শিমুলিয়ার একটি ফেরিঘাটই এখন ভরসা

আগের সংবাদ

স্ত্রীদের সঙ্গে রাখার অনুমতি মিলল ধোনি-কোহলিদের

পরের সংবাদ

চরফ্যাশনে নিখোঁজ ৯ জেলে

তীব্র জোয়ারে ভোলা প্লাবিত

এইচ এম নাহিদ, ভোলা

প্রকাশিত হয়েছে: আগস্ট ৬, ২০২০ , ১২:৫৭ অপরাহ্ণ

ভোলায় উচ্চ জোয়ারের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত। পানিবন্ধি হয়ে পড়েছে কয়েক লাখ মানুষ, নিরাপদে সরিয়ে নেয়া হয়েছে পানি বন্ধি মানুষকে। চরফ্যাশনে ৪টি ট্রলার ডুবে ৯ জেলে এখন পর্যন্ত নিখোঁজ রয়েছেন। ভোলার রাজাপুরের প্রবল জোয়ারের স্রোতে তলিয়ে গেছে এক শিশু । শহর রক্ষা বাঁধ উপচে বহু ঘরবাড়ি তলিয়ে গেছে। মাছের ঘের তলিয়ে কোটি টাকার লোকসানে মৎস চাষিরা, ভেসে গেছে শতশত গবাদি পশু। গতকাল বুধবার পর্যন্ত জেলাজুড়ে শতশত গ্রাম জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়েছে।

স্থানীয়রা বলছেন, ভোলার সাতটি উপজেলায় এ পর্যন্ত ৪ লাখ মানুষ পানিবন্ধি রয়েছেন।

সরজমিনে খোঁজ নিয়ে জানাযায়, ভোলার সদর উপজেলার বাপ্তা, রাজাপুর, কাঁচিয়া, শিবপুর, পশ্চিম ইলিশা, পুর্বইলিশা, ভেলুমিয়া, ভেদুরিয়া ইউনিয়ন, দৌলতখান উপজেলার, মদনপুর, নেয়ামতপুর, মেদুয়া, ভবানীপুর, সৈয়দপুর, হাজিপুর ইউনিয়ন, তজুমুদ্দিন উপজেলার, চরজহিরুদ্দি, চর মোজাম্মেল, সোনাপুর, চরফ্যাশন উপজেলার, ডালচর, চর কুকরিমুকরি, মুজিনগর, চর মাদ্রাজ, চর পাতিলা, মনপুরা উপজেলার, কলাতলি,চর নিজাম এবং লালমোহন উপজেলার, কলতলিরচর, চর শাহাজালাল সহ প্রায় ১০০টি চরাঞ্চল জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়ে ৮ থেকে ১০ ফুট পানির নিচে তলিয়ে গেছে।

ভোলা সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা আবু তাহের বলেন, প্রবল জোয়ারের কারনে ইলিশা ফেরিঘাট ও লঞ্চঘাট জোয়ার পানির নিচে তলিয়ে গেছে, শতশত পণ্যবাহী ট্রাক আটকা পড়ে আছে। জোয়ারের প্রবল স্রোতে ভেসে গেছে ১০ বছরের শিশু।

চরফ্যাশন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন বলেন, ডালচর, কুকরিমুকরি ,খেজুর গাছিয়ার ৪ টি ট্রলার প্রবল জলোচ্ছাসের কারনে ডুবে গেছে। ৯ জেলে এখনো নিখোঁজ রয়েছেন।
পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) বলছে, বুধবার ভোলার নদনদীতে জোয়ারের উচ্চতা ছিল প্রায় ৫ মিটার, যা বিপদসীমা অতিক্রম করেছে।

ভোলার জেলা প্রশাসক মাসুদ আলম সিদ্দিকি বলছেন, জোয়ারের প্রভাবে বেড়িবাধ সংলগ্ন ও চরাঞ্চলে প্রায় ৫০হাজার মানুষ পানিবন্ধি রয়েছে। ক্ষয়ক্ষতির তালিকা প্রস্তুত করা হচ্ছে। ক্ষতি গ্রস্তদের পুর্নবাসনের ব্যাবস্থা করা হবে।

পিআর