প্রথম লাইকি লাইভ টক শো'র পরিচালনায় ওশিন

আগের সংবাদ

গণমাধ্যমে কথা বলায় উপজাতি নারীর নামে মামলা

পরের সংবাদ

বিদায়ী নৈশভোজ অনুষ্ঠানে রিভা গাঙ্গুলি দাশ

বাংলাদেশকে খুব মিস করবো

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০ , ৯:৪৯ অপরাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ২২, ২০২০ , ৩:৫৯ অপরাহ্ণ

শরতের সন্ধ্যা। একদিকে চলমান করোনা ভাইরাস সংকট, অন্যদিকে বৃষ্টি। কখনো কখনো ঝিরঝিরে, কখনো দমকা হাওয়া। প্রকৃতিও হয়তো হৃদয়ে ধারণ করেছিল, বিদায় সন্ধ্যার করুণ রাগ।

তবু বৈরি প্রকৃতি উপেক্ষা করে একে একে সবাই এসেছিলেন প্রিয়জনের বিদায় অনুষ্ঠানে। আর প্রিয়জনদের বিদায়ী শুভেচ্ছায় সিক্ত হয়ে তিনি বললেন, বাংলাদেশ আমাদের ঐতিহাসিক বন্ধু। আরো বড় দায়িত্ব পালনের জন্য বাংলাদেশ থেকে নিজ দেশে ফিরে যাচ্ছি। কিন্তু বাংলাদেশকে আমি খুব মিস করব।

তিনি বাংলাদেশে ভারতীয় হাইকমিশনার রিভা গাঙ্গুলি দাশ। নিজ দেশ ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় পররাষ্ট্র সচিবের দায়িত্ব নিয়ে দেশে ফিরে যাচ্ছেন রিভা গাঙ্গুলি দাশ। বাংলাদেশে হাইকমিশনারের দায়িত্বকালীন অসংখ্য মানুষের সঙ্গে মিশতে হয়েছে তাকে। নানা স্থানে যেতে হয়েছে। বিদায়বেলায় সেসব স্মৃতি তুলে ধরে বাংলাদেশ-ভারতের সম্পর্ক আরো জোরদার হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্তের সৌজন্যে রিভা গাঙ্গুলি দাশের সম্মানে বিদায়ী নৈশভোজে রবিবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাতে রাজধানীর হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালের ক্রিস্ট্যাল বলরুমে জমেছিল মিলনমেলা। সরকারের মন্ত্রী, মেয়র, সংসদ সদস্য, বিরোধীদলীয় উপনেতা, রাজনীতিবিদ, মুক্তিযোদ্ধা, শিক্ষাবিদ, ব্যবসায়ী নেতা, সাংবাদিক, বুদ্ধিজীবী- সবাই এসেছিলেন বিদায় জানাতে। আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য কর্নেল (অবসরপ্রাপ্ত) ফারুক খান, কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাক, এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আবদুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক ও আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণবিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী তাজুল ইসলাম, পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ এনামুর রহমান, পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম, সংসদ সদস্য মো. শফিকুর রহমান, প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জি এম কাদের, জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন বাবলু, সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন মেয়র আতিকুল ইসলাম, জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু, নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর জেনারেল অবসরপ্রাপ্ত আবদুর রশিদ, সাবেক তথ্য প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক আবু সাঈদ, অর্থনীতিবিদ ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য, বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলাম, এফবিসিসিআইয়ের সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম, জাতীয় প্রেস কাবের সভাপতি সাইফুল আলম, মুক্তিযোদ্ধা, সাহিত্যিক ও সাংবাদিক হারুন হাবীব, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল, একাত্তর টেলিভিশনের প্রধান সম্পাদক মোজাম্মেল বাবু, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের হেপাটলজি বিভাগের চেয়ারম্যান ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল, হিন্দু কল্যাণ ট্রাস্ট্রের ভাইস চেয়ারম্যান, গুলশান-বনানী সার্বজনীন পূজা উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক সুধাংশু দে প্রমুখ।

রিভা গাঙ্গুলি দাশের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র আতিকুল ইসলাম ও সাবেক তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু।

অনুষ্ঠানে বিদায়ী হাইকমিশনারের হাতে উপহার তুলে দেন ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত। এ সময় তিনি বলেন, বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক ঐতিহাসিক, মুক্তিযুদ্ধ ও রক্তের। প্রতিবেশী এই দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি হতে যাচ্ছে। এটি নিঃসন্দেহে পারস্পরিক আত্ম-বিশ্বাস না থাকলে সম্ভব হতো না।

রিভা গাঙ্গুলি দাশকে বিদায়ী শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন ভোরের কাগজ সম্পাদকসহ অতিথিরা।

আবেগাপ্লুত রিভা গাঙ্গুলি দাশ বলেন, আগামী বছর বাংলাদেশ স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন করতে যাচ্ছে। বাংলাদেশের সঙ্গে ভারতের নানামুখী সম্পর্ক রয়েছে। এর মধ্যে ৫০ বছরের ঐতিহাসিক কূটনৈতিক সম্পর্কের বিষয়টিও আছে। হাইকমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে আমি অনেকের সঙ্গেই কাজ করেছি। অনেকের সঙ্গে হৃদ্যতাপূর্ণ সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। একটি বড় দায়িত্ব নিয়ে আমাকে দেশে ফিরে যেতে হচ্ছে। তবে বাংলাদেশকে আমি খুব মিস করব। তিনি বলেন, ভারত-বাংলাদেশ যৌথ প্রকল্পগুলো এগিয়ে যাবে। কূটনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক সম্পর্ক আরো উন্নত হবে। বাংলাদেশ আমাদের উন্নয়নশীল পার্টনার। এ সময় বাংলাদেশ সফলভাবে করোনা মহামারি কাটিয়ে উঠবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। অত্যন্ত সৌহার্দ্যমূলক অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য তিনি ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্তকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও কৃতজ্ঞতা জানান এবং ভোরের কাগজের উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি কামনা করেন।

এসএইচ/ এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়