নেইমারের আক্ষেপ

আগের সংবাদ

বার্সায় যেতে চান সালাহ

পরের সংবাদ

বিদেশি কোচ পেয়ে উজ্জীবিত টাইগাররা

কাগজ প্রতিবেদক

প্রকাশিত হয়েছে: সেপ্টেম্বর ১৪, ২০২০ , ১০:৪৪ অপরাহ্ণ

করোনা ভাইরাসের ভয় উপেক্ষা করে বিসিবির দেয়া স্বাস্থ্যবিধি মেনে অনুশীলন করছেন টাইগাররা। কিন্তু এতদিন কোচ ছাড়া অনুশীলন করেছেন তামিম-রুবেলরা। তবে সোমবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনুমতি সাপেক্ষে টাইগারদের সঙ্গে অনুশীলনে যোগ দিয়েছেন ডমিঙ্গোরা। এর ফলে যেন নতুন করে প্রাণ ফিরে পেয়েছে মুশফিকুর রহিম-মোস্তাফিজরা। করোনা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ৪ কোচিং স্টাফ রাসেল ডমিঙ্গো, ওটিস গিবসন, রায়ান কুক ও করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর ফের সুস্থ হয়ে ওঠা ট্রেনার নিক নেইল সোমবার টাইগারদের অনুশীলনে সঙ্গ দিয়েছেন। সকাল ১১টার পর থেকে মিরপুরে ব্যস্ত ছিল চার কোচ। এমনকি তাদের অধীনে সেন্টার উইকেটে ব্যাটিং অনুশীলনে ঘাম ঝরিয়েছেন টাইগারদের টেস্ট দলপতি মুমিনুল হক।

সোমবার দুপুরে শ্রীলঙ্কা সিরিজের কোয়ারেন্টাইন নিয়ে জটিলতার বিষয় কোচদের সঙ্গে আলোচনা করতে মাঠে আসেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। তার সঙ্গে ছিলেন ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের চেয়ারম্যান আকরাম খান, এইচপির চেয়ারম্যান নাঈমুর রহমান, গেম ডেভেলপমেন্টের চেয়ারম্যান খালেদ মাহমুদসহ বেশ কয়েকজন পরিচালক। তারা প্রধান কোচ ডমিঙ্গো, পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসন ও ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুকের সঙ্গে আলোচনা করেন ও টাইগারদের অনুশীলনের খোঁজখবর নেন।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের দেয়া সূচি অনুযায়ী সোমবার ছিল মুশফিক-সৌম্যদের ব্যক্তিগত অনুশীলনের শেষ দিন। কারণ এরপর ক্রিকেটারদের ব্যক্তিগত অনুশীলনের আর কোনো সূচি জানানো হয়নি বিসিবির পক্ষ থেকে। তবে বিদেশি কোচদের পেয়ে বেশ ফুরফুরে মেজাজে অনুশীলন করেছেন টাইগাররা। এমনকি এতদিন পর শিষ্যদের কাছ থেকে অনুশীলনের কসরত শেখাতে পেরে উচ্ছ¡সিত ছিল কোচরাও। তামিম-মুশফিককে বল ছুড়ে সেন্টার উইকেটে ব্যাটিং করান গিবসন। এছাড়া হাই ক্যাচ ছুড়ে অন্য আরেকজনকে হাই ক্যাচ প্র্যাকটিস করানোর সঙ্গে রানিং ও স্ট্রেচিং মনিটর করা- সব কাজেই দেখা গেল ডমিঙ্গো, গিবসন, কুক ও নেইলকে। পাশাপাশি মিরপুরে সেন্টার উইকেটে এক ঘণ্টা ব্যাটিং করেছেন মুমিনুল হক। তার ব্যাটিংটা ঈগলের দৃষ্টিতে পরখ করছিলেন কোচ ডমিঙ্গো ও পেস বোলিং কোচ ওটিস গিবসন। বল ছুড়ে মুমিনুলের ব্যাটিং প্র্যাকটিসে সহায়তা করলেন রায়ান কুক। গিবসন আম্পায়ারের জায়গায় দাঁড়িয়ে প্রায় আধঘণ্টা মুমিনুলের ব্যাটিং দেখলেন।

বিদেশি কোচদের পেয়ে সোমবার মুশফিকের অনুশীলনের গতি বেড়ে যায়। তিনি অনেকক্ষণ ব্যাটিং অনুশীলন করে হাই ক্যাচ প্র্যাকটিসে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। হাতে প্লাস্টিকের গ্লাভস পরে হাই ক্যাচ প্র্যাকটিস করেন মুশফিক। তাকে হাই ক্যাচ ছুড়ে দেন রায়ান কুক। মাঠের পশ্চিম দিক ঘেঁষে কখনো সামনে এগিয়ে, কখনো পিছিয়ে আবার ডানে-বামে দৌড়ে হাই ক্যাচ প্র্যাকটিস করেন মুশফিক। অন্যদিকে বল হাতে ওটিস গিবসনের সঙ্গে বেশ ব্যস্ত ছিল তাসকিন আহমেদ ও মোস্তাফিজুর রহমান।

এর আগে বাংলাদেশ দলের কোচিং স্টাফরা ৬ সেপ্টেম্বর ঢাকায় পা রাখে। প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো আর ফিল্ডিং কোচ রায়ান কুক একই ফ্লাইটে ঢাকায় আসেন। একদিন পর আসেন বোলিং কোচ ওটিস গিবসন। এরপর তারা হোটেল সোনারগাঁওয়ে ছিলেন। করোনা পরীক্ষায় নেগেটিভ হয়েই বাংলাদেশের বিমান ধরেছিলেন তারা। তবুও ঢাকায় পৌঁছানোর পর তাদের আরেক দফা করোনা পরীক্ষা করা হয়। এমনকি বাংলাদেশ সরকারের নিয়মানুযায়ী কেউ বিদেশ থেকে এলে করোনার কারণে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকা বাধ্যতামূলক। কিন্তু বিসিবি ডমিঙ্গো, কুক ও গিবসনের ক্ষেত্রে সে নিয়ম কিছুটা শিথিল করার প্রস্তাব দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কাছে। এরপর তাদের পক্ষ থেকে সবুজ সংকেত পেয়েছে বিসিবি। তাই ১৪ দিন নয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অনুমতি নিয়ে ৭ দিনের কোয়ারেন্টাইনের পর মাঠে নেমেছেন ডমিঙ্গোরা। প্রায় ছয় মাস পর অবশেষে বাংলাদেশ দলের অনুশীলনে দেখা গেল বিদেশি কোচিং স্টাফদের।

এসএইচ