বখাটেপনায় দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে জনজীবন

আগের সংবাদ

শিক্ষা কার্যক্রম স্বাভাবিক হবে কখন

পরের সংবাদ

বিশ্বব্যাপী সাইবার হামলায় রাশিয়া জড়িত!

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০ , ৯:৪৭ অপরাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০ , ৯:৫০ অপরাহ্ণ

ব্রিটেন ও অস্ট্রেলিয়া গোয়েন্দা সংস্থার দাবি, বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে যত সাইবার হামলা হয় তার সবগুলোতে রাশিয়া জড়িত। উদাহরণ হিসেবে ২০১৭ সালে ওডেসা বিমানবন্দর এবং কিয়েভের সাবওয়ে লক্ষ্য করে ব্যাডব়্যাবিট ব়্যানসমওয়্যার হামলাকে দায়ী করে ব্রিটেন বলেছে, বিশ্বজুড়ে রাজনৈতিক প্রতিষ্ঠান, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, মিডিয়া ও ক্রীড়াসংস্থায় অনলাইন আক্রমণের পেছনে যে রাশিয়ার সেনা গোয়েন্দা সংস্থা জিআরইউ রয়েছে, এ বিষয়ে তাঁরা নিশ্চিত।

এছাড়া, ২০১৬ সালে মার্কিন ডেমোক্র্যাটিক ন্যাশনাল কমিটির তথ্য হ্যাক করা এবং ২০১৫ সালে যুক্তরাজ্যভিত্তিক একটি টেলিভিশন স্টেশন থেকে ই-মেইল চুরির ঘটনায়ও রুশ গোয়েন্দারা জড়িত বলে অভিযোগ ব্রিটিশ ন্যাশনাল সাইবার সিকিউরিটি সেন্টার- এনসিএসসির।

এরই মধ্যে এপিটি২৮, পন স্টর্ম, স্যান্ডওয়ার্ম, ফেন্সি বেয়ার এবং সোফাসি গ্রুপের মতো বেশকিছু হ্যাকিং গ্রুপ জিআরইউর সাথে সম্পৃক্ত বলে শনাক্ত করেছে ব্রিটিশ সংস্থাটি। অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন জানিয়েছেন, ক্যানবেরার গোয়েন্দারাও ‘সন্দেহজনক সাইবার কার্যক্রমে’ মস্কোর সম্পৃক্ততা খুঁজে পেয়েছেন। দেশটির এক সরকারি বিবৃতিতে বলা হয়, ‘‘রুশ সেনাবাহিনী এবং তাঁদের গোয়েন্দা সংস্থা- জিআরইউ এই ধরনের বিদ্বেষপূর্ণ সাইবার কার্যক্রমের জন্য দায়ী। রাশিয়াসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশ সাইবার স্পেসে আন্তর্জাতিক আইন মেনে চলার অঙ্গীকার করেছে।

‘বাছবিচারহীন ও বেপরোয়া’ ব্যবহার

বৃহস্পতিবার ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট এক বিবৃতিতে বলেন, এই ধরনের কার্যক্রমে আন্তর্জাতিক আইন বা প্রচলিত নিয়মের তোয়াক্কা না করার মানসিকতা প্রতিফলিত হয়। তিনি বলেন, জিআরইউর এমন কার্যক্রম বেপরোয়া ও বাছবিচারহীন৷ অন্য দেশের নির্বাচন প্রভাবিত করার চেষ্টা তো করেছেই, নিজ দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও নাগরিকের ক্ষতি করতেও তাঁরা প্রস্তুত৷’’ এসব আক্রমণে দেশটির জাতীয় অর্থনীতিতে কয়েক মিলিয়ন পাউন্ডের ক্ষতি সাধন করেছে বলেও অভিযোগ করেন হান্ট।

তিনি হুঁশিয়ারি দেন, আমরা পরিষ্কার বার্তা দিতে চাই৷ আন্তর্জাতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে বন্ধু রাষ্ট্রদের সাথে মিলে আমরা জিআরইউর সব কর্মকাণ্ড উন্মোচন করবো, জবাবও দেবো। বছরের শুরুর দিকে সাবেক রুশ গুপ্তচর সের্গেই স্ক্রিপাল ও তাঁর মেয়েকে বিষপ্রয়োগে হত্যাচেষ্টায় রুশ গোয়েন্দাদের দায়ী করে আসছে যুক্তরাজ্য৷ এরপর থেকে যুক্তরাজ্য ও রাশিয়ার মধ্যে সম্পর্কে বেশ তিক্ততা দেখা দিয়েছে৷ জিআরইউর হয়ে কাজ করার সময় রাশিয়ার গোপন তথ্য ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থা– এমআইসিক্সের কাছে বিক্রি করছিলেন স্ক্রিপাল। রাশিয়া অবশ্য বরাবরই স্ক্রিপাল হত্যাচেষ্টায় সম্পৃক্ততা অস্বীকার করে আসছে।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়