৭দিন সময় পেলো স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি

আগের সংবাদ

দেশে গরিব মানুষরা ক্ষুধার জ্বালায় হাহাকার করছে

পরের সংবাদ

মদনে নৌকাডুবির তদন্ত প্রতিবেদন

প্রচণ্ড বাতাস ও উত্তাল ঢেউয়ে ১৮ প্রাণহানি

প্রকাশিত: আগস্ট ২০, ২০২০ , ৬:৩৬ অপরাহ্ণ আপডেট: আগস্ট ২০, ২০২০ , ৬:৩৭ অপরাহ্ণ

প্রচণ্ড বাতাস ও উত্তাল ঢেউয়ের আঘাতে নেত্রকোণার মদনে নৌকাডুবে ১৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে বলে তদন্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছেন কমিটি। তদন্ত সাপেক্ষে প্রকৃত ঘটনা উদঘাটন করে (১৯ আগষ্ট) বুধবার জেলা প্রশাসক বরাবর এ প্রতিবেদন দাখিল করেন। বৃহস্পতিবার মদন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বুলবুল আহমেদ তার অফিস কক্ষে স্থানীয় সাংবাদিকদের সঙ্গে আলোচনাকালে জেলা প্রশাসক বরাবর প্রতিবেদন প্রেরণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

দুর্ঘটনা কবলিত ট্রলারে বেচেঁ যাওয়া যাত্রী, স্থানীয় উদ্ধারকর্মী, স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী, নিহতদের অভিভাবকের বক্তব্য নিয়ে এ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়। ভবিষ্যতে দুর্ঘটনা রোধে করণীয় পাচঁ সুপারিশের কথা উল্লেখ করেন। প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যমণ্ডিত মিনি কক্সবাজার খ্যাত উচিতপুর হাওরে বর্ষাকালে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত হতে পর্যটকদের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলছে।

মদন উপজেলা ও নেত্রকোণায় জেলায় ফায়ার সার্ভিসের কোনো ডুবুরিদল না থাকায় দুর্ঘটনা উদ্ধার কাজ পরিচালনার জন্য ময়মনসিংহ হতে ডুবুরিদল আসতে অনেক সময় ক্ষেপণ হয়। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স মদন, নেত্রকোণায় একটি ডুবুরি দল থাকলে দ্রুত উদ্ধার কাজ পরিচালনা করা সম্ভব হবে বলে তদন্ত প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছেন।

তদন্ত কমিটির প্রধান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বুলবুল আহমেদ জানান, ঘটনার সঠিক তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ করে প্রতিবেদন তৈরি করতে সময় ক্ষেপণ হয়েছে। নৌকাডুবির ঘটনায় সংশ্লিষ্ট সকলের সঙ্গে আলোচনা করে সঠিক প্রতিবেদন (১৯ আগষ্ট) বুধবার জেলা প্রশাসক বরাবর প্রেরণ করেছি। দুর্ঘটনা রোধে ৫টি সুপারিশ ও স্থানীয় ফায়ার সার্ভিন অফিসে ডুবুরি দল নিয়োগের প্রস্তাব প্রতিবেদনে উল্লেখ করেছি। স্বাস্থ্য বিধি ও সুপারিশকৃত নীতিমালা মেনে পর্যটকরা চলাচল করলে কোনো বিধি নিষেধ নেই।

৫ আগষ্ট মদন উপজেলার উচিতপুর নৌকা ঘাট হতে ময়মনসিংহ সদর ও গৌরীপুর উপজেলা হতে আগত ৪৮ জন মাদ্রাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থী হাওরে ভ্রমণের উদ্দেশ্যে একটি ইঞ্জিত চালিত নৌকায় যাত্রা শুরু করে। ঘাট থেকে ২.৫ কিলোমিটার দূরে গোবিন্দশ্রী ইউনিয়নের রাজালীকান্দা নামক স্থানে পৌছালে আনুমানিক দুপুর ১২ টায় মর্মান্তিক নৌকা ডুবিতে ১৮ জনের প্রানহানি ঘটে। তাৎক্ষনিক ওই রাতেই জেলা প্রশাসক মদন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রধান করে ৪ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে ৭ কর্ম দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দেয়।

এসআর

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, ভোরের কাগজ লাইভ এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়