প্রজেক্টর ঠিক রয়েছে কিনা, সব খতিয়ে দেখতে হবে।’
সিনেমা হল খোলা হলেও টিকেট বিক্রির প্রক্রিয়া নিয়ে ইতোমধ্যেই তৈরি হয়েছে সংশয়। অনলাইন টিকেট বিক্রির অপশন রয়েছে ঠিকই, কিন্তু তা শুধুই মাল্টিপ্লেক্স এবং হাতেগোনা কয়েকটি সিঙ্গেল স্ক্রিনের ক্ষেত্রে। জানা যাচ্ছে, ইতোমধ্যেই বুক মাই শোসহ বিভিন্ন টিকেট অ্যাপের কাছে সিঙ্গেল স্ক্রিনের মালিকেরা গোটা বুকিংই অনলাইন করার জন্য আবেদন করেছেন। নবীন চৌখানি জানান, ৫০ শতাংশ দর্শক নিয়ে সিনেমা দেখালে সিটের বিন্যাসও বদলাবে। সেক্ষেত্রে নতুনভাবে কী করা যেতে পারে তা নিয়ে ইতোমধ্যেই ‘বুক মাই শো’র সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি।

এবার প্রশ্ন হলো পূজায় হলে কী কী ছবি মুক্তি পাবে? এই প্রসঙ্গে এসভিএফের কর্ণধার মহেন্দ্র সোনি জানান, ‘এই মুহূর্তে যা অবস্থা তাতে সব দর্শকই বড় পর্দায় ছবি দেখার জন্য মুখিয়ে রয়েছেন। পূজাতেই নতুন সিনেমা আনছি আমরা। আগামী ২৩ অক্টোবর মুক্তি পেতে চলেছে অনির্বাণ ভট্টাচার্য এবং মিমি চক্রবর্তী অভিনীত ‘ড্রাকুলা স্যার’। সৃজিত মুখোপাধ্যায় পরিচালিত ‘কাকাবাবুর প্রত্যাবর্তন কি আসছে এই পূজায়? সৃজিত আগেই জানিয়েছিলেন, ‘এখনই বিগ বাজেটের এই ছবির হলমুক্তি সম্ভব নয়’। এ দিন ওই ছবির প্রযোজনা সংস্থা এসভিএফও জানিয়ে দেন, আপাতত পূজাতে ‘কাকাবাবুর প্রত্যাবর্তন’ মুক্তির কোনো সম্ভাবনাই নেই।

অন্যদিকে আর এক প্রযোজনা সংস্থা সুরিন্দর জানিয়ে দিয়েছে, এই পূজায় দর্শকের জন্য তারা নিয়ে আসছেন আনকোরা দুটি নতুন ছবি। ‘রক্তরহস্য’ এবং ‘লাভ স্টোরি’। কোয়েল মল্লিক অভিনীত ‘রক্তরহস্য’ মুক্তির কথা ছিল গত ১০ এপ্রিল। আদপে সাসপেন্স থ্রিলার এই ছবি করোনার কারণে পিছিয়ে যায়। এ দিন সুরিন্দর ফিল্মসের পক্ষ থেকে জানান হয়, আর অপেক্ষা নয়, পূজাতেই দর্শকের জন্য এই ডাবল ধামাকা নিয়ে আসছে সুরিন্দর।

পাশাপাশি শিবপ্রসাদ-নন্দিতার প্রযোজনা সংস্থা ‘উইন্ডোজ’ থেকে এই পূজায় নতুন ছবি মুক্তি না পেলেও পুনরায় মুক্তি পাচ্ছে ‘ব্রহ্মা জানেন গোপন কম্মটি’। অরিত্র মুখোপাধ্যায়ের পরিচালনায়, ঋতাভরী চক্রবর্তী অভিনীত ওই ছবিটি হলে মুক্তির মাত্র ১০ দিন পরেই করোনার কারণে বন্ধ করে দিতে হয়। যদিও ওই ১০ দিনই বেশ ভালোই ব্যবসা করেছিল ছবিটি। শিবপ্রসাদ জানালেন, ‘লকডাউনের সময় অনলাইনে এই ছবিটি মুক্তির জন্য আমার কাছে কিন্তু বেশ কয়েক বার অফার এসেছিল। আমি তাদের বলেছিলাম আমার ছেলেমেয়েরা অনেক কষ্ট করে ছবিটা বানিয়েছে। হল খুললে হলেই আবার রিলিজ করতে দিন ছবি।’ অবশেষে তাই হচ্ছে, পূজার আবহে ঋতাভরীর ‘দশহাত’ এবং ‘ব্রহ্মা জানেন’… দর্শকের সামনে আসছে। সব কিছু ঠিক থাকলে আগামী ১৫ অক্টোবর প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাবে ছবিটি।

নবীন চৌখানি জানালেন, ইতোমধ্যেই উইন্ডোজের ‘ব্রহ্মা জানেন…’ এবং এসভিএফের ‘ড্রাকুলা স্যর’ নিয়ে তার সঙ্গে এক প্রস্থ আলোচনা হয়েছে ওই দুই সংস্থার। পূজাতে নবীনা সিনেমা হলেও দেখা যাবে ওই দুই ছবি।

এছাড়াও পূজাতে আসছে মিমি-নুসরত এবং যশ দাশগুপ্ত অভিনীত ছবি ‘এস ও এস কলকাতা’। লকডাউনের পরেই এই ছবির শুটিং হয়েছে। এই ছবিতেই প্রযোজক হিসেবে অভিষেক ঘটেছে অভিনেত্রী এনা সাহার। শোনা যাচ্ছে, মুক্তি পেতে চলেছে রাজ চক্রবর্তীর ছবি ‘ধর্মযুদ্ধ’ও। তবে রাজের আর এক ছবি ‘হাবজি গাবজি’ মুক্তি পাবে ডিসেম্বরে। পূজায় মুক্তি পাচ্ছে না অরিন্দম শীলের ছবি ‘মায়াকুমারী’। যদিও পূজাতেই হলে মুক্তি পাচ্ছে অঞ্জন দত্তের ‘সাহেবের কাটলেট’। পরিচালক শিবপ্রসাদ বলেন, ‘হল খোলা যেমন ইন্ডাস্ট্রির কাছে আনন্দের খবর তেমনি হলে দর্শকদের সুরক্ষার কথাটাও এবার মাথায় রাখতে হবে।’ অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী বলেন, ‘পূজা মানেই চারদিক থেকে পজিটিভ নানা ক্ষেত্র তৈরি হওয়া। তাই সিনেমা হল খুলছে। কম হলেও দর্শক ছবি দেখতে তো আসবে।’

ডিসি