গণমাধ্যমে কথা বলায় উপজাতি নারীর নামে মামলা

আগের সংবাদ

টাইগারদের স্কিল অনুশীলন শুরু

পরের সংবাদ

সালাউদ্দিনের স্বপ্ন ৩৭ ধাপ এগোনো

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০ , ১০:০২ অপরাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০ , ১০:০২ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সর্বোচ্চ আসনে কে বসবেন তা জানা যাবে ৩ অক্টোবর। তবে তার আগে আজ ৩৬ দফা নির্বাচনি ইশতেহার ঘোষণা করেছে কাজী সালাউদ্দিন, নাবিল ও সালাম মুর্শেদীদের নিয়ে করা সম্মিলিত পরিষদ। নতুন ইশতেহারে অনেক উদ্যোগ নেয়ার আশ্বাস দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম হলো, সালাউদ্দিনের স্বপ্ন ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে ৩৭ ধাপ এগিয়ে থাকা। তিনি বর্তমানে ১৮৭তম স্থানে থাকা বাংলাদেশকে ১৫০-এর দিকে এগিয়ে নিতে চান। এটাই এখন সালাউদ্দিন মনে করছেন বড় লক্ষ্য। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে এ মুহূর্তে বাংলাদেশের উপরে রয়েছে ভারত (১০৯), আফগানিস্তান (১৪৯), মালদ্বীপ (১৫৫) এবং নেপাল (১৭০)। লাল-সবুজের প্রতিনিধিদের নিচে রয়েছে ভুটান (১৮৯), পাকিস্তান (২০০) এবং শ্রীলঙ্কা (২০৬)। আগামী ৪ বছরে বাংলাদেশকে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে উন্নতি ঘটানোই সালাউদ্দিনের স্বপ্ন।

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সর্বোচ্চ আসনে কাজী সালাউদ্দিন টানা চতুর্থবারের মতো সভাপতি হবেন কিনা সেটা সময়ই বলে দিবে। তবে বাফুফের সভাপতি হিসেবে ১২ বছর পার করেছেন তিনি। এই এক যুগে ফুটবলপ্রেমীদের অনেক স্বপ্ন দেখিয়েছেন। অনেক প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, অনেক কিছুকে লক্ষ্য বানিয়েছেন। কিন্তু সে সব প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করতে পারেননি। এর আগে ২০২২ বিশ্বকাপে খেলার স্বপ্ন দেখিয়ে ছিলেন কাজী সালাউদ্দিন। ২০১২ সালের নভেম্বরে সে কথা বলার পর পেরিয়ে গেছে ৮ বছর। তাছাড়া কাতার বিশ্বকাপকে লক্ষ্য বানানোর সময় সালাউদ্দিন দ্বিতীয় মেয়াদে ছিলেন বাফুফের মসনদে। এরপর ২০১৬ সালে তৃতীয় মেয়াদে নির্বাচন করে সে মেয়াদও শেষ করেছেন। এবার চতুর্থ মেয়াদে নির্বাচন করার আগে বাংলাদেশকে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে উন্নতির আশ্বাস দিলেন সালাউদ্দিন। আজ ইশতেহার ঘোষণার পর গণমাধ্যমের সঙ্গে নানা বিষয় নিয়ে কথা বলতে গিয়ে সালাউদ্দিন বলেন, সরাসরি বিশ্বকাপে খেলার কথা আমি কখনো বলিনি। এখানে একটা কনফিউশন আছে। আমি বলেছি, আমরা বিশ্বকাপ খেলার চেষ্টা করব। একটা লক্ষ্য নিয়ে নামতে হবে তো। আমি যদি মক্কায় যেতে চাই, তাহলে মক্কার রাস্তাতেই হাঁটতে হবে। আমরা কাজ শুরু করেছি বাস্তবিকভাবে।

আগামী অক্টোবর ২০২৪ এর মধ্যে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ের উন্নতির লক্ষ্যে সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা গ্রহণ করা হবে। যাতে করে ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলকে ১৫০ এর নিচে নিয়ে যাওয়া যায়। মাঝে ৩ বছর খেলতে পারিনি। তাই র‌্যাঙ্কিংয়ে স্বাভাবিক ভাবে পিছিয়ে গেছি।
তিনি আরো বলেন, এখন আমাদের ফুটবলাররা ৫০-৬০ লাখ টাকা পাচ্ছে। কিন্তু আমাদের সময় তা ছিল না। আমি ১২ বছর ন্যাশনাল দলে খেলেছি এক জোড়া ভালো বুট পায়নি। এখন দুই তিন জোড়া বুট ও জার্সি পায় খেলোয়াড়রা।

এছাড়া কাজী সালাউদ্দিন-সালাম মুর্শেদীদের সম্মিলিত পরিষদ শুধু ইশতেহারই দেয়নি, তার সঙ্গে গত ১২ বছরে নিজেদের সাফল্যের খতিয়ানও তুলে ধরেছে। শুরুতে জাতীয় দল নিয়ে নিজেদের আগামী দিনের পরিকল্পনা পড়ে শোনান বর্তমান সহসভাপতি ও জাতীয় টিমস কমিটির চেয়ারম্যান কাজী নাবিল আহমেদ।

পাশাপাশি নারী ফুটবলের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেছেন বর্তমান মহিলা ফুটবল কমিটির চেয়ারম্যান মাহফুজা আক্তার কিরণ। মহিলা ফুটবলের বার্ষিক সূচি প্রণয়ন করার পাশাপাশি বয়সভিত্তিক দলসহ জাতীয় দলকে আরো শক্তিশালী করে গড়ার অঙ্গীকার করা হয়েছে। তিনি সাফ মহিলা ফুটবল ও এসএ গেমস ফুটবলের শিরোপা জয়ের লক্ষ্য নিয়ে কাজ করার কথা বলেছেন। হাইপ্রোফাইল কোচিং স্টাফসহ আধুনিক প্রযুক্তির সবকিছুই করা হবে বলে জানিয়েছেন কিরণ এই ইশতেহারে।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়