সাভারের কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে মুখ খুললেই খড়গ

আগের সংবাদ

নীলা হত্যা : মিজানের বাবা-মা গ্রেপ্তার

পরের সংবাদ

দীপিকা ও রাকুল জেরার মুখোমুখি হবে আজ

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০ , ৯:৪৮ পূর্বাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০ , ৯:৫৫ পূর্বাহ্ণ

মাদককাণ্ডে সরগরম বলিউড

মাদক তদন্তে উঠেপড়ে লেগেছে ভারতের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি)। অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের রহস্যময় মৃত্যুর তদন্তের সূত্রেই বিটাউনে মাদকচক্রের হদিস পায় তারা। সুশান্তের মাদক সেবনের সঙ্গী হওয়ায় প্রথমেই তলব করা হয় প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীতে। জেরার মুখে প্রায় ২৫ জন তারকার নাম বলে দেন রিয়া, যাদের সঙ্গে মাদকের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। এরপর থেকেই মাদককাণ্ড নিয়ে সরগরম বলিউড। প্রতিদিনই উঠে আসছে কারো না কারো নাম।

তবে সবার চক্ষু চড়কগাছ! এনসিবির তরফে দীপিকা পাডুকোন, সারা আলি খান, শ্রদ্ধা কাপুর ও রাকুল প্রীত সিংহের মতো তারকাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকার পরই। ৩ দিনের মধ্যে এই ৪ বলি অভিনেত্রীকে তাদের দপ্তরে উপস্থিত হওয়ার নির্দেশ দেয় এনসিবি। এর আগে মঙ্গলবার দীপিকা পাড়–কোনের ম্যানেজার কারিশমা প্রকাশকেও তলব করা হয়। কিন্তু শরীর খারাপের কারণ দেখিয়ে হাজির হননি তিনি।

এনসিবি দপ্তরে হাজিরা দিতে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে মুম্বাই বিমানবন্দরে পা রাখেন দীপিকা পাড়–কোন ও সারা আলি খান। সারার সঙ্গে ছিলেন তার মা অমৃতা সিংহ। সারা গোয়ায় গিয়েছিলেন পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে। আর পরিচালক শকুন বাত্রার ছবির শুটিংয়ে গোয়া গিয়েছিলেন দীপিকা। মাদক সংশ্লিষ্টতায় বুধবার সারা এবং দীপিকাকে সমন পাঠায় এনসিবি। সমন পাওয়ার পরই গোয়ার হোটেল থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ৩ জন বর্ষীয়ান আইনজীবীর পাশাপাশি ১২ জনের লিগ্যাল টিমের সঙ্গে আলোচনা করেন দীপিকা। ওই ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত ছিলেন তার স্বামী রণবীর সিংও।

এনসিবি সূত্রে জানা গেছে, আজ শুক্রবারই তাদের দপ্তরে হাজিরা দেবেন দীপিকা ও রাকুল। এই পরিপ্রেক্ষিতে গতকালই এনসিবি কার্যালয়ের চারপাশ নিরাপত্তার মোড়কে ঘিরে ফেলা হয়েছে। বলিউডের সর্বোচ্চ পারিশ্রমিকপ্রাপ্ত অভিনেত্রী দীপিকার আগমনে ভিড় বাড়তে পারে, তৈরি হতে পারে বিশৃঙ্খলা। এই আশঙ্কাতেই মুম্বাই পুলিশের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। অন্যদিকে শ্রদ্ধা এবং সারাকে ডাকা হয়েছে আগামীকাল শনিবার।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার সকালে এনসিবির দপ্তরে যান নামকরা ফ্যাশন ডিজাইনার সিমন খাম্বাট্টা। মাদক কাণ্ডে নাম জড়িয়েছে তারও। এরপর সেখানে পৌঁছান সুশান্তর সাবেক ম্যানেজার শ্রুতি মোদি। বলিউডের মাদক কাণ্ডে প্রথমবার জিজ্ঞাসাবাদের জন্য এনসিবি দপ্তরে যান সিমন। শ্রুতিকে এর আগে বেশ কয়েকবার জেরা করেছে এই সংস্থা।
এনসিবি সূত্রে খবর, রাকুল এবং সারার নাম প্রথমবার এনসিবির কাছে ‘ফাঁস’ করেন রিয়াই। সিমনের নামও প্রকাশ করেন তিনি। বিটাউনের সবাই জানেনÑ রাকুল, সারা এবং রিয়া একসময় খুব ভালো বন্ধু ছিলেন। বহুবার একসঙ্গে ক্যামেরাবন্দি হয়েছেন তারা। মাঝেমধ্যেই সুশান্তের লোনাভালার ফার্মহাউসে পার্টি থেকে শুরু করে একসঙ্গে ঘুরতেও যেতেন তারা। কারো কারো ধারণা, ওই পার্টিই ছিল ‘ড্রাগের আখড়া’। মদ, গাঁজা তো ছিলই একই সঙ্গে চলত নানা নিষিদ্ধ মাদক!

অন্যদিকে শ্রদ্ধা কাপুরের নাম রিয়া নেননি। তার প্রসঙ্গে টেনে আনেন সুশান্তের সাবেক ম্যানেজার জয়া সাহা। জেরায় তিনি জানিয়েছেন, শুধু সুশান্ত বা রিয়াই নন, বলিউডের অনেক স্টারকে ‘সিবিডি অয়েল’ বা গাঁজা থেকে তৈরি তেল কিনে দিয়েছিলেন তিনি। যাদের একজন শ্রদ্ধা কাপুর।

আর দীপিকা? দীপিকার ম্যানেজার কারিশমা এই জয়ার খুব ভালো বন্ধু। একটি হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট এনসিবির হাতে আসে গত সোমবার। ২০১৭ সালের সেই চ্যাটেই দেখা যায়, ‘ডি’ এবং ‘কে’ নামে ২ ব্যক্তির মধ্যে মাদক প্রসঙ্গে একাধিকবার কথা চালাচালি হয়েছে। কখনো ‘ডি’, ‘কে’-কে গাঁজা আছে কিনা জিজ্ঞাসা করছেন। আবার কখনো বা ‘কে’ তাকে (ডি’কে) গাঁজার হদিশ দিচ্ছেন। বলিউডের একাংশের দাবি, এই ‘ডি’ হলেন দীপিকা নিজেই। আর ‘কে’ হলেন কারিশমা। এনসিবির নজরে আছে বছর তিনেক আগে দীপিকাসহ বিটাউনের বেশ কয়েকজন নামজাদা অভিনেতার ক্লাব ‘কোকো’-তে একটি পার্টির ঘটনাও। ওই পার্টির জন্যই ‘কে’-র কাছে গাঁজার খবর জানতে চাইছিলেন ‘ডি’।

পিআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়