পবিত্র আশুরা ৩০ আগস্ট

আগের সংবাদ

কী ঘটেছিল সেদিন

পরের সংবাদ

রক্তাক্ত ভয়াল-বিভীষিকাময় ২১ আগস্ট আজ

প্রকাশিত: আগস্ট ২১, ২০২০ , ১২:২১ পূর্বাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ২১, ২০২০ , ৯:৪৯ পূর্বাহ্ণ

পঁচাত্তরের পনের আগস্টের পর বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে রক্তাক্ত ভয়াল-বিভীষিকাময় আরেকটি দিন ২১ আগস্ট। ইতিহাসের ঘৃণ্য কলঙ্কময় দিন। নৃশংসতা, রক্তস্রোত আর মৃত্যুর নারকীয় গ্রেনেড হামলার ১৬তম বার্ষিকী আজ।

২০০৪ সালের এই দিনে বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের আমলে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের ‘সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও দুর্নীতিবিরোধী’ সমাবেশে অকল্পনীয় এক নারকীয় গ্রেনেড হামলা চালানো হয়। যা মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের ইতিহাসে ঘৃণ্য কলঙ্কময় অধ্যায়ের জন্ম দেয়।

তৎকালীন বিরোধীদলীয় নেত্রী ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে পরিচালিত হয়েছিল সেই পৈশাচিক হামলা। যে হামলায় প্রয়াত রাষ্ট্রপতি মো. জিল্লুর রহমানের সহধর্মিণী ও মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী বেগম আইভী রহমানসহ প্রাণ হারান ২৪ জন।

শুধু সমাবেশে গ্রেনেড হামলাই নয়, হামলাকারীদের প্রধান টার্গেটে থাকা বঙ্গবন্ধুকন্যা ও আওয়ামী লীগ সভাপতিকে হত্যার উদ্দেশ্যে তার গাড়ি লক্ষ্য করেও চালানো হয়েছিল ছয় রাউন্ড গুলি। অল্পের জন্য প্রাণে বেঁচে গেলেও আহত হয়েছিলেন বঙ্গবন্ধুকন্যা। ক্ষতিগ্রস্ত হয় তার শ্রবণশক্তি।

ভয়াবহ সেই হামলার সময় দলীয় নেতাকর্মীরা মানববর্ম রচনা করে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে রক্ষা করেছিলেন। গ্রেনেড হামলার বিচারের রায়ে তৎকালীন ক্ষমতাসীন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের মন্ত্রী ও তৎকালীন সরকারের কর্মকর্তাদের সম্পৃক্ততায় প্রমাণ মেলে। মূলত বিএনপি-জামায়াত সরকারের প্রত্যক্ষ মদতেই হামলাটি পরিচালিত হয়েছিল।

আজ শুক্রবার (২১ আগস্ট) বাঙালি জাতি ইতিহাসের ভয়াবহতম গ্রেনেড হামলার ১৬তম বার্ষিকী পালন করবে। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাণী দিয়েছেন। ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে। তবে, করোনা সংক্রমণের কারণে কর্মসূচিতে অন্যান্য বছরের তুলনায় কিছুটা কাটছাট করা হয়েছে।

এনএম

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়