ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের দ্বিশত জন্মবার্ষিকী

আগের সংবাদ

নগরজুড়ে গ্যাস বোমা!

পরের সংবাদ

সাভারে স্কুলছাত্রী হত্যা

পাঁচদিন পর দুই সহযোগীসহ মিজান গ্রেপ্তার

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০ , ১২:৪৩ পূর্বাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০ , ১২:৫৩ পূর্বাহ্ণ

ঢাকার সাভারে স্কুলছাত্রী নীলা রায় হত্যাকাণ্ডের পাঁচদিন পর অবশেষে মামলার প্রধান আসামি বখাটে মিজানুর রহমানকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। একই সঙ্গে তার দুই সহযোগী সাথী ও জয়কে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) রাতে সাভারের তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের রাজফুলবাড়িয়ায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত ছুরিও উদ্ধার করা হয়েছে।

সাভার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম জানান, গোপন সূত্রে খবর পাওয়া যায় যে, নীলা হত্যা মামলার প্রধান আসামি মিজানুর (২০) তার দুই সহযোগী সাথী (২১) ও জয়কে (২০) নিয়ে রাজফুলবাড়িয়ার কর্নেল ব্রিকস ফিল্ডের পাশে স্থানীয় পারভেজের বাড়িতে বসে মাদক সেবন করছেন।

ঘাতকমিজান ও নিহত স্কুলছাত্রী নীলা রায়।

তাদের ধরার জন্য অভিযান চালানো হয়। পরে ঘটনাস্থল থেকে রাত ১০টার দিকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। মিজানের দুই সহযোগী জানিয়েছেন হত্যাকাণ্ডের সময় তারা সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাতে মিজানুরের বাবা আবদুর রহমান (৬০) ও মা নাজমুন্নাহার সিদ্দিকাকে (৫০) মানিকগঞ্জের সিঙ্গাইর উপজেলার চারিগ্রাম থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ শুক্রবার তাদের তিনদিনের রিমান্ডে নিয়েছে।

তাছাড়া গেল মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) বখাটে মিজানুরের আরেক সহযোগী সেলিম পালোয়ান নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তিনিও হত্যাকাণ্ডের সময় উপস্থিত ছিলেন।

নীলা রায়

গত ২০ সেপ্টেম্বর রাত আটটার দিকে ভাইয়ে সঙ্গে রিকশায় করে চিকিৎসা নেয়ার জন্য হাসপাতালে যাওয়ার পথে নীলাকে ছিনিয়ে নেন বখাটে মিজানুর। পরে তাকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

পরদিন ২১ সেপ্টেম্বর রাতে নীলার বাবা নারায়ণ রায় সাভার থানায় মিজানুর, তার বাবা আবদুর রহমান, মা নাজমুন্নাহার সিদ্দিকাসহ অজ্ঞাতনামা আরও চারজনকে আসামি করে মামলা করেন। নীলার পরিবারের অভিযোগ, প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় নীলাকে হত্যা করেন মিজানুর। তিনি স্থানীয় একটি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী।

এনএম

মন্তব্য করুন

যে মন্তব্যগুলো খবরের বিষয়বস্তুর সাথে মিল আছে এবং আপত্তিজনক হবে না সেই মন্তব্যগুলোই দেখানো হবে। প্রকাশিত মন্তগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত। পাঠকের কোন মন্তব্যের জন্য ভোরের কাগজ লাইভ কোন দায়ভার গ্রহণ করবে না।

জনপ্রিয়