বাংলাদেশ পুলিশ চ্যাম্পিয়ন

আগের সংবাদ

সততার দৃষ্টান্ত দেখালেন রিকশাচালক

পরের সংবাদ

অপপ্রচারের বিরুদ্ধে বাফুফের আইনি নোটিস

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২০ , ১০:০৩ অপরাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৭, ২০২০ , ১০:০৩ অপরাহ্ণ

করোনা ভাইরাসের মহামারির মধ্যে ৩ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) নির্বাচন। এবার আসন্ন নির্বাচনে সভাপতি পদে কাজী সালাউদ্দিনের বিপক্ষে লড়াই করবেন সাবেক ফুটবলার সফিকুল ইসলাম মানিক ও বাদল রায়। এরপর নির্বাচনের গরম হাওয়া বইতে শুরু করে। কিন্তু করোনা থেকে সুস্থ হবার পর শারীরিক সমস্যার কারণে বাদল রায় সরে দাঁড়ান। এতে ফের সমালোচনা শুরু হয়। এমনকি নির্বাচনকে সামনে রেখে কিছু ব্যক্তি বা গোষ্ঠী বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মিথ্যা তথ্য দিয়ে কুরুচিপূর্ণ, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত, মানহানিকর, আক্রমণাত্মক ও অপমানজনক পোস্ট দেয়া শুরু করেছে। এর মাধ্যমে জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকে হেয় করার চেষ্টা করছে একটি মহল। তাই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে বাফুফের ভাবমূর্তি বিনষ্টকারীদের বিরুদ্ধে আইনি নোটিস জারি করেছে বাংলাদেশের ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থা। জানা গেছে, নোটিস জারির পর কেউ তানা মানলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়ার হুঁশিয়ারি দেয়া হয়েছে।

বাফুফের পক্ষে এই নোটিস জারি করেছেন তাদের আইন উপদেষ্টা সুপ্রিম কোর্টের এডভোকেট এম এইচ তানভীর। নোটিস গ্রহীতারা হচ্ছেন যারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইউটিউব, ফেসবুক আইডি, গ্রুপ, পেইজ এবং ওয়েবসাইট ব্যবহার করে মিথ্যা ও মানহানিকর তথ্য প্রচার ও পরিবেশন করছেন তারা। পাঁচ পৃষ্ঠার নোটিসের সারমর্ম হলো, বাংলাদেশের ফুটবল ঐতিহ্য সমুন্নত রাখতে বিভিন্ন কার্যক্রম চলমান রয়েছে। বাংলাদেশের প্রতিনিধি ফিফায় আছেন। এছাড়া ফিফা ও এএফসির বিভিন্ন কমিটিতে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব রয়েছে, সেহেতু আমার মক্কেলের (বাফুফে) আগামী নির্বাচনে কার্যকরী কমিটি গঠনের নিমিত্তে সব সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারীদের আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়া উচিত।

নোটিসে আরো বলা হয়েছে, ৮ সেপ্টেম্বর বাফুফের ভেরিফায়েড পেজে বাফুফে নির্বাচন নামক শিরোনামে প্রকাশিত হওয়ার পরই কিছু যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহারকারী কুরুচিপূর্ণ অসৌজন্যমূলক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মানহানিকর আক্রমণাত্মক ভিত্তিহীন মন্তব্য করেছেন। যা তাদের ইচ্ছাকৃতভাবে বা জ্ঞাতসারে কৃতকর্মের সামিল। নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার পর হতে নির্বাচনকে প্রভাবিত করার জন্য বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যবহারকারীরা নিজেরা ফেসবুক গ্রুপ, ইউটিউব চ্যানেলের মাধ্যমে এডমিন হয়ে বাফুফের নাম ও লোগো বিভিন্ন অনুষ্ঠানের ছবি এবং ভিডিও ফুটেজ অনুমতি ছাড়া যত্রতত্র ব্যবহার করে বাফুফের বিরুদ্ধে নানাভাবে অপপ্রচার করে যাচ্ছেন। যার সঙ্গে আমার বাফুফে কোনোভাবেই জড়িত নয়। ফিফা অফিসিয়াল পেজে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করে বিশ্ব দরবারে বাংলাদেশকে হেয় করা হয়েছে। এই আইনগত বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে দায়িত্বশীল হয়ে গঠনমূলক সৌজন্যমূলক উপদেশমূলক মন্তব্য করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধও করা হলো। এই নোটিস প্রদানের পর থেকে যেকোনোভাবে মানহানিকর পোস্ট, বিবৃতি ভিডিও বার্তা প্রদান করে থাকলে বা এই কাজকে উৎসাহিত করে থাকলে কিংবা আসন্ন বাফুফের নির্বাচনে প্রভাবিত করার চেষ্টা করলে সেক্ষেত্রে তাদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ অনুযায়ী ও বাংলাদেশের প্রচলিত আইন অনুযায়ী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ইতোমধ্যে নোটিসের অনুলিপি পাঠানো হয়েছে পুলিশের আইজি, ঢাকার পুলিশ কমিশনার, বিটিআরসির চেয়ারম্যান, ঢাকার জেলা প্রশাসক, র‌্যাবের মহাপরিচালক ও পুলিশের সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন ডিভিশন (সিটিটিসি) ও মিডিয়ার প্রতিনিধিদের কাছে।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

যে মন্তব্যগুলো খবরের বিষয়বস্তুর সাথে মিল আছে এবং আপত্তিজনক হবে না সেই মন্তব্যগুলোই দেখানো হবে। প্রকাশিত মন্তগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত। পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য ভোরের কাগজ লাইভ কোন দায়ভার গ্রহণ করবে না।

জনপ্রিয়