ভিজিডির ২৮ বস্তা চাল উদ্ধার

আগের সংবাদ

অভিযোগ করে উল্টো শাস্তি পেলেন নেইমার

পরের সংবাদ

চিরচেনা রূপে মেসি

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০ , ৮:৫৪ অপরাহ্ণ আপডেট: সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০ , ৮:৫৪ অপরাহ্ণ

লিওনেল মেসি মানে হলো বার্সেলোনা। লিওনেল মেসি মানে হলো গোল। বর্তমান সময়ের সবচেয়ে সেরা এই ফুটবলার তার ক্যারিয়ারের পুরো সময়টা কাটিয়েছেন স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনার হয়ে। ক্লাবটির ইতিহাসে সর্বোচ্চ গোলদাতাও তিনি। তিনি বার্সার হয়ে ৭৩১টি ম্যাচ খেলে ৬৩৪টি গোল করেছেন। গোল করার দিক দিয়ে তার ধারে-কাছেও কেউ নেই।

বার্সার জার্সিতে সেই গোল করার চিরচেনা রূপেই আবার ফিরেছেন মেসি। আজ (বৃহস্পতিবার) স্প্যানিশ ক্লাব জিরোনার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচে খেলতে নামে বার্সা। সেই ম্যাচটিতে বার্সা ৩-১ গোলের জয় তুলে নেয়। আর এই ৩টি গোলের ২টিই আসে মেসির পা থেকে। অপর গোলটি করেন ফিলিপে কুতিনহো। প্রথমার্ধের খেলা শেষ হতে আর যখন মাত্র ১ মিনিটের মতো বাকি আছে তখন ডি-বক্সের বাইরে থেকে বুলেটগতিতে শট করে নতুন মৌসুমে প্রথম গোল করেন তিনি। মেসির আগে ম্যাচের ২১ মিনিটের সময় বার্সার হয়ে প্রথম গোলটি করেন কুতিনহো। তবে দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই জিরোনার স্যামুয়েল সাইজ গোল করে ব্যবধান ২-১ করে ফেলেন। তবে বার্সার ব্যবধান বাড়াতে ফের এগিয়ে আসেন অধিনায়ক মেসিই। ম্যাচের ৫১ মিনিটের সময় ডান দিক থেকে এগিয়ে এসে গোল করেন তিনি। আর এতে করে বার্সার ব্যবধান হয়ে যায় ৩-১। এই গোলটি করার পর আরো ১০ মিনিটের মতো মাঠে ছিলেন মেসি। ম্যাচের ৬৩ মিনিটের সময় তাকে মাঠ থেকে উঠিয়ে নেন কোচ রোনাল্ড কোম্যান।

তবে কিছু বিষয় নিয়ে মনোমালিন্য হওয়ার কারণে লিওনেল মেসি বার্সা ছাড়তে চেয়েছিলেন। কিন্তু অনেক নাটকীয়তার পর তিনি অন্তত এই ২০২০-২১ মৌসুমটির জন্য তিনি বার্সেলোনায় থাকছেন। এই মৌসুমের পর তিনি আর বার্সায় থাকবেন কিনা তা এখনো কেউ নিশ্চিত করে বলতে পারে না। তবে মেসির যে হাব-ভাব তা দেখে বলা যায় যে, তিনি বার্সার হয়ে আর থাকবেন না। অবশ্য ২০২১ সালের মার্চ মাসে নতুন করে নির্বাচন হবে বার্সেলোনা ক্লাবের। সেই নির্বাচনের মাধ্যমে নতুন সভাপতি পাবে ক্লাবটি। মেসির বার্সা ছাড়ার অন্যতম একটি কারণ হলো বর্তমান সভাপতি জোসেফ মারিয়া বার্তেমিউ। তার সঙ্গে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে দ্বন্দ্ব রয়েছে মেসির। এর মধ্যে অন্যতম হলো বার্তেমিউ এর লোক ভাড়া করা। জানা যায়, মেসিসহ বেশ কয়েজকজন তারকার নামে নেট দুনিয়ায় কুৎসা রটানোর জন্য বার্তেমিউ লোক ভাড়া করেছিলেন। তাছাড়া সাবেক কোচ ভালভার্দের বিদায়ের দায় দেয়া হয়েছিল মেসির ওপর। এটি নিয়েও ক্ষুব্ধ হন মেসি। তাছাড়া দলের পারফরমেন্স নিয়েও নাখোশ হন মেসি। সবকিছু মিলিয়ে নিজের প্রিয় ক্লাবের ওপর বিরক্ত হয়ে পড়েছিলেন তিনি। যার ফলশ্রুতিতে তিনি অন্য কোনো ক্লাবে যোগ দিতে চেয়েছিলেন।

এসএইচ

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়